Saturday, June 22, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

আর্জেন্টাইন সমর্থকদের উদযাপনের ‘গরু-ছাগল চুরি’!

অন্যদিকে, চুয়াডাঙ্গায় গভীর রাতে উল্লাস করার সময় ট্রাকভর্তি আর্জেন্টিনার একদল সমর্থককে হেফাজতে নিয়েছে সদর থানা পুলিশ

আপডেট : ১৯ ডিসেম্বর ২০২২, ০২:০৩ পিএম

চুয়াডাঙ্গায় গভীর রাতে উল্লাস করার সময় ট্রাকভর্তি আর্জেন্টিনার শিশু-কিশোর সমর্থককে নিরাপত্তার স্বার্থে হেফাজতে নিয়েছে সদর থানা পুলিশ। পরে অভিভাবকদের জিম্মায় তাদের ছেড়ে দেওয়া হলেও ট্রাকটি জব্দ ও চালককে আটক রাখে পুলিশ।

রবিবার (১৯ ডিসেম্বর) দিবাগত রাতে তাদের হেফাজতে নেয় পুলিশ।

৩৬ বছর পর আর্জেন্টিনার বিশ্বকাপ জয়ে বাঁধভাঙা উল্লাসে ফেটে পড়েন একদল খুদে সমর্থক। ঘটিয়ে বসেন এক অন্যরকম কাণ্ড। তারা প্রিয় দলের বিশ্বকাপ জয়ের পর উল্লাস করতে করতে চুয়াডাঙ্গা জেলা আলমডাঙ্গা উপজেলার কয়রাডাঙ্গা গ্রাম থেকে একটি ট্র্যাকযোগে চুয়াডাঙ্গা শহরে আসেন এবং শহরের মাথাভাঙ্গা সেতুতে উল্লাসে মেতে উঠেন।

জানা যায়, মেসির হাতে বিশ্বকাপের ট্রফি ওঠার পর পরই খোলা ট্রাকযোগে অনিরাপদভাবে আনন্দ উল্লাসে মেতে উঠেন আলমডাঙ্গা উপজেলার বেশকিছু ক্ষুদে সর্মথকসহ আর্জেন্টাইন সমর্থকরা। ট্রাকটি রাত দেড়টার দিকে চুয়াডাঙ্গা শহরের মাথাভাঙ্গা ব্রিজের ওপর উঠলে সর্মথকসহ ট্রাকটিকে আটক করে থানা হেফাজতে নেয় পুলিশ।

শিশু ও কিশোররা বলে, “আর্জেন্টিনা বিজয়ী হওয়ায় আমরা আলমডাঙ্গা থেকে একটি ট্রাকে করে আনন্দ মিছিল বের করে চুয়াডাঙ্গা শহরে আসি। এরপর পুলিশ আমাদের থানায় নিয়ে আসে।”

সদর থানা পুলিশ জানায়, খোলা ট্রাকভর্তি করে রাস্তায় শোডাউনে কিশোরদের কোনো নিরাপত্তা না থাকায়, তাদেরকে থানা হেফাজতে নেওয়া হয়। আনন্দ উল্লাস করতে কোনো বাধা নেই, কিন্তু নিরাপদভাবে উল্লাস করতে হবে। একটি খোলা ট্রাকে চলন্ত অবস্থায় প্রায় শতাধিক অপ্রাপ্তবয়স্ক সমর্থকরা উল্লাস করছিল। এর মধ্যে বেশিরভাগই কিশোর ও শিশু। তাদের বয়স সাত বছর থেকে ১৬ বছরের মধ্যে।

এ বিষয়ে চুয়াডাঙ্গা সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মাহাব্বুর রহমান কাজল বলেন, “আর্জেন্টিনার বিশ্বকাপ জয়ের পর একদল শিশু-কিশোর একটি খোলা ট্রাকে করে আনন্দ মিছিল বের করে। তাদের কোনো নিরাপত্তা না থাকায় রাতেই আটক করে থানা হেফাজতে নেওয়া হয়। তবে রাতেই শুধু চালক বাদে সকল শিশু-কিশোরদেরকে তাদের পরিবারের জিম্মায় ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। ভবিষ্যতে যাতে এমন কর্মকাণ্ড না করে সে বিষয়ে সতর্ক করা হয়েছে। আমরা ট্রাকটি জব্দ করেছি। পরে ট্রাকের কাগজপত্র যাচাই-বাছাইসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের নির্দেশনা অনুযায়ী পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।”

এদিকে, চুয়াডাঙ্গা শহরের একদল আর্জেটিনার সমর্থক অভিযোগ করেছেন, উদযাপনের জন্য কেনা তাদের কয়েকটি ছাগল ও একটি গরু চুরি হয়ে গেছে। তারা বলছেন, “বেশ কয়েকটি ছাগল ও একটি গরু আর্জেটিনার জয়ের পর ভুরিভোজ করার জন্য কিনে চুয়াডাঙ্গা শহরের বাগানপাড়া সংলগ্ন জ্বিনতলা মল্লিকপাড়ার একটি খোঁয়াড়ে (ফার্ম) রাখা ছিল। কিন্তু আর্জেটিনার জয়ের পর আনন্দ উল্লাস শেষে খোঁয়াড়ে গেলে গরু ও ছাগলগুলো খুঁজে পাওয়া যায়নি।”

চুয়াডাঙ্গা জেলা আর্জেন্টিনা সমর্থক গোষ্ঠীর প্রধান উপদেষ্টা চুয়াডাঙ্গা পৌরসভার ৫ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মাফিজুর রহমান মাফি অভিযোগ করে বলেন, “আমরা আগে থেকেই ঘোষণা দিয়েছিলাম, আমাদের দল বিজয়ী হলে আমার ছাগল ও গরু জবাই করে ভুরিভোজ করবো। সে অনুযায়ী আমরা কয়েকটি ছাগল এবং একটি গরু কিনে একটি খোঁয়াড়ে রেখেছিলাম। কিন্তু রাতে খেলা শেষে সেগুলো আর খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। তবে এ বিষয়ে থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।”

তবে এ ঘটনায় আর্জেটিনার সমর্থক গোষ্ঠীর সদস্যদের অভিযোগ ভিত্তিহীন বলে অনেকেই দাবি করছেন। এছাড়া চুয়াডাঙ্গা সদর থানা পুলিশও বলছে এরকম কোনো ঘটনা তাদের জানা নেই।

About

Popular Links