Wednesday, May 29, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

সুন্দরবনে ঘূর্ণিঝড়ের কবলে পড়া ২৫ মৌয়ালকে পাঠানো হলো কারাগারে

মধুর পাশ নিয়ে সুন্দরবনে গিয়ে ঘূর্ণিঝড়ের কবলে পরে আটকা পড়েন এই ২৫ মৌয়াল

আপডেট : ০৮ এপ্রিল ২০২৩, ০১:৩১ পিএম

সুন্দরবনের প্রবেশ নিষিদ্ধ এলাকার খাল ও নদী থেকে ২৫ মৌয়ালকে উদ্ধারের পর আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠিয়েছে বন বিভাগ। মধুর পাশ নিয়ে সুন্দরবনে গিয়ে ঘূর্ণিঝড়ের কবলে পরে আটকা পড়েন এই ২৫ মৌয়াল। সেখান থেকে তাদের উদ্ধার করে বন আইনে মামলা দায়ের করে কারাগারে পাঠানো হয়।

বৃহস্পতিবার (৬ এপ্রিল) বিকেলে পশ্চিম সুন্দরবনের হলদেবুনিয়া এলাকা থেকে তাদের উদ্ধার করা হয়।

বন বিভাগের দাবি, সুন্দরবনের অভয়ারণ্য এলাকা থেকে আটক এসব বনজীবীর সুন্দরবনে প্রবেশের অনুমতি ছিল না।

আটক মৌয়ালরা হচ্ছেন- মো. আব্দুর রাজ্জাক, আফছার গাজী, শাহাদাৎ হোসেন, মো. হাকিম গাজী, সফিকুল ইসলাম, ইউনুস আলী সরদার, শহিদুল গাজী, কেরামত মিস্ত্রি, কামরুল ইসলাম, মো. ইদ্রিস আলী, মাকসুদুল আলম, মো. সাদ্দাম হোসেন, হযরত আলী শেখ, আবু হানিফা, হয়রত আলী, মো. আলাউদ্দিন মালী, কামরুল ইসলাম, আমজিয়াদ মালী, ইসমাইল হোসেন, মো. জুব্বার আলী, সামাদ আলী, সফেদ আলী গাজী, মনিরুল ইসলাম, শাহ আলম ও লিয়াকত হোসেন।

তারা ৯ নম্বর সোরা, চাঁদনীমুখা ও ডুমুরিয়াসহ শ্যামনগর উপজেলার গাবুরা ইউনিয়নে বাসিন্দা।

আটক জেলেরা জানান, ২ এপ্রিল বুড়িগোয়ালীনি স্টেশন থেকে মধু কাটার পাশ (অনুমতি) নিয়ে তারা সুন্দরবনে যান। সিগন্যাল চলার এক পর্যায়ে ঝড়ের কবলে পড়ে ৫ এপ্রিল তারা পথ হারিয়ে ভারতীয় অংশে ঢুকে পড়েন। এ সময় ভারতীয় সুন্দরবনের বনপ্রহরীসহ বিএসএফ সদস্যা তাদের ধাওয়া করলে মধু সংগ্রহের সরঞ্জাম ফেলে জীবন নিয়ে নদীতে ঝাঁপিয়ে পড়েন। ছোট বড় দুটি নদী সাঁতরে হলদেবুনিয়া অংশে পৌঁছানোর পর বাংলাদেশের বনরক্ষীরা তাদের উদ্ধার করে। এরপর বুড়িগোয়ালীনি স্টেশনে নেওয়ার পর তাদের আটক দেখানো হয়।

জেলেরা জানান, মহাজনের থেকে চড়াসুদে ঋণ নিয়ে মধু কাটতে সুন্দরবনে গিয়েছিলেল তারা। এখন সর্বস্ব হারিয়ে জেলের ঘানি টানার পর মহাজনের টাকা ফেরত দেওয়া নিয়ে দুশ্চিন্তায় পড়েছেন। মৌসুমের শুরুতে এমন বিপদে পড়ার কারণে সারা বছর ধরে সাংসারিক ব্যয় নির্বাহ নিয়েও তারা বিপদগ্রস্ত।

সাতক্ষীরা রেঞ্জের সহকারী বন সংরক্ষক ইকবাল হোসাইন চৌধুরী ঢাকা ট্রিবিউনকে জানান, অভয়ারণ্য এলাকায় গিয়ে মাছ শিকারের সময় হলদেবুনিয়া স্টেশন ইনচার্জ মাহাবুবুর রহমানের নেতৃত্বে ২৫ জনকে আটক করা হয়। অনুমতিপত্র না থাকার পরও তারা সুন্দরবনে প্রবেশ করার পাশাপাশি নিষিদ্ধ অভয়ারণ্যে যাওয়ার কারণে তাদের বন বিভাগের মামলায় কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

About

Popular Links