Thursday, June 13, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

সিরাজগঞ্জে নির্বাচনী প্রচারণার শুরুতে আ.লীগ-বিএনপির পাল্টাপাল্টি অভিযোগ

"আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে গত ২০ বছরে কেউ খুন-সন্ত্রাসের অভিযোগ তুলতে পারবে না" 

আপডেট : ১২ ডিসেম্বর ২০১৮, ১২:৫১ পিএম

আনুষ্ঠানিক নির্বাচনী প্রচারণার শুরুতে সিরাজগঞ্জ জেলার সদর ও কামারখন্দের বেশ ক’টি স্থানে ঘটে যাওয়া সংঘর্ষ, মারপিট, ভাংচুর ও হামলার ঘটনায় একে অপরকে অভিযুক্ত করে পাল্টাপাল্টি সংবাদ সম্মেলন করেছে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি। মঙ্গলবার দু’দল নিজ নিজ কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে।

সংবাদ সম্মেলনে জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক সিরাজগঞ্জ-২ (সদর ও কামারখন্দ) আসনের প্রার্থী অধ্যাপক ডা. হাবিবে মিল্লাত মুন্না বলেন, "প্রচারণার প্রথম দিনেই বিএনপি-জামায়াত সন্ত্রাসীরা সংঘাত সৃষ্টি করেছে। খুন, সন্ত্রাস, মিথ্যে প্রচারনা তাদেরই সংস্কৃতি ও রাজনীতি। বিগত সময়ে আওয়ামী লীগ নেতা সাইফুল, কুদ্দুস, মোস্তফা ও নাজমুলকে হত্যা করেছে বিএনপি-জামায়াত চক্র। অথচ আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে গত ২০ বছরে কেউ খুন-সন্ত্রাসের অভিযোগ তুলতে পারবে না। আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নিশ্চিত পরাজয় জেনে তারা আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে তারা বিষোদগার করছে। নিজেরাই নৈরাজ্যকর পরিস্থিতি সৃষ্টি করে অন্যের ওপরে দোষ চাপাতে চাচ্ছে"। 

তিনি আরও বলেন, "মানুষের বাড়ি বাড়ি গিয়ে হাত-পা ধরে ভোট চাইতে নির্বাচন কমিশন তাদের নিষেধ করেনি। অথচ তারা সেটা না করে নির্বাচন বানচাল করতে নিল নকশা আটছে। তারা দলের প্রার্থী এখনো ঠিক করতে পারে নাই। গায়েবি আহতের কথা বলে মিথ্যা গুজব ছড়ালেও কোনো হাসপাতালেই তাদের লোকজন ভর্তি নেই। বিএনপি-জামায়াতের মারপিটে আহত আওয়ামী লীগ নেতা ছানু, কামরুল ও জাহাঙ্গীরসহ ক’জন এরই মধ্যে হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। শিয়ালকোল, সয়দাবাদ, কোনাবাড়ী, কড্ডার মোড়সহ সদর ও কামারখন্দ উপজেলার বিভিন্ন স্থানে আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের বার বার হুমকি দেওয়া হয়েছে"। 

জেলা বিএনপি অফিসে সংবাদসম্মেলনে জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সাইদুর রহমান বাচ্চু বলেন, "নিশ্চিত পরাজয়ের আশঙ্কায় সিরাজগঞ্জ-২ আসনের বিভিন্ন স্থানে তাণ্ডব চালিয়েছে আওয়ামী লীগ। সোমবার কামারখন্দ উপজেলা বিএনপি কার্যালয়ে ভাংচুর ও ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি আব্দুল লতিফকে পেটানো হয়েছে। রাতে চক শিয়ালকোল গ্রামে হামলা চালিয়ে বেশ ক’জন বিএনপি নেতাকর্মীকে আহত করে। সদরের চক-শিয়ালকোল গ্রামে বিএনপি নেতা জিব্রাইলের বাড়ি ভাংচুর এবং ধুকুরিয়ায় যুবদল নেতা ইসহাক আলীর গো-খামারে অগ্নীসংযোগসহ বাড়িঘর ভাংচুর করে আওয়ামী লীগ"। 

About

Popular Links