Wednesday, May 22, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

প্রধানমন্ত্রী: বাংলাদেশ একদিন বিশ্বকাপ ফুটবল খেলবে

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘প্রতিটি জেলায় সুইমিং পুল, শুটিং রেঞ্জ, স্পোর্টস কমপ্লেক্স ও ইনডোর স্টেডিয়াম স্থাপনের পরিকল্পনা রয়েছে সরকারের। দেশে ভালো ক্রীড়াবিদ নিশ্চিত করতে আমরা আটটি বিভাগেই বিকেএসপি প্রতিষ্ঠা করব’

আপডেট : ২৯ ডিসেম্বর ২০২২, ০৯:৫৯ পিএম

দেশের তরুণ খেলোয়াড়দের তাদের খেলাধুলায় আন্তরিকভাবে মনোনিবেশ করতে বলেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, যাতে অদূর ভবিষ্যতে বাংলাদেশ ফুটবল বিশ্বকাপ জিততে পারে। তিনি বলেন, “আমি আশা করি ধীরে ধীরে আমাদের খেলোয়াড়রা বিশ্বকাপে খেলবে, তার জন্য তোমাদের নিজেদের প্রস্তুত করতে হবে। তোমরা হবে আমাদের সোনার ছেলে। আমরা বিশ্বকাপ জিতব।”

বৃহস্পতিবার (২৯ ডিসেম্বর) বাংলাদেশ আর্মি স্টেডিয়ামে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান জাতীয় গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট বয়েজ অনূর্ধ্ব-১৭ এবং বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জাতীয় গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট গার্লস অনূর্ধ্ব-১৭ এর গ্র্যান্ড ফাইনালের পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, “খেলাধুলার মাধ্যমে শরীর ও মন ফিট থাকে এবং একাগ্রতা বিঘ্নিত হয় না।”

তিনি বলেন, “তোমরা যত বেশি খেলাধুলার অনুশীলন করবে তত বেশি শ্রেষ্ঠত্ব অর্জন করবে। তাই আমি তোমাদের আন্তরিকতা নিয়ে খেলতে বলবো।”

দেশের খেলাধুলার মানোন্নয়নে বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের সংক্ষিপ্ত বিবরণ দিয়ে তিনি বলেন, “দেশের প্রতিটি এলাকায় ক্রীড়া সুবিধা নিশ্চিত করতে প্রতিটি উপজেলায় মিনি স্টেডিয়াম স্থাপনের কাজ শুরু হয়েছে।”

তিনি আরও বলেন, “সরকার দেশের ঘরোয়া খেলাধুলার বিকাশে পদক্ষেপ নিয়েছে।”

তিনি উল্লেখ করেন যে, জেলা পর্যায়ে এ পর্যন্ত প্রায় ৫৬টি স্টেডিয়াম নির্মাণ করা হয়েছে। তিনি বলেন, “সরকারের প্রতিটি জেলায় সুইমিং পুল, শুটিং রেঞ্জ, স্পোর্টস কমপ্লেক্স ও ইনডোর স্টেডিয়াম স্থাপনের পরিকল্পনা রয়েছে। দেশে ভালো ক্রীড়াবিদ নিশ্চিত করতে আমরা আটটি বিভাগেই বিকেএসপি প্রতিষ্ঠা করব।”

তিনি বলেন, “সবার জন্য খেলাধুলা সরকারের লক্ষ্য। আমাদের বিবেচনায় সেই লক্ষ্যটি নিয়ে আমরা অক্লান্ত পরিশ্রম করছি।”

প্রধানমন্ত্রী বলেন, “প্রায় এক লাখ ১০ হাজার ৫৫২ খেলোয়াড় টুর্নামেন্টে যোগ দিয়েছেন এবং এটি বিশাল। এই টুর্নামেন্টের প্রতিভাবান ৪০ জন ছেলে ও ৪০ জন মেয়ে বিকেএসপিতে তিন মাসের নিবিড় প্রশিক্ষণ পাবে। এছাড়া আমরা খেলোয়াড়দের বিদেশে পাঠানোর মাধ্যমে উন্নত প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা নিচ্ছি।”

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মো. জাহিদ আহসান রাসেল এবং যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের সচিব মেসবাহ উদ্দিন।

About

Popular Links