Saturday, May 25, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

ফারদিনের মোবাইল ফোনের সর্বশেষ লোকেশন ছিল নারায়ণগঞ্জ

গত ৪ নভেম্বর রাত ১১টার দিকে চনপাড়ায় ফারদিনের মোবাইল ফোনের সিগনাল পাওয়া যায়, এরপর থেকে মোবাইল ফোনটি বন্ধ পাওয়া যাচ্ছিল

আপডেট : ১১ নভেম্বর ২০২২, ০৩:৫৬ পিএম

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ফারদিন নূর পরশের মোবাইল ফোনের সর্বশেষ অবস্থান সম্পর্কে নিশ্চিত হয়েছে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

পরিচয় গোপন রাখার শর্তে তদন্ত সংশ্লিষ্ট এক কর্মকর্তার বরাত দিয়ে দ্যা ডেইলি স্টারের প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

তদন্ত সংশ্লিষ্ট ওই কর্মকর্তা বলেন, নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার চনপাড়া পুনর্বাসন কেন্দ্র (চনপাড়া বস্তি) এলাকায় সর্বশেষ তার (ফারদিন) মোবাইল ফোনের সিগনাল পাওয়া গেছে।

তিনি আরও জানান, গত ৪ নভেম্বর রাত ১১টার দিকে চনপাড়ায় ফারদিনের মোবাইল ফোনের সিগনাল পাওয়া যায়। এরপর থেকে মোবাইল ফোনটি বন্ধ পাওয়া যাচ্ছিল।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক জেলা পুলিশের এক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা বলেন, আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর একাধিক ইউনিট ফারদিন হত্যাকাণ্ড নিয়ে কাজ করছে। ফারদিনের বন্ধু বুশরার ভাষ্য মতে, রাত ১০টায় ফারদিন তাকে রামপুরা এলাকায় নামিয়ে দেয়। এরপর ফারদিনের মোবাইল ফোনের লোকেশন ছিল কেরানীগঞ্জ, ডেমরা ও চনপাড়ায়। ফারদিন নিজেই চনপাড়ায় এসেছিল নাকি তার মোবাইল ফোনটি কেউ নিয়ে এসেছিল সে বিষয়ে এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি। ফারদিনকে এখানেই খুন করা হয়েছে কি না সে বিষয়েও তদন্ত চলছে।

নিখোঁজ হওয়ার তিন দিন পর ৭ নভেম্বর সিদ্ধিরগঞ্জে একটি কটন মিলের পেছনে শীতলক্ষ্যা নদী থেকে ফারদিনের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। ৪ নভেম্বর বাড়ি থেকে বের হয়ে আর ফেরেননি ফারদিন। ফোনেও তার সঙ্গে যোগাযোগ করা যাচ্ছিল না। পরে এ ব্যাপারে ফারদিনের বাবা রামপুরা থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন।

ফারদিন বুয়েটের পুরকৌশল বিভাগের তৃতীয় বর্ষের ছাত্র এবং নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার কুতুবপুর এলাকার বাসিন্দা।

মঙ্গলবার ময়নাতদন্ত করা নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের চিকিৎসক শেখ ফরহাদ জানান, ফারদিনের মাথায় ও শরীরে একাধিক আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

মঙ্গলবার ফারদিনের বাবা জানান, তার ছেলেকে হত্যা করা হয়েছে এবং তিনি বিচার দাবি করেছেন।

মঙ্গলবার বুয়েট কেন্দ্রীয় মসজিদে ফারদিনের নামাজে জানাজা শেষে তিনি বলেন, “আমি আমার ছেলেকে ফিরে পাবো না, কিন্তু আমি বিচার চাই। তার মোবাইল ফোনের লোকেশন ট্র্যাক করে অপরাধী ও খুনিদের শনাক্ত করা কঠিন কিছু নয়।”

এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার ডিবির প্রধান ও অতিরিক্ত কমিশনার (ডিবি) হারুন অর রশীদ জানান, অপরাধীদের ধরতে নগরীর বিভিন্ন জায়গার সিসিটিভি ফুটেজ যাচাই বাছাই চলছে।

তিনি বলেন, ঘটনাটি কিভাবে ঘটেছে তা এখনই বলা যাচ্ছে না। সিসিটিভি ফুটেজ যাচাই বাছাই করা হচ্ছে, ফারদিনের বান্ধবীকে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। এছাড়াও হত্যাকাণ্ডের পেছনে পারিবারিক, সামাজিক বা অন্য কোনো ঝামেলা ছিল কি-না তা খোঁজ নেওয়া হচ্ছে।

গোয়েন্দা প্রধান বলেন, আয়াতুল্লাহ বুশরা নামে এক শিক্ষার্থীকে আসামি করা হয়েছে। তিনি ফারদিনের বান্ধবী। তাকে এর আগেও আমরা জিজ্ঞাসাবাদ করেছি। মামলা হওয়ার পর তাকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে।

এর আগে রামপুরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিকুল ইসলাম জানান, বৃহস্পতিবার পুলিশ বুশরার বাড়িতে অভিযান চালিয়ে গ্রেপ্তার করে। একই দিন ভোরে ফারদিনের বাবা কাজী নুর উদ্দিন রানা রামপুরা থানায় এসে ছেলের মৃত্যুর ঘটনায় বুশরাসহ অজ্ঞাত কয়েকজনের বিরুদ্ধে মামলা করেন। বুশরা ইস্ট ওয়েস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের তৃতীয় বর্ষের ছাত্রী।

About

Popular Links