Sunday, May 19, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

মোস্তাফা জব্বার: পঞ্চম শিল্পবিপ্লবে অগ্রাধিকার পাবে মানুষ

ডাক ও টেলিযোগাযোগ বলেন, এই শিল্পবিপ্লবে মানুষের কোনো বিকল্প নেই

আপডেট : ২৭ জানুয়ারি ২০২৩, ০৯:৪৮ পিএম

পঞ্চম শিল্পবিপ্লবে যন্ত্র বা রোবোটকে মানুষের কাজে সহায়তা দেওয়ার জন্য তৈরি করা হবে বলে মন্তব্য করেছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার।

তিনি বলেন, এই শিল্পবিপ্লবে মানুষের কোনো বিকল্প নেই।

শুক্রবার (২৭ জানুয়ারি) ঢাকার বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ আয়োজিত ডিজিটাল বাংলাদেশ মেলার দ্বিতীয় দিনে “পঞ্চম শিল্পবিপ্লব ও ফাইভ-জি অবকাঠামো: বাংলাদেশের প্রস্তুতি” শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন তিনি।

মোবাইল অপারেটরগুলোর সংগঠন এমটবের মহাসচিব ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এ এস এম ফরহাদের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ডিজিটাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. মোহাম্মদ মাহফুজুল ইসলাম। অনুষ্ঠানে ডাক  ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মো. মাহবুব-উল আলম, বিটিআরসির মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মনিরুজ্জামান জুয়েল, হুয়াওয়ের চিফ ট্যাকনিক্যাল অফিসার নিকি মা জিয়ান, রবির হেড অব রেগুলেটরি অ্যান্ড করপোরেট অফিসার শাহেদ আলম এবং ফাইবার অ্যাট হোমের চেয়ারম্যান মইনুল হক সিদ্দিকী অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন।

মন্ত্রী বলেন, “প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ে তুলতে আমরা কাজ করছি। ডিজিটাল বাংলাদেশের শক্তিশালী ভিত্তির ওপর স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ে উঠবে। স্মার্ট বাংলাদেশের জন্য স্মার্ট নাগরিক খুবই গুরুত্বপূর্ণ। মানুষের নেতৃত্বের জায়গার ক্ষেত্রে যন্ত্রের ওপর মানুষের সক্ষমতা থাকতে হবে। আমাদের নতুন প্রজন্ম অত্যন্ত মেধাবী। তাদেরকে পঞ্চম প্রযুক্তির যন্ত্র বানানোর দক্ষতা অর্জনে কাজ করতে হবে। তারা যন্ত্র বানাবে এবং যন্ত্রের নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠার যোগ্যতা অর্জন করবে।”

মূল প্রবন্ধে অধ্যাপক মাহফুজুল ইসলাম বলেন, “আমরা পঞ্চম শিল্পবিপ্লব যুগের দিকে যাচ্ছি। পঞ্চমশিল্প বিপ্লব হবে মানবিক। এখানে মানুষ ও যন্ত্র মিলেমিশে এক সঙ্গে কাজ করবে এবং মানুষই যন্ত্রকে নিয়ন্ত্রণ করবে।”

রবির হেড অব রেগুলেটরি অ্যান্ড করপোরেট অফিসার শাহেদ আলম বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে বলেন, “বর্তমানে ফোর-জি নিয়েই গ্রাহকদের অনেক অভিযোগ রয়েছে। এর সমাধানের জন্য নেটওয়ার্কের সংখ্যা যেখানে বাড়ানো দরকার সেখানে আমাদের আরও কমাতে হচ্ছে। এর পেছনে একটি গুরুত্বপূর্ণ কারণ হলো জনগণের ভেতরে একটি ভুল ধারণা যে নেটওয়ার্কের রেডিয়েশন আমাদের ক্ষতি করছে। এজন্য অনেক জায়গা থেকেই আমাদের টাওয়ার সরিয়ে ফেলতে হচ্ছে। কিন্তু এগুলো আসলে নন-আয়োনাইজড রেডিয়েশন। এটি তেমন ক্ষতিকর নয়। অন্য অতিথিরাও তার এই কথায় একমত পোষণ করেন।”

About

Popular Links