Monday, May 20, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

বড় জয়ের পথে নৌকা

রিটার্নিং অফিসারদের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী এখন পর্যন্ত অধিকাংশ আসনেই বিপুল ভোটে এগিয়ে রয়েছেন আওয়ামী লীগ সমর্থিত জোটের প্রার্থীরা।

আপডেট : ৩০ ডিসেম্বর ২০১৮, ০৯:৩৭ পিএম

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বড় জয়ের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের নেতৃত্বধীন জোট। নির্বাচন কমিশন (ইসি) থেকে ঘোষিত বেসরকারি ফলে এখন পর্যন্ত বেশিরভাগ আসনেই জয়ী হয়েছে আওয়ামী লীগ। 

আজ রোববার ভোটগ্রহণ শেষে শুরু হয় গণনা। গণনা চলাকালীন ইসি সচিব হেলালউদ্দীন আহমেদ বেসরকারিভাবে এ ফল ঘোষণা শুরু করেন। 

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ইসি সচিবের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, গোপালগঞ্জ-৩ আসনে জয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

পাশাপাশি, রংপুর-৩ আসনে জাতীয় পার্টির (জাপা) চেয়ারম্যান হুসাইন মুহাম্মদ এরশাদ, রংপুর-৬ আসনে আওয়ামী লীগের শিরিন শারমিন, লক্ষ্মীপুর-২ আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী শহীদ ইসলাম, খাগড়াছড়িতে আওয়ামী লীগের কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা, কুমিল্লা-৬ আসনে আওয়ামী লীগের এ কে এম বাহাউদ্দীন, গোপালগঞ্জ-২ আসনে শেখ ফজলুল করিম সেলিম, গাজীপুর-৪ আসনে আওয়ামী লীগের সিমিন হোসেন রিমি, লক্ষ্মীপুর-৩ আসনে আওয়ামী লীগের শাহজাহান কামাল, গোপালগঞ্জ-১ আসনে আওয়ামী লীগের ফারুক খান, নরসিংদী-৩ আসনে জাহিদুল হক ভুঁইয়া, নওগাঁ-৫ আসনে আওয়ামী লীগের নিজামউদ্দীন জলিল, পিরোজপুর-৩ আসনে জাতীয় পার্টির মো. রুস্তম আলী ফরাজী, ময়মনসিংহ-৮ জাতীয় পার্টির ফখরুল ইমাম, বগুড়া-২ জাতীয় পার্টির শরিফুল ইসলাম জিন্নাহ, নীলফামারী-৪ জাতীয় পার্টির আহসান আদিলুর রহমান, লক্ষীপুর-১ আওয়ামী লীগের আনোয়ার হোসেন খান, নীলফমারী-২ আসনে আওয়ামী লীগের আসাদুজ্জামান নূর, নরসিংদী-২ আওয়ামী লীগের আনোয়ারুল আশরাফ খান, দিনাজপুর-৩ আসনে আওয়ামী লীগের একবালুর রহিম, ও বরগুনা-২ আসনে আওয়ামী লীগের শওকত হাচানুর রহমান (রিমন) জয়ী হয়েছেন।    

