Wednesday, May 29, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

শিক্ষামন্ত্রী: সবার আগে শিক্ষাখাতকে স্মার্ট করতে হবে

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেন, ‘শিক্ষাখাতকে স্মার্ট করতে সকল উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। আমাদের আন্তর্জাতিক ও জাতীয় কতগুলো লক্ষ্য রয়েছে। সেগুলো আমরা নির্ধারিত সময়ের মধ্যেই অর্জন করতে সক্ষম হবো’

আপডেট : ২৭ ডিসেম্বর ২০২২, ০৯:১৬ পিএম

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, “আমরা রূপকল্প ২০৪১ নিয়ে এগোচ্ছি। আমরা আগে ডিজিটাল বাংলাদেশের স্বপ্ন দেখেছিলাম। এটি এখন বাস্তব। এখন আমরা স্মার্ট বাংলাদেশের স্বপ্ন দেখছি। তবে স্মার্ট বাংলাদেশ গড়তে হলে আগে শিক্ষাখাতকে স্মার্ট করতে হবে।”

মঙ্গলবার (২৭ ডিসেম্বর) জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর বক্তা হিসেবে অংশ নিয়ে তিনি এসব কথা বলেন। গাজীপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল ক্যাম্পাসে সকাল সাড়ে ১০টায় প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করা হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. মশিউর রহমানের সভাপতিত্বে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক। উদ্বোধনের পর অ্যাকাডেমিক ভবনের সামনে থেকে আনন্দ শোভাযাত্রা বের হয়। শোভাযাত্রাটি ক্যাম্পাসের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে নতুন ডরমিটরি ভবনের সামনে গিয়ে শেষ হয়।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, “বর্তমান সময়ের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় দক্ষতাভিত্তিক কর্মমুখী শিক্ষার প্রসার ঘটানোর জন্য অনেক নতুন উদ্যোগ নিয়েছে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়। আশা করছি উচ্চশিক্ষার মানোন্নয়নে এসব নব নব উদ্যোগ কার্যকরী ভূমিকা পালন করবে।”

তিনি আরও বলেন, “শিক্ষাখাতকে স্মার্ট করতে সকল উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। আমাদের আন্তর্জাতিক ও জাতীয় কতগুলো লক্ষ্য রয়েছে। সেগুলো আমরা নির্ধারিত সময়ের মধ্যেই অর্জন করতে সক্ষম হবো।”

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাকাডেমিক মাস্টারপ্ল্যানের কাজ অনেকটা এগিয়েছে জানিয়ে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, “বিশ্ববিদ্যালয়ের মান উন্নয়নে তারা নিরন্তর চেষ্টা করছে। তারা খুব শিগগিরই ১৯টি দক্ষতাভিত্তিক শর্ট-কোর্স চালু করতে যাচ্ছে। এসব নতুন নতুন কোর্স চালু হয়ে গেলে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের সাফল্য সারা দেশকে পথ দেখাবে। বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভাগভিত্তিক যে আঞ্চলিক কেন্দ্র রয়েছে সেখানে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস করা হলে আরও ভালোভাবে উচ্চশিক্ষার মান উন্নয়ন নিশ্চিত হবে। আমরা যে বিষয়েই পড়ি না কেন আমাদের আইসিটি, সফট স্কিল এসবের দক্ষতা থাকতে হবে। এ সকল কার্যক্রমের মাধ্যমেই মানবিক ও স্মার্ট বাংলাদেশ তৈরি হবে।”

অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি মেহের আফরোজ চুমকি, সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি সিমিন হোসেন রিমি, সংসদ সদস্য শামসুন নাহার, ঢাকা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. হাবিবুর রহমান, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. নিজাম উদ্দিন আহমেদ, বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. নাছিমা বানু।

অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার মোল্লা মাহফুজ আল-হোসেন।

About

Popular Links