Thursday, May 30, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

কুমিল্লায় আওয়ামী লীগের নির্বাচনী অফিসে ককটেল বিস্ফোরণ

হামলার সময় ঐ কার্যালয়ে একটি নির্বাচনী সভা চলছিল

আপডেট : ২৩ ডিসেম্বর ২০১৮, ১২:৪৩ পিএম

চান্দিনা উপজেলার মাধাইয়া ইউনিয়নের নাওতলায় ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক সংলগ্ন আওয়ামীলীগের নির্বাচনী অফিসে ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে দুর্বৃত্তরা। শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় ওই ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। ঘটনাস্থল থেকে ৯টি তাজা ককটেল উদ্ধার করে চান্দিনা থানা পুলিশ।

উল্লেখ্য, হামলার সময় ঐ কার্যালয়ে একটি নির্বাচনী সভা চলছিল। বিস্ফোরণে সভায় অংশগ্রহণকারী পাঁচজন নেতাকর্মী আহত হয়। আহতদের চান্দিনার বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

এছাড়াও ওই ঘটনার পর মাধাইয়া-রহিমানগর সড়কে মাধাইয়া কাঠ পট্টি এলাকায় একটি নৌকা প্রতীকে আগুন দেয় দুর্বৃত্তরা। পৃথক দুটি ঘটনা জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ও ২০ দলীয় জোটের ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী ড. রেদোয়ান আহমেদ এর পরিকল্পনায় করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ। তাৎক্ষণিক এক সংবাদ সম্মেলনে ওই অভিযোগ করেন তারা।

প্রত্যক্ষদর্শী উপজেলা তাঁতীলীগ আহ্বায়ক মো. আবদুল হালিম মেম্বার জানান, “আমাদের অফিসে নির্বাচন উপলক্ষে পূর্ব নির্ধারিত একটি দলীয় সভা চলছিল। ওই সভায় বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী সাবেক ডেপুটি স্পিকার অধ্যাপক মো. আলী আশরাফ এর ছেলে এফবিসিসিআই সহ-সভাপতি ও জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মুনতাকিম আশরাফ টিটু সহ উপজেলার শীর্ষ নেতৃবৃন্দের আসার কথা ছিল। সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় ৩টি মাইক্রোবাস যোগে কতিপয় লোকজন এসে ধানের শীষের স্লোগান দিয়ে কয়েকটি ককটেল ছুড়ে মারে। এসময় বিকট শব্দে নেতাকর্মীদের মাঝে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। আমাদের ৫জন দলীয় কর্মী আহত হয়। পরে আমরা তাদের ধাওয়া করলে একটি ব্যাগ ভর্তি ককটেল ছুড়ে মেরে পালিয়ে যায়। ঘটনাক্রমে ব্যাগে থাকা ককটেলগুলো বিস্ফোরিত হয়নি”।

অপরদিকে ঘটনার পর নাওতলার নির্বাচনী অফিসে তাৎক্ষণিক সংবাদ সম্মেলন করে আওয়ামী লীগ। সংবাদ সম্মেলনে ওই ককটেল বিস্ফোরণের তীব্র নিন্দা জানিয়ে সুষ্ঠু তদন্ত দাবি করেন তারা।

এ ব্যাপারে চান্দিনা থানার ওসি মোহাম্মদ আবুল ফয়সল জানান, “খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে যাই। বিস্ফোরিত দুটি ককটেলের আলামত এবং অবিস্ফোরিত ৯টি ককটেল উদ্ধার করি। ঘটনার তদন্ত চলছে। আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে”।

About

Popular Links