Friday, May 31, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

গাজীপুরে ‘কেক-প্যাটিসের বিষক্রিয়ায়’ দুই বোনের মৃত্যু ঘটনায় ৪ জন গ্রেপ্তার

ময়নাতদন্তে প্রাথমিকভাবে নিশ্চিত হওয়া গেছে, খাদ্যে বিষক্রিয়ায় দুই বোনের মৃত্যু হয়েছে

আপডেট : ৩১ জানুয়ারি ২০২৩, ১১:৩৮ এএম

গাজীপুরে দোকান থেকে কেনা কেক ও প্যাটিস খেয়ে দুই শিশুর মৃত্যু এবং এক শিশু অসুস্থ হওয়ার ঘটনায় চারজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

সোমবার (৩০ জানুয়ারি) দুপুরে মৃত শিশুদের বাবা আশরাফুল ইসলাম বাদী হয়ে মামলা দায়ের করার পর ওইদিন রাতে পুলিশ তাদের গ্রেপ্তার করে। মঙ্গলবার তাদের আদালতে পাঠানো হবে। 

গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ (জিএমপি) সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জিয়াউল ইসলাম ঢাকা ট্রিবিউনকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। 

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন-গাজীপুর মেট্রো সদর থানার দক্ষিণ সালনা এলাকার সাইফুল ইসলাম (৪৮), ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা উপজেলার সোহেল রানা (৪৮), একই জেলার নবীনগর উপজেলার কোনাউর গ্রামের শহিদুল ইসলাম (২৫) ও মোহাম্মদ হোসেন (৪৫)। তাদের মধ্যে সাইফুল ইসলাম দোকান মালিক এবং অন্যরা বেকারির কর্মকর্তা ও কর্মচারী।

এদিকে, গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ফরেনসিক মেডিসিন বিভাগের প্রধান সহকারী অধ্যাপক শাফি মোহাইমেন বলেন, “ময়নাতদন্তে প্রাথমিকভাবে নিশ্চিত হওয়া গেছে, খাদ্যে বিষক্রিয়ায় দুই বোনের মৃত্যু হয়েছে।”

উল্লেখ্য, অভিযোগ উঠেছে, রবিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে গাজীপুরের মহানগরের সালনা (ইপসা গেট) এলাকায় কেক ও প্যাটিস খেয়ে অসুস্থ হয়ে মৃত্যু হয় দুই বোন আশামণি ও আলিফা আক্তারের। একই খাবার খেয়ে অসুস্থ হয়ে তাদের ছয় মাস বয়সী ফুফাতো ভাই শিশু সিয়াম হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।



এ বিষয়ে সদর থানার ওসি জিয়াউল ইসলাম জানান, আশরাফুল ইসলাম সপরিবারে সালনা (ইপসা গেট) এলাকার এরশাদ হোসেনের বাড়িতে ভাড়া রবিবার সকাল সাড়ে ১০টায় দুই মেয়ে খাওয়ার আবদার করলে বাবা আশরাফুল স্থানীয় সাইফুল ইসলামের দোকান থেকে কেক ও প্যাটিস কিনে তাদের খেতে দেন। খাওয়ার কিছুক্ষণ পরই বড় মেয়ে আশামণি বমি করতে থাকে। দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। বড় বোনের মৃত্যুর একঘণ্টা পর ছোট বোন আলিফা আক্তারও অসুস্থ হয়ে মারা যায়।

তিনি আরও জানান, কেক ও প্যাটিস খেয়ে মারা যাওয়া দুই বোনের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়েছে। পূর্বশত্রুতা, পারিবারিক কলহসহ কয়েকটি বিষয় নিয়ে পুলিশ তদন্ত করছে। পুলিশ খাদ্যে বিষক্রিয়ার উৎস খুঁজছে বলেও জানান ওসি।

About

Popular Links