Saturday, May 25, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

সাবেক এমপি গোলাম মাওলা রনির অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ

উপজেলা প্রশাসন জানায়, উপজেলার উলানিয়া বন্দর বাজারে ব্যবসার জন্য ‘চান্দিনা ভিটা’ হিসেবে এক বছর মেয়াদে কিছু সরকারি জমি বন্দোবস্ত নেন সাবেক সংসদ সদস্য গোলাম মাওলা রনি

আপডেট : ১৯ জুলাই ২০২২, ০৭:১৯ পিএম

পটুয়াখালী-৩ (দশমিনা ও গলাচিপা) আসনের সাবেক সংসদ সদস্য গোলাম মাওলা রনির অবৈধ ভবন উচ্ছেদ করছে প্রশাসন। পটুয়াখালীর গলাচিপা উপজেলার উলানিয়া বন্দর বাজারে “চান্দিনা ভিটা” বন্দোবস্ত নিয়ে সরকারি জমিতে অবৈধ স্থাপনা নির্মাণ করায় তার ভবনসহ ওই বাজারের অন্তত ১৫টি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হচ্ছে।

মঙ্গলবার (১৯ জুলাই) সকালে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের জ্যেষ্ঠ সহকারী সচিব ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আবদুল কাইয়ুমের নেতৃত্বে এ উচ্ছেদ অভিযান শুরু হয়। এ সময় গলাচিপা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশিষ কুমার ও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শওকত আনোয়ার উপস্থিত ছিলেন।

উপজেলা প্রশাসন জানায়, উপজেলার উলানিয়া বন্দর বাজারে ব্যবসার জন্য চান্দিনা ভিটা (হাট বা বাজারে অবস্থিত অকৃষি সরকারি জমি যা দোকানের জন্য বরাদ্দ দেওয়া হয়) হিসেবে এক বছর মেয়াদে কিছু সরকারি জমি বন্দোবস্ত নেন সাবেক সংসদ সদস্য গোলাম মাওলা রনি। চান্দিনা ভিটায় পাকা স্থাপনা নির্মাণের বিধান না থাকলেও তিনি সেখানে অবৈধভাবে দ্বিতল ভবন নির্মাণ করেন। 

তারা আরও জানায়, ওই অবৈধ স্থাপনা সরিয়ে ফেলতে ২০১৩, ২০১৮ ও সর্বশেষ চলতি বছর নোটিশ দেয় জেলা প্রশাসন। কিন্তু একাধিকবার নোটিশ দিয়েও সরকারি জমি থেকে অবৈধ স্থাপনা সরিয়ে নেননি তিনি। ফলে মঙ্গলবার সেখানে উচ্ছেদ অভিযান চালায় প্রশাসন।

গলাচিপা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশিষ কুমার দৈনিক পত্রিকা প্রথম আলোকে বলেন, উলানিয়া বন্দর বাজারে সাবেক সংসদ সদস্যসহ অনেকেই অবৈধভাবে সরকারি জমিতে পাকা স্থাপনা নির্মাণ করেছেন। বাজারের ৫ শতাংশ সরকারি জমি সাবেক সংসদ সদস্যের দখলে। শুধু তিনিই নন, ওই বাজারে অন্তত ১৫ জন অবৈধ দখলদার আছেন। তাদের অবৈধ দখলে অন্তত ৩০ শতাংশ জমি। সরকারি জমি উদ্ধারে আজ থেকে সেখানে উচ্ছেদ অভিযান শুরু হয়েছে।

তবে ওই ৫ শতাংশ জমি পৈতৃক সম্পত্তি বলে দাবি করেছেন সাবেক সংসদ সদস্য গোলাম মাওলা রনি। তিনি বলেন, “ওই ৫ শতাংশ জমি আমার পৈতৃক সম্পত্তি। ১৯৬০ সাল থেকে সেখানে আমার পরিবার বসবাস করে আসছে। এ বিষয়ে আমি উচ্চ আদালতে একটি রিট দাখিল করেছি। এরপরও প্রশাসন কেন বসতবাড়ি উচ্ছেদ করছে, তা জানি না।”

About

Popular Links