Monday, May 27, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

জোর করে অপছন্দের ছেলের সঙ্গে বিয়ে, বাবাকে হত্যাচেষ্টার অভিযোগে মেয়ে গ্রেপ্তার

বিয়েতে ওই তরুণীর সম্মতি জানতে চান কাজি। এ সময় বাবার সঙ্গে কথা বলে সম্মতি দেবেন বলে জানান তিনি। পরে বাবাকে একা ডেকে একটি ঘরে নিয়ে যান। সেখানে বাবা-মেয়ে বাগবিতণ্ডায় জড়ান

আপডেট : ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ০৮:৪৫ পিএম

নিজের অপছন্দের ছেলের সঙ্গে বিয়ে ঠিক করেন পুলিশ কর্মকর্তা বাবা। ছেলে পছন্দ না হওয়ায় এবং জোর করে বিয়ে দিতে চাওয়ায় বিয়ের আসরেই বাবাকে হত্যার চেষ্টা করেন এক তরুণী বলে অভিযোগ উঠেছে। 

শুক্রবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) রাত ১০টার দিকে রংপুরের পীরগাছায় এমন ঘটনা ঘটে। থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সেলিম ঢাকা ট্রিবিউনকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

আহত অবস্থায় ওই পুলিশ কর্মকর্তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অভিযুক্ত তরুণীকে গ্রেপ্তারর করেছে পুলিশ।

পুলিশ ও আহতের স্বজনরা জানান, নৌবাহিনীতে কর্মরত রংপুর নগরীর তামফাট এলাকার এক ছেলের সঙ্গে তিন মাস আগে ওই তরুণীর বিয়ে রেজিস্ট্রি হয়। আনুষ্ঠানিকভাবে বিয়ের আয়োজন ছিল শুক্রবার। ওইদিন রাত সাড়ে ৯টার দিকে বিয়েতে তার সম্মতি জানতে চান কাজি। এ সময় বাবার সঙ্গে কথা বলে সম্মতি দেবেন বলে জানান ওই তরুণী।

পরে বাবাকে একা ডেকে একটি ঘরে নিয়ে যান। সেখানে বাবা-মেয়ে বাগবিতণ্ডায় জড়ান। একপর্যায়ে ফারজানা তার হাতে থাকা অ্যান্টিকাটার দিয়ে বাবার গলায় আঘাত করে হত্যার চেষ্টা করেন।

এ সময় পুলিশ কর্মকর্তার চিৎকারে স্বজনরা এগিয়ে আসেন। আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ফারজানাকে আটক করে। পরে তাকেও পীরগাছা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। সেখানে পুলিশ পাহারায় চিকিৎসার পর শনিবার দুপুরে তাকে থানায় নেওয়া হয়।

এদিকে, বিয়ে না হওয়ায় বর ও তাদের স্বজনরা বাড়িতে ফিরে যান। এ বিষয়ে বরের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি কোনো কথা বলতে রাজি হননি।

ওসি বলেন, “ওই পুলিশ কর্মকর্তা নিজেই বাদী হয়ে ফারজানাসহ চার জনের নাম উল্লেখ করে থানায় মামলা করেছেন। ওই তরুণী জানিয়েছেন, যে ছেলের সঙ্গে বিয়ে ঠিক করা হয়েছিল তাকে তার পছন্দ হয়নি। এরপরও জোর করে বিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করলে তিনি ক্ষুব্ধ হয়ে ