Friday, June 21, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

খরচ কমিয়ে কোষাগারে ২৭ কোটি টাকা ফেরত দিলো প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়

কৃচ্ছ্রসাধনে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আহ্বানে সাড়া দিয়ে বিদ্যুৎ ও আপ্যায়ন খাতে খরচ প্রায় অর্ধেকে নামিয়ে আনা হয়েছে। জ্বালানি তেলে খরচ কমানো হয়েছে প্রায় ৪ ভাগের এক ভাগ

আপডেট : ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১০:৪৫ এএম

কৃচ্ছ্রসাধনে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আহ্বানে সাড়া দিয়ে বিদ্যুৎ ও আপ্যায়ন খাতে খরচ প্রায় অর্ধেকে নামিয়ে আনা হয়েছে। জ্বালানি তেলে খরচ কমানো হয়েছে প্রায় ৪ ভাগের এক ভাগ। পাশাপাশি অন্যান্য খাতেও ব্যয় কমানো হয়েছে।

ব্যয় সংকোচনে এসব পদক্ষেপের সুবাদে ২০২২-২০২৩ অর্থবছরের বাজেট বরাদ্দ থেকে ২৬ কোটি ৪৩ লাখ টাকা ফেরত দিয়েছে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়।

পিএমও মহাপরিচালক (প্রশাসন) মোহাম্মদ আহসান কিবরিয়া সিদ্দিকী বলেন, “চলতি অর্থবছরের বাজেট সংশোধনের সময় আমরা লক্ষ্য করি যে আমরা বিভিন্ন অভ্যন্তরীণ খাত থেকে সরকারকে প্রায় ২৭ কোটি টাকা ফেরত দিতে পারি। দেখা যায়, ২৬.৪৩ কোটি টাকা পাওয়া যায়- যা ফেরত দেওয়া যেতে পারে এবং আমরা এই অর্থ সংসদীয় বাজেট থেকে অর্থ বিভাগে হস্তান্তর করেছি।”

ইতোমধ্যেই সরকারি কোষাগারে অর্থ হস্তান্তর করা হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, “আমরা অর্থবছরের শুরু থেকে পরিকল্পিতভাবে পিএমওতে ধীরে ধীরে ব্যয় হ্রাস করেছি। আমরা জুলাই মাসে চলতি আর্থিক বছরের শেষ নাগাদ আমাদের অফিসের খরচ আরও কমানোর চেষ্টা করছি।”

আহসান বলেন, “প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যখন দেশের সব মানুষকে কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন প্রদানের উদ্যোগ নেন, তখন প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে প্রধানমন্ত্রী অফিসের খরচ কমানো শুরু করেন। সে সময় প্রধানমন্ত্রী আমাদের সম্ভাব্য খাত থেকে অর্থ সাশ্রয় করে অর্থ বিভাগে ফেরত দেওয়ার নির্দেশনা দেন এবং সে অর্থ স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়কে দেওয়ার আহ্বান জানান। আমরা ২০২০ সাল থেকে সেই কাজ শুরু করি।”

তিনি বলেন, “প্রথমে আমরা বিদ্যুৎ খরচ কমাই। এরপরে আমরা পেট্রোল ও লুব্রিকেন্টস সেক্টরের দিকে নজর দিই এবং আমরা অত্যন্ত বৈজ্ঞানিক উপায়ে যানবাহনের রেশনিং করে তাও কমিয়ে আনি।”  

About

Popular Links