Wednesday, May 29, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

পদ্মা সেতু দেখে কুয়াকাটার সৌন্দর্য উপভোগের পথেই অন্তিম যাত্রা

রফিজ উদ্দিন জানান, পদ্মা সেতু দেখা শেষে কুয়াকাটার উদ্দেশে মাইক্রোবাসযোগে যাচ্ছিলেন ৯ প্রতিবেশী। বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টার দিকে বরিশালের উজিরপুরে নিয়ন্ত্রণ হারায় তাদের বহনকারী মাইক্রোবাসটি

আপডেট : ২২ জুলাই ২০২২, ১১:৫২ এএম

পদ্মা সেতু দেখতে বৃহস্পতিবার (২১ জুলাই) ভোরে বাড়ি থেকে বের হয়েছিলেন গাজীপুর মহানগরের ১১ নম্বর কোনাবাড়ী জয়েরটেক এলাকার ৯ জন। ওইদিন দুপুরের দিকে বরিশালের উজিরপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় ৬ জনের মৃত্যু হয়।

নিহত ব্যক্তিরা হলেন, রুহুল আমিন (৪২), শহিদুল ইসলাম (৪৩), নজরুল ইসলাম ঠান্ডু (৫৪), আব্দুর রহমান (৪৫), হারুন অর রশিদ বাদশা (৪০) ও হাসান সরকার (৩৬)।

শুক্রবারও নিহত ব্যক্তিদের স্বজনদের আহাজারিতে কোনাবাড়ী জয়েরটেক এলাকা ভারী হয়ে আছে। কান্নার রোল থামছেই না।

জয়েরটেক এলাকার ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী রফিজ উদ্দিন স্বপন ঢাকা ট্রিবিউনকে বলেন, “দুদিন আগে এলাকার ৯ জন পদ্মা সেতু দেখার পরিকল্পনা করে। পরিকল্পনায় কুয়াকাটা ভ্রমণের কর্মসূচিও ছিল। তাদের মধ্যে দুজন দলিল লেখক ও সাতজন ছিলেন ব্যবসায়ী। দুপুরে গণমাধ্যমের সুবাদে দুর্ঘটনাটির সংবাদ শোনা যায়।”

তিনি জানান, তাদের পদ্মা সেতু দেখা শেষ হয়েছিল। পদ্মা সেতু পার হয়ে কুয়াকাটা সমুদ্র সৈকত দেখার উদ্দেশে মাইক্রোবাসযোগে যাচ্ছিলেন ৯ প্রতিবেশী। এর আগেই বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টার দিকে বরিশালের উজিরপুরে নিয়ন্ত্রণ হারায় তাদের বহনকারী মাইক্রোবাসটি। পরে বিপরীত দিক থেকে আসা ঢাকাগামী একটি বাসের সঙ্গে সংঘর্ষ বাধে এতে মাইক্রোবাসের চার আরোহী ঘটনাস্থলেই মারা যান। পরে আহতদের মধ্যে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আরও দুজনের মৃত্যু হয়।

পদ্মা সেতু দেখার পরিকল্পনা করেন কোনাবাড়ী জয়েরটেক এলাকার ৯ জন/ ঢাকা ট্রিবিউন

আহতদের মধ্যে মোকসেদ আলম (৫৪) ও মাইক্রোবাসচালক আসর উদ্দিন আশঙ্কাজনক অবস্থায় রয়েছেন। 

উজিরপুর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) রবিউল ইসলামঢাকা ট্রিবিউনকে বলেন, “হতাহতরা ভ্রমণের উদ্দেশ্যে কুয়াকাটা যাচ্ছিলেন। উজিরপুরের বরিশাল রোডে মাইক্রোবাসটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলে। পরে বিপরীত দিক থেকে আসা মোল্লা পরিবহন নামে একটি বাসের সঙ্গে ধাক্কা লাগলে মাইক্রোবাসের সবাই আহত হন। আহতদের উদ্ধার করে শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালসহ অন্যান্য ক্লিনিকে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক ৪ জনকে মৃত ঘোষণা করেন। পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আরও দুজন মারা যান। মাইক্রোবাসের চালকসহ তিনজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।”

About

Popular Links