Tuesday, May 28, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

মোমেন: আমাদের দেশের জনগণ বিদেশে গিয়ে প্রায়ই মিথ্যা বলেন

মন্ত্রী বলেন, তাজ্জবের বিষয় হলো, অনেক ক্ষেত্রে বয়সের পাশাপাশি বাবা-মায়ের বয়সও চেঞ্জ করে ফেলেন

আপডেট : ০৮ জানুয়ারি ২০২৩, ০৬:২৫ পিএম

পররাষ্ট্রমন্ত্রী  ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, “আমাদের দেশের জনগণ যখন বিদেশ যান, তখন প্রায়ই মিথ্যা কথা বলেন। একজন লোকের আসল বয়স ৪৩, কিন্তু, ইতালিতে গিয়ে নামার পর বলেন, আমার বয়স ১৭ বছর। কারণ ১৮ বছরের নিচে হলে তিন মাসের জন্য একটা ওয়ার্ক পারমিট পান। যার ফলে অধিকাংশ লোক মিথ্যা কথা বলেন। তাজ্জবের বিষয় হলো, অনেকক্ষেত্রে বয়সের পাশাপাশি বাবা-মায়ের বয়সও পাল্টে ফেলেন।”

রবিবার (৮ জানুয়ারি) দুপুরে সিলেট এমএজি ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ই-গেটের উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন। ঢাকার হযরত শাহজালাল বিমানবন্দর ও চট্টগ্রামের শাহ আমানত বিমানবন্দরের পর ওসমানী বিমানবন্দরে চালু হলো ই-গেট।

ভারত-পাকিস্তানসহ দুনিয়ার কোনো দেশে বয়স চুরি নেই উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, “এটা লজ্জার বিষয়। বয়স চুরি রোধে এনআইডি'র মাধ্যমে পাসপোর্ট ইস্যু করা হচ্ছে।”

মন্ত্রী অবৈধভাবে বিদেশ গিয়ে ঝামেলায় পড়া থেকে বিরত থাকতে সবার প্রতি আহ্বান জানান। 

মোমেন বলেন, “বৈধভাবে বিদেশ যাবার নতুন নতুন রুট চালু হচ্ছে। এরই মধ্যে রোমানিয়া, বুলগেরিয়া ও মাল্টায় যাওয়ার সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে। ট্রেনিং নিয়ে জাপানে যাওয়ারও সুযোগ এসেছে। অবৈধভাবে বিদেশে গিয়ে একটা লোকও যাতে না মারা যায়, সরকার সে ব্যবস্থা নিচ্ছে।”

‘মাতব্বরি করে কাউকে পরামর্শ দিতে হবে না'

দেশের গণতন্ত্র ও নির্বাচন ব্যবস্থা প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, ‘‘বাংলাদেশ হচ্ছে ডেমোক্রেসির কেন্দ্রবিন্দু। কাজেই, আমাদেরে অন্যরা মাতব্বরি করে পরামর্শ দেওয়ার দরকার নেই।''

এ বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘‘উনারা নিজেদের আয়নায় দেখুন। প্রধানমন্ত্রী অঙ্গীকার করেছেন, আগামী নির্বাচন স্বচ্ছ, সুন্দর, গ্রহণযোগ্য ও ইনক্লুসিভ হবে। আমার দল বিশ্বাস করে, আমার ভোট আমি দেব, যারে খুশি তারে দেব।''

আগামী নির্বাচন নিয়ে মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের মন্তব্য প্রসঙ্গে এক সাংবাদিক পররাষ্ট্রমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। 

জবাবে মন্ত্রী বলেন, ‘‘আওয়ামী লীগ সবসময় নির্বাচনের মাধ্যমে সরকার গঠন করে। মিলিটারি কিংবা অন্য কোনো কারসাজি করে এই দল ক্ষমতায় আসেনি। সুতরাং এ সম্পর্কে সন্দেহ-তাদের ইতিহাস সম্পর্কে জ্ঞানের অভাব এবং তারা হয়তো জিনিসগুলো ঠিকমতো অবজার্ভ করছে না। ফলে তারা অনেক সময় অবান্তর বক্তব্য দিয়ে থাকেন। তারা আগে ইতিহাস পড়ুক।''

তিনি বলেন, ‘‘আগামী নির্বাচনে আমরা তাদের পর্যবেক্ষন অ্যালাও করবো এবং উই হ্যাভ নাথিং টু হাইড।''

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘‘যুক্তরাষ্ট্রের ৮২ থেকে ৭৮% জনগণ মনে করে, সেখানকার ডেমোক্রেসি দুর্বল। ৭৭% রিপাবলিকান মনে করে, আমেরিকার গত প্রেসিডেন্সি ইলেকশন ওয়াজ এ ফ্রড ইলেকশন, স্টোলেন ইলেকশন'।'' 

আমাদের দেশেও এ ধরনের কিছু লোক মন্তব্য করে মোমেন বলেন, “যুক্তরাষ্ট্রে অ্যাভারেজ  ৫০ পার্সেন্ট এর নিচে লোক ভোট দেয়, আর আমাদের দেশে ৭২ থেকে ৮০-৯০% লোক ভোট দেয়। সর্বশেষ গাইবান্ধার উপ-নির্বাচন এর প্রমাণ। আমাদের দেশের ইলেকশন খুবই পার্টিসিপেটরি, স্বতঃস্ফূর্ত ও আনন্দময়। সেখানে মাত্র তিন মাস আগে ইলেকশন ক্যাম্পেইন শুরু হয়, আর আমাদের ইলেকশন ক্যাম্পেইন শুরু হয় এক বছর আগে।” 

উদ্বোধনী আরও বক্তব্য রাখেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা বিভাগের সচিব আব্দুল্লাহ আল মাসুদ, বহিরাগমন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তরে মহাপরিচালক মেজর জেনারেল নুরুল আনোয়ার , সিলেটের জেলা প্রশাসক মো. মজিবর রহমান।

About

Popular Links