Tuesday, May 21, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

ঝিনাইদহে প্রতিমা ভাংচুরের অভিযোগে গ্রেপ্তার ৩

পুলিশকে শায়েস্তা করতে প্রতিমা ভাংচুরের পরিকল্পনা করেন উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি দিনার বিশ্বাস ও জিনারুল

আপডেট : ১৬ অক্টোবর ২০২২, ০৬:৪২ পিএম

ঝিনাইদহের শৈলকুপায় কালী প্রতিমা ভাঙচুরের অভিযোগে তিনজনকে আটক করেছে পুলিশ। তারা হচ্ছেন- একই উপজেলার কুশাবাড়িয়া গ্রামের বাসিন্দা আসাদুজ্জামান হিরো (২৯), তুষার হোসেন (৩৩) ও সাজ্জাদ হোসেন।

রবিবার (১৫ অক্টোবর) দুপুরে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান ঝিনাইদহের পুলিশ সুপার (এসপি) মোহাম্মদ আশিকুর রহমান।

তিনি জানান, ৬ অক্টোবর শৈলকুপা উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক ও ধলহরা চন্দ্র ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মতিয়ার রহমানের ছেলে উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি দিনার বিশ্বাস ও জিনারুল গড়াই নদীতে নৌকার মধ্যে অশ্লীল নাচ ও জুয়া খেলার আয়োজন করে। খবর পেয়ে পুলিশ সেখানে অভিযান চালায়। এ সময় জুয়া খেলার সরঞ্জাম, সাউন্ডবক্সসহ দু’টি ট্রলার জব্দ করা হয়। এতে ক্ষিপ্ত হন সাবেক ছাত্রলীগ নেতা দিনার বিশ্বাস। পুলিশকে শায়েস্তা করতে পরিকল্পনা করেন প্রতিমা ভাংচুরের।

তিনি আরও জানান, ওই দিন রাতেই দিনার বিশ্বাস তার বাড়িতে আসাদুজ্জামান হিরো, তুষার হোসেন ও  সাজ্জাদ হোসেনকে ডেকে নেন। সেখানে বসেই পরিকল্পনা করেন দিনার। তার নির্দেশনা অনুযায়ী ডাউটিয়া গ্রামের শত বছরের পুরনো কালীমন্দিরের প্রতিমা ভাংচুর করেন তারা। পরদিন বিষয়টি জানাজানি হলে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়।

৭ অক্টোবর মন্দির কমিটির সভাপতি সুকুমার মণ্ডল বাদী হয়ে শৈলকুপা থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। পরে তদন্ত শুরু করে জেলা পুলিশের সাইবার ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন ইউনিট। ১২ অক্টোবর আসাদুজ্জামান হিরোকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। পরে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকায় তুষার ও সাজ্জাদ নামের আরও দুইজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। তবে এখনও পলাতক রয়েছে মুল পরিকল্পনাকারী দিনার বিশ্বাস।

পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আশিকুর রহমান পিপিএম বিপিএম (বার) বলেন, “ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দিয়ে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টিকারীদের কোনো ছাড় দেওয়া হবে না। এর সঙ্গে যেই জড়িত থাকবে তাকেই আইনের আওতায় আনা হবে।”

About

Popular Links