Thursday, June 13, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

শিক্ষককে কোপালো ছেলে, দাঁড়িয়ে দেখলেন বাবা

২০২২ সালে উচ্ছৃঙ্খল আচরণ ও ছাত্রীদের উত্ত্যক্ত করায় রাজু নামে ওই ছাত্রকে বহিষ্কার করে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ

আপডেট : ০৯ এপ্রিল ২০২৩, ০৬:৩৬ পিএম

মানিকগঞ্জ মো. মিজানুর রহমান নামে এক শিক্ষককে কুপিয়ে আহত করেছে তারই এক সাবেক ছাত্র। আহত মিজানুর সদর উপজেলার খাবাশপুর লাবণ্য প্রভা উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক।

রবিবার (৯ এপ্রিল) বেলা পৌনে ১২টার দিকে উপজেলার বালিরটেক বাজার এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর থেকে রাজু এবং তার পরিবার পলাতক।

২০২২ সালে উচ্ছৃঙ্খল আচরণ ও ছাত্রীদের উত্ত্যক্ত করার অভিযোগে রাজু আহমেদ (১৯) নামে ওই বখাটেকে বহিষ্কার করা হয়। তখন সে নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী ছিল।

ঢাকা ট্রিবিউনকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন মানিকগঞ্জ সদর থানার পরিদর্শক আব্দুর রউফ সরকার। তিনি জানান, গুরুতর অবস্থায় মিজানুর রহমানকে প্রথমে মানিকগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখান থেকে তাকে ঢাকার পঙ্গু হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

মানিকগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের চিকিৎসক আরিফুর রহমান বলেন, “বেলা সাড়ে ১২টার দিকে শিক্ষক মো. মিজানুর রহমানকে হাসপাতালের জরুরি বিভাগে আনা হয়। অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তার মাথার হাড় ফেটে গেছে।”

জানা গেছে, শিক্ষক মো. মিজানুর রহমানকে মানিকগঞ্জ থেকে প্রথমে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নেওয়া হয়। তারপর সেখান থেকে ঢাকার পঙ্গু হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। পরে সেখান থেকে ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব নিউরো সায়েন্সেস ও হাসপাতালে নেওয়া হয়। বর্তমানে তিনি সেখানেই চিকিৎসাধীন।

হামলার শিকার আহত প্রধান শিক্ষক মো. মিজানুর রহমান ঢাকা ট্রিবিউনকে বলেন, “২০২২ সালে রাজু আহমেদকে উচ্ছৃঙ্খল আচরণ ও মেয়েদের উত্ত্যক্ত করার অভিযোগে স্কুল থেকে বহিষ্কার করা হয়। এর জের ধরেই আমার ওপর হামলা করেছে। এ সময় হামলাকারীর বাবা স্থানীয় খাবাশপুর কলেজের পিয়ন শহিদুল্লাহও উপস্থিত ছিলেন।”

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুর রউফ সরকার বলেন, “এ ঘটনায় এখনো থানায় কেউ লিখিত অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।”

About

Popular Links