Tuesday, May 28, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

পা দিয়ে লিখে এইচএসসি পাশ করলেন ফরিদপুরের জসিম

লেখাপড়ার পাশাপাশি পরিবারের সহযোগিতার জন্য কাজ করেন মেধাবী এ শিক্ষার্থী। নগরকান্দা বাজারে পা দিয়ে মোবাইল সার্ভিসিংয়ের কাজ করেন তিনি

আপডেট : ০৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ০৬:১৫ পিএম

আর দশটা শিশুর শিশুর মতো স্বাভাবিক জন্ম হয়নি জসিমের। পৃথিবীতে আসার সময় দুটি হাত নিয়ে আসেনি সে। শরীরে দুটি হাত ছাড়াই বেড়ে ওঠে জসিম। তবে শারীরিক প্রতিবন্ধকতা মেধাবী জসিমের জীবন বাধা হতে পারেনি। অদম্য ইচ্ছাশক্তি দিয়ে পা দিয়েই চালিয়ে গেছেন হাতের কাজ। করেছন লেখাপড়াও।

জসিম ফরিদপুরের নগরকান্দা উপজেলার কদমতলী গ্রামের উত্তরপাড়ার দরিদ্র কৃষক হানিফ মাতুব্বরের ছেলে।

পা দিয়ে লিখেই তিনি পার করেছেন শিক্ষাজীবনের কয়েকটি ধাপ। সর্বশেষ পার করেছেন উচ্চমাধ্যমিকের গন্ডি। সদ্য প্রকাশিত এইচএসসি পরীক্ষায়ও দেখিয়েছিন চমক। ৪.২৯ পেয়ে উত্তীর্ণ হয়েছেন জসিম মাতুব্বর।

ফরিদপুর সিটি কলেজের বিএম শাখা থেকে এইচএসসি পরীক্ষায় অংশ নেন জসিম। পা দিয়েই অতিদ্রুত লিখতে পারেন তিনি, সে লেখাও চমৎকার। 

লেখাপড়া শেষ করে শিক্ষক হয়ে সমাজ গড়তে ভূমিকা রাখতে চান জসিম।

তিনি ঢাকা ট্রিবিউনকে বলেন, “চার ভাই এক বোনের মধ্যে আমি সবার বড়। পড়ালেখা শেষ করে পরিবারের দায়িত্ব কাঁধে নিতে চাই। তাই স্বাবলম্বী হওয়ার সংগ্রামে নেমেছি। আমি সবার দোয়া ও সহযোগিতা চাই। আমার স্বপ্ন লেখাপড়া শেষ করে শিক্ষক হবো।”

লেখাপড়ার পাশাপাশি পরিবারের সহযোগিতার জন্য কাজ করেন মেধাবী এ শিক্ষার্থী। নগরকান্দা বাজারে পা দিয়ে মোবাইল সার্ভিসিংয়ের কাজ করেন তিনি।

জসিম মাতুব্বরের বাবা হানিফ মাতুব্বর বলেন, “জসিম জন্মের পর থেকে শারীরিক প্রতিবন্ধী। তার দুটি হাত নেই। স্বাভাবিক চলাফেরাও ঠিকমত করতে পারে না। তবে জসিম খুব মেধাবী। এসএসসিতেও সে ভাল ফলাফল করেছে। বাবা হিসেবে তার এ সাফল্যে আমি গর্বিত।”

ফরিদপুর সিটি কলেজের অধ্যক্ষ কাজি আফসার হোসেন বলেন, “জসিমের পায়ের লেখায় জাদু আছে। অনেক দ্রুত ও সুন্দর করে লেখে সে। আমরা সবসময়ই জসিমের পাশে ছিলাম। ভবিষ্যতেও থাকবো। জসিমের মেধা ও কৃতিত্ব আমার কলেজের নাম উজ্জ্বল করেছে।”

নগরকান্দা পৌরসভার মেয়র নিমাই চন্দ্র সরকার বলেন, “পা দিয়ে লিখে এইচএসসি পাশ করা সহজ বিষয় নয়। ছোট থেকেই তার পড়ালেখার প্রতি আগ্রহ। সামনে শিক্ষাজীবন আরও সহজ করতে প্রয়োজনে পাশে থাকার চেষ্টা করবো।”

নগরকান্দা উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মো. মঈনুল হক বলেন, “জসিম মাতুব্বর অত্যন্ত মেধাবী। জসিমের স্বপ্ন পূরণের সাধ্যমতো সাহায্য সহযোগিতা করা হবে। জসিমের পাশে সমাজের বৃত্তবানদেরও এগিয়ে আসতে হবে।”

About

Popular Links