Monday, May 20, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

ডিএমপি: লেখক-প্রকাশকের ওপর হুমকির শঙ্কা থাকলে জানান, ব্যবস্থা নেবো

ডিএমপি কমিশনার বলেন, মেলার আশপাশে মোটরসাইকেল ও গাড়ি টহল থাকবে। এছাড়া সিটিটিসি, বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিট, ক্রাইম সিন ভ্যান ও ডগ স্কোয়াড প্রস্তুত থাকবে

আপডেট : ৩১ জানুয়ারি ২০২৩, ০১:১৭ পিএম

ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার খন্দকার গোলাম ফারুক বলেন, “একুশে বইমেলায় ধর্মীয় উসকানিমূলক লেখা বা বই প্রকাশের নামে পরিস্থিতি উত্তপ্ত করার চেষ্টা ঠেকাতে সাইবার মনিটরিং ব্যবস্থা রাখা হচ্ছে। কোনো লেখক বা প্রকাশকের হুমকির শঙ্কা থাকলে আমাদের জানাবেন, আমরা ব্যবস্থা নেবো। কোনো সুনির্দিষ্ট হুমকি না থাকলেও এবার অন্য বছরের চেয়ে কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থা থাকছে।”

মঙ্গলবার (৩১ জানুয়ারি) অমর একুশে বইমেলা ২০২৩ উপলক্ষে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে স্থাপিত অস্থায়ী পুলিশ কন্ট্রোল রুমের সামনে সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেণ তিনি। আগামীকাল ১ ফেব্রুয়ারি থেকে অমর একুশে গ্রন্থমেলা শুরু হবে।

এবারের বইমেলায় তিন স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা থাকবে জানিয়ে ডিএমপি কমিশনার বলেন, “মেলা কেন্দ্রিক নিরাপত্তার পাশাপাশি কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার, শাহবাগ ও নীলক্ষেত কেন্দ্রিক নিরাপত্তা ব্যবস্থাও থাকছে। বাংলা একাডেমি ও সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের আশপাশে তল্লাশি দল থাকবে, সন্দেহজনক কিছু দেখলে তারা তল্লাশি করবেন। মূল মেলা প্রাঙ্গণে প্রবেশের আগে প্রতিটি প্রবেশপথে আর্চওয়ে, মেটাল ডিটেক্টর থাকবে। কাউকে সন্দেহ হলে তাকে পৃথক কক্ষে নিয়ে তল্লাশি করা হবে।”

তিনি জানান, মেলা প্রাঙ্গণে সাদা পোশাকে পুলিশ সদস্যের পাশাপাশি পর্যাপ্ত সংখ্যক পোশাকধারী সদস্যও মোতায়েন থাকবে। মেলার আশপাশে মোটরসাইকেল ও গাড়ি টহল থাকবে। এছাড়া সিটিটিসি, বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিট, ক্রাইম সিন ভ্যান ও ডগ স্কোয়াড প্রস্তুত থাকবে। যেকোনো জরুরি পরিস্থিতি মোকাবিলায় সার্বিক প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে।

তিনি আরও জানান, মেলায় মেডিকেল টিম ও ফায়ার সার্ভিস মোতায়েন থাকবে। ডিএমপি কন্ট্রোল রুমের ভেতরে ব্রেস্ট ফিডিং কক্ষ থাকবে। আমাদের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা নিয়মিত মেলা প্রাঙ্গনে আসবেন ও নিরাপত্তা বিষয় পর্যবেক্ষণ করবেন।

About

Popular Links