এ ছাড়া বিভিন্ন আসনের রিটার্নিং অফিসারদের দেওয়া ফল অনুযায়ী- মানিকগঞ্জ-১ এএম নাঈমুর রহমান দুর্জয়, মানিকগঞ্জ-২ মমতাজ বেগম, মানিকগঞ্জ-৩ জাহিদ মালেক, চাঁদপুর-১ ড. মহীউদ্দিন খান আলমগীর, চাঁদপুর-২ অ্যাডভোকেট নুরুল আমিন রুহুল, চাঁদপুর-৩ ডা. দীপু মনি, চাঁদপুর-৪ মো. শফিকুর রহমান, চাঁদপুর-৫ মেজর (অব.) রফিকুল ইসলাম, বরিশাল-১ আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ, বরিশাল-২ শাহে আলম, বরিশাল-৩ গোলাম কিবরিয়া টিপু, বরিশাল-৪ পঙ্কজ দেবনাথ, বরিশাল-৫ জাহিদ ফারুক শামীম, বরিশাল-৬ নাসরিন জাহান রত্না, নেত্রকোণা-১ মানু মজুমদার, নেত্রকোণা-২ আশরাফ আলী খান খসরু, নেত্রকোণা-৩ অসীম কুমার উকিল, নেত্রকোণা-৪ রেবেকা মমিন, নেত্রকোণা-৫ ওয়ারেছাত হোসেন বেলাল, মুন্সীগঞ্জ-৩ মৃণাল কান্তি দাস, কুষ্টিয়া-১ আসনে অ্যাডভোকেট আকম সরওয়ার জাহান বাদশা, কুষ্টিয়া-২ জাসদের হাসানুল হক ইনু, কুষ্টিয়া-৩ মাহবুবউল আলম হানিফ, কুষ্টিয়া-৪ ব্যারিস্টার সেলিম আলতাফ জর্জ, হবিগঞ্জ-১ আসনে শাহনেওয়াজ মিলাদ গাজী, হবিগঞ্জ-২ আসনে অ্যাডভোকেট আবদুল মজিদ খান, হবিগঞ্জ-৩ আসনে অ্যাডভোকেট আবু জাহিদ, হবিগঞ্জ-৪ অ্যাডভোকেট মাহবুব আলী, খুলনা-১ আসনে পঞ্চানন বিশ্বাস, খুলনা-২ আসনে শেখ সালাহউদ্দিন জুয়েল, খুলনা-৩ আসনে বেগম মুন্নুজান সুফিয়ান, খুলনা-৪ আসনে আবদুস সালাম মুর্শেদী, খুলনা-৫ আসনে নারায়ণ চন্দ্র চন্দ, খুলনা-৬ আসনে আকতারুজ্জামান বাবু, বাগেরহাট-১ আসনে শেখ হেলাল উদ্দিন, বাগেরহাট-২ শেখ সারহান নাসের তন্ময়, বাগেরহাট-৩ আসনে হাবিবুন নাহার তালুকদার, বাগেরহাট-৪ ডা. মোজাম্মেল হোসেন, গাইবান্ধা-১ শামীম হায়দার পাটোয়ারী, গাইবান্ধা-২ মাহাবুব আরা বেগম গিনি, গাইবান্ধা-৪ মনোয়ার হোসেন চৌধুরী, গাইবান্ধা-৫ মো. ফজলে রাব্বি মিয়া, পঞ্চগড়-১ আসনে মজাহারুল হক প্রধান, পঞ্চগড়-২ অ্যাডভোকেট নুরুল ইসলাম সুজন, কুমিল্লা-২ আসনে সেলিমা আহমাদ মেরী, কুমিল্লা-৪ আসনে রাজি মোহাম্মদ ফখরুল, কুমিল্লা-৫ আসনে আবদুল মতিন খসরু, কুমিল্লা-৭ আসনে আলী আশরাফ, কুমিল্লা-৮ আসনে নাছিমুল আলম নজরুল, কুমিল্লা-১০ আসনে আ হ ম মুস্তফা কামাল, ঠাকুরগাঁও-১ আসনে রমেশচন্দ্র সেন, ঠাকুরগাঁও-২ আসনে দবিরুল ইসলাম, ফেনী-১ আসনে জাসদ সাধারণ সম্পাদক শিরীন আক্তার, ফেনী-২ নিজাম উদ্দিন হাজারী এবং ফেনী-৩ মাসুদ উদ্দিন চৌধুরী, নরসিংদী-১ আসনে মো. নজরুল ইসলাম, নরসিংদী-২ আসনে আনোয়ারুল আশরাফ দিলীপ, নরসিংদী-৪ আসনে নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন, নরসিংদী-৫ আসনে রাজিউদ্দিন আহমেদ রাজু, যশোর-১ শেখ আফিল উদ্দিন, যশোর-২ আসনে নাসির উদ্দিন, যশোর-৩ আসনে কাজী নাবিল আহমেদ, যশোর-৪ রণজিত কুমার রায়, যশোর-৫ স্বপন ভট্টাচার্য্য, যশোর-৬ ইসমাত আরা সাদেক, পাবনা-১ আসনে শামসুল হক টুকু, পাবনা-২ আসনে আহমেদ ফিরোজ কবির, পাবনা-৩ আসনে মকবুল হোসেন, পাবনা-৪ আসনে শামসুর রহমান শহিদ, পাবনা-৫ আসনে গোলাম ফারুক প্রিন্স, কুড়িগ্রাম-১ আসনে আসলাম হোসেন সওদাগর, কুড়িগ্রাম-২ আসনে পনির উদ্দিন আহমেদ, কুড়িগ্রাম-৩ আসনে এমএ মতিন, কুড়িগ্রাম-৪ মো. জাকির হোসেন, ঝিনাইদহ-১ আসনে আবদুল হাই, ঝিনাইদহ-২ তাহজির আলম সিদ্দিকী, ঝিনাইদহ-৩ আসনে শফিকুল আলম খান, ঝিনাইদহ-৪ আসনে আনোয়ারুল আজিম আনার, জয়পুরহাট-১ আসনে সামছুল আলম দুদু, জয়পুরহাট-২ আসনে আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন, টাঙ্গাইল-১ ড. আবদুর রাজ্জাক, টাঙ্গাইল-২ তানভীর হাসান ছোটমনি, টাঙ্গাইল-৩ আতাউর রহমান খান, টাঙ্গাইল-৪ হাসান ইমাম খান সোহেল হাজারী, টাঙ্গাইল-৫ ছানোয়ার হোসেন, টাঙ্গাইল-৬ আহসানুল ইসলাম টিটু, টাঙ্গাইল-৭ একাব্বর হোসেন, টাঙ্গাইল-৮ জোয়াহেরুল ইসলাম জোয়াহের, সিলেট-১ ড. এ কে আব্দুল মোমেন, বগুড়া-১ আসনে আব্দুল মান্নান, বগুড়া-৩ নুরুল ইসলাম তালুকদার, বগুড়া-৫ হাবিবর রহমান এবং নড়াইল-২ আসনে মাশরাফি বিন মুর্তজা আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোট থেকে জয় পেয়েছেন।

এদিকে, ধানের শীষ প্রতীকে বগুড়া-৪ আসনে মোশারফ হোসেন, ঠাকুরগাঁও-৩ আসনে জাহিদুর রহমান জাহিদ, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ আসনে মো. হারুন অর রশিদ ও বগুড়া-৬ আসন থেকে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর জয় পেয়েছেন।

এছাড়া, রিটার্নিং কর্মকর্তাদের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী বগুড়া-৭ আসনে জয় পেয়েছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী রেজাউল করিম বাবলু।

 এখন পর্যন্ত পাওয়া তথ্য অনুযায়ী অধিকাংশ আসনেই বিপুল ভোটে এগিয়ে রয়েছেন আওয়ামী লীগ সমর্থিত জোটের প্রার্থীরা। 

তবে ভোটে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ এনে নির্বাচন প্রত্যাখ্যান করেছে ঐক্যফ্রন্ট। এ ছাড়া নির্বাচনে কারচুপির অভিযোগে ভোট বর্জন করেন নির্বাচনে অংশ নেওয়া জামায়াতের ২৬ নেতা। আর সহিংসতা ও ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) কাজ না করায় ভোট স্থগিত করা হয় ২৯ আসনে।

About

Popular Links