Thursday, May 23, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

২৭ বছরের চেষ্টায় ধানের শীষের জয় আনলেন জাহিদুর রহমান

এই আসনের একটি বাড়িও খুঁজে পাওয়া যাবে না, যে বাড়িতে বিএনপি নেতা তিন-চারবার যাননি

আপডেট : ০৪ জানুয়ারি ২০১৯, ১১:৪১ পিএম

২৭ বছর ধরে নিরবচ্ছিন্ন চেষ্টার পর এবারের নির্বাচনে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছেন বিএনপির প্রার্থী জাহিদুর রহমান। জাহিদুর রহমান একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ঠাকুরগাঁও-৩ আসনে (পীরগঞ্জ–রানীশংকৈল) তিন সাবেক সাংসদকে হারিয়ে নির্বাচিত হয়েছেন।

উল্লেখ্য, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে রংপুর বিভাগের মধ্যে একমাত্র এবং সারাদেশ থেকে বিএনপির নির্বাচিত ৫ প্রার্থীর একজন তিনি। 

জানা যায়, ১৯৯১ সাল থেকে শুধু ১৯৯৬ এর নির্বাচন ব্যতীত তিনি টানা নির্বাচন করছেন। দীর্ঘ ২৭ বছর বছর ধরে তিনি মানুষের দ্বারে দ্বারে গিয়ে নানা অপ্রীতিকর পরিস্থিতি মোকাবেলা করেছেন, বারবার হেরেছেন , জামানতও খুইয়েছেন দু’একবার কিন্তু, হতোদ্যম হয়ে হাল ছেড়ে দেননি।       

এই আসনের ভোটাররা জানান, একটি বাড়িও খুঁজে পাওয়া যাবে না, যে বাড়িতে বিএনপির জাহিদুর তিন-চারবার যাননি। এ জন্য বিএনপি-জামায়াত ছাড়াও অনেক ভোটার তাকে সহানুভূতির ভোট দিয়েছেন।

পীরগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক জয়নাল আবেদীন বাবুল বলেন, “মহাজোট ঐক্যবদ্ধ প্রার্থী দিতে ব্যর্থ তো হয়েছেই, এমনকি পরষ্পরের  সাথে বৈরিতায়ও সক্রিয় ছিলেন তারা, এটার সুযোগ নিয়েই   বিএনপি প্রার্থী এখানে বিজয়ী হয়েছেন”। এছাড়া তার দীর্ঘদিনের অধ্যাবসায়ও এবারের নির্বাচনে তার জয়ের একটা কারণ বলে উল্লেখ করেন তিনি।         

রাণীশংকৈল পৌর শহরের বাসিন্দা শাহ আলম বলেন, “জাহিদুর রহমান তার অনেক সম্পদ বিক্রি করে বিএনপির রাজনীতি করেছেন। ২৫-২৬ বছর ধরে নির্বাচন করতে গিয়ে তিনি দুই উপজেলার সব জায়গার মানুষের সঙ্গে মিশে জনপ্রিয়তা অর্জন করেছেন। এবার মানুষ দল বিবেচনা করে নয়, তাঁর প্রতি সহানুভূতি দেখিয়েই তাঁকে ভোট দিয়েছেন। এ জন্যই তিনি এবার জয়ী হয়েছেন”।

১৯৯১ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এ আসনে তৎকালীন উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক জাহিদুর রহমান বিএনপি থেকে প্রথমবারের মতো ধানের শীষ প্রতীকে নির্বাচন করে পঞ্চম হন। ১৯৯৬ সালের নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থী ছিলেন আবদুল মালেক। ২০০১ সালের নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থী হিসেবে জাহিদুর রহমান ৮ হাজার ৩৫৯ ভোট পেয়ে তৃতীয় হন।

নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচন জোটবদ্ধভাবে হয়। ঐ নির্বাচনে মহাজোটের প্রার্থী  জাতীয় পার্টির হাফিজউদ্দিন আহম্মেদ লাঙ্গল প্রতীকে নির্বাচন করে বিজয়ী হন।  সেবার তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন বিএনপির প্রার্থী জাহিদুর রহমান।  তিনি সেবার ৪৬ হাজার ৫৪৫ ভোট পেয়েছিলেন। ২০১৪ সালের দশম নির্বাচনে বিএনপি ভোট বর্জন করে।

এবারের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ঠাকুরগাঁও-৩ আসনে চতুর্মুখী লড়াই হয়। ঠাকুরগাঁওয়ের রিটার্নিং কর্মকর্তা কার্যালয়ের সূত্র থেকে প্রাপ্ত তথ্যানুসারে, এই আসনে বিএনপির প্রার্থী জাহিদুর রহমান ৮৮ হাজার ৫১০ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. ইমদাদুল হক ৮৪ হাজার ৩৮৫ ভোট পান। 

তবে এই দুই যুগেরও বেশিকাল চেষ্টার পর নির্বাচনে জয়ী হয়ার পরও সংসদে যাওয়া ও   শপথ নেয়ার অনিশ্চয়তার প্রশ্নে তিনি ঢাকা ট্রিবিউনকে টেলিফোনে বলেন, “দলের সাথে ছিলাম আছি থাকবো। সংসদে যাওয়া ও শপথ নেয়ার ব্যাপারে  ভোটারদের চাপ আছে”। 

“এবারের নির্বাচনে সারা দেশের মানুষের ভোটাধিকার কেড়ে নেয়া হয়েছে, আমার দল তার বিরুদ্ধেই সংগ্রাম করছে, দলের সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত”, যোগ করেন ঠাকুরগাঁও বিএনপির বিশ্বস্ত এই নেতা।              

About

Popular Links