Thursday, May 30, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

জামালপুর মাদারগঞ্জে বিএনপি সভাপতি গ্রেফতার

নাশকতার পরিকল্পনার অভিযোগে মাদারগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সভাপতি ফায়জুল ইসলাম লাঞ্জুকে গ্রেফতার করে পুলিশ

আপডেট : ২৪ ডিসেম্বর ২০১৮, ১০:৩৬ এএম

নাশকতার পরিকল্পনার অভিযোগে মাদারগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সভাপতি ফায়জুল ইসলাম লাঞ্জুকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শনিবার গভীর রাতে উপজেলার গুনারীতলা নিজবাড়ি থেকে তাকে গ্রেফতারের পর তার বিরুদ্ধে নাশকতার পরিকল্পনা ও পুলিশ প্রহারের মামলা হয়েছে। রবিবার তার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা নাশকতা ও পুলিশ প্রহারের মামলা দিয়ে আদালতে প্রেরণ করে। 

মাদারগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ রফিকুল ইসলাম জানান, বিএনপির নেতা ফায়জুল ইসলাম লাঞ্জু তার নিজ বাড়িতে দলীয় নেতা-কর্মীদের নিয়ে নাশকতার পরিকল্পনা করছিলেন। এমন খবরের ভিত্তিতে ফোর্স নিয়ে তিনি ঘটনাস্থলে পৌছলে তারা পুলিশের উপর হামলা চালালে কয়েকজন কনস্টেবল আহত হয়। এসময় পুলিশ আত্মরক্ষার জন্য সটগানের ৪ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে এবং ফায়জুল ইসলাম লাঞ্জুকে গ্রেফতার করে। এই ঘটনায় মাদারগঞ্জ থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) আসাদ বাদি হয়ে ফায়জুল ইসলাম লাঞ্জুসহ ১৬ জনের নামে এবং ২০ থেকে ২৫ জনকে অজ্ঞাতনামা আসামি করে নাশকতাও পুলিশ প্রহারের একটি মামলা দায়ের করেন। পরে ৫ দিনের রিমান্ড চেয়ে লাঞ্জুকে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। আদালত তার জামিন বাতিল করে জেল হাজতে প্রেরণের নির্দেশ দেন।
 

এদিকে বিনা কারণে লাঞ্জুকে গ্রেফতার করে মিথ্যা মামলা দিয়ে আদালতে সোপর্দ করার নিন্দা জানিয়েছেন বিএনপির প্রার্থী মোস্তাফিজুর রহমান বাবুল।  বাবুল বলেন, `নির্বাচনী প্রচার শেষে রাতে ফায়জুল ইসলাম লাঞ্জু নিজ বাড়িতে ঘুমিয়ে পড়েন। রাত আড়াইটার দিকে মাদারগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রফিকুল ইসলামের নেতৃত্বে একদল পুলিশ তার  বাড়ি ঘেরাও করে তাকে ঘুম থেকে ডেকে তুলে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে যায়। এতে তার নেতা-কর্মী ও সমর্থকরা আতঙ্কগ্রস্ত হয়ে পড়ছে।' 

তিনি অভিযোগ করে বলেন, `পুলিশ পক্ষপাত দুষ্ট হয়ে বিএনপির নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে একের পর এক মিথ্যা মামলা ও নেতা-কর্মীদেরগ্রেফতারসহ নানা ভাবে হয়রানী, এমনকি ভোটারদেরকেও আতঙ্কিত করে তুলছে। এতে নির্বাচনের সুষ্ঠু পরিবেশ বিঘ্নিত হওয়ার পাশাপাশি, নিরপেক্ষ নির্বাচন এবং সুষ্ঠু ভোট গ্রহণ বাধাগ্রস্ত হবে।'
 তিনি নির্বাচন কমিশনসহ স্থানীয় জেলা ও পুলিশ প্রশাসনের কাছে তার নেতা-কর্মী, সমর্থক ও ভোটারদের নিরাপত্তা দাবি জানান।
 
 
 
 
 


About

Popular Links