Wednesday, May 29, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

বীর মুক্তিযোদ্ধাকে গলা কেটে হত্যা: বিক্ষোভে উত্তাল পাটগ্রাম, আল্টিমেটাম

গত ২০ জানুয়ারি লালমনিরহাট জেলার পাটগ্রাম পৌরসভায় নিজ বাসার প্রধান ফটকে বীর মুক্তিযোদ্ধা ও পাটগ্রাম মহিলা কলেজের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ এম ওয়াজেদ আলীকে গলা কেটে ও কুপিয়ে হত্যা করা হয়

আপডেট : ২৭ জানুয়ারি ২০২৩, ১০:৩৭ এএম

গত ২০ জানুয়ারি লালমনিরহাট জেলার পাটগ্রাম পৌরসভার ৬ নম্বর ওয়ার্ডে নিজ বাসার প্রধান ফটকে বীর মুক্তিযোদ্ধা ও পাটগ্রাম মহিলা কলেজের প্রতিষ্ঠাতা অধ্যক্ষ এম ওয়াজেদ আলীকে গলা কেটে ও কুপিয়ে হত্যা করা হয়।

এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার (২৬ জানুয়ারি) মানববন্ধন ও বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, উপজেলা আওয়ামী লীগ ও উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতি। মানববন্ধনে হত্যায় জড়িতদের গ্রেপ্তারে সাত দিনের আল্টিমেটাম দেওয়া হয়েছে। 

একই দিনে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন জেলার পুলিশ সুপার মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম। পরে তিনি নিহতের পরিবারের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। 

কুপিয়ে হত্যার শিকার এম ওয়াজেদ আলী লালমনিরহাট-১ আসনের (পাটগ্রাম-হাতীবান্ধা) সাবেক সংসদ সদস্য ও মুক্তিযুদ্ধের ৬ নম্বর সেক্টরের প্রধান সংগঠক আবিদ আলীর আপন ছোট ভাই।

বৃহস্পতিবার দুপুরে পাটগ্রাম টিএন স্কুল অ্যান্ড কলেজ মাঠ থেকে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের উপজেলা আওয়ামী লীগ। পরে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে পাটগ্রাম চৌরঙ্গী মোড়ে মানববন্ধন করে তারা। উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি পূর্ণ চন্দ্র রায়ের সভাপতিত্বে প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা চেয়ারম্যান রুহুল আমিন বাবুল ও পাটগ্রাম পৌরসভার মেয়র রাশেদুল ইসলাম সুইট প্রমুখ।

অপরদিকে, বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির উদ্যোগে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ কর্মসূচি পালন করা হয়। উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি মফিদুল ইসলাম রুপার সভাপতিত্বে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহিম প্রামাণিক লিবন, ইমতিয়াজ আহমেদ ফরমানি তপু ও আলমগীর হোসেন প্রমুখ।

একইদিন দুপুর ১২টায় পাটগ্রাম উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের আয়োজনে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। পাটগ্রাম উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার এএইচএম সালাউজ্জামান ফারুকের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন লালমনিরহাট জেলা আওয়ামী লীগের মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক ও জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার মেজবাহ উদ্দিন আহমেদ, পাটগ্রাম উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার জাকির হোসেন প্রমুখ।

পৃথক পৃথক মানববন্ধন, বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ সমাবেশের বক্তারা বীর মুক্তিযোদ্ধা এম ওয়াজেদ আলী হত্যা মামলার প্রধান আসামি নাহিদুজ্জামান প্রধান বাবুকে অবিলম্বে গ্রেপ্তার করে হত্যার রহস্য উদঘাটনের দাবি জানিয়েছেন।

পুলিশ সুপার মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম জানিয়েছেন, “আসামি গ্রেপ্তারে সর্বোচ্চ চেষ্টা করছি। যেহেতু আসামি পলাতক রয়েছে সে কারণে কিছু সময় লাগছে। আশা করি, আমরা দ্রুত গ্রেপ্তার করতে পারবো।”

উল্লেখ্য, বীর মুক্তিযোদ্ধা এম ওয়াজেদ আলীকে গলা কেটে ও কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে প্রতিবেশী পাটগ্রাম ফাতেমা প্রি-ক্যাডেটের চাকুরিচ্যুত খণ্ডকালীন শিক্ষক নাহিদুজ্জামান প্রধান বাবুসহ অজ্ঞাতদের আসামি করে গত ২২ জানুয়ারি পাটগ্রাম থানায় একটি হত্যা মামলা করেন নিহতের ছোট ছেলে রিফাত হাসান।

About

Popular Links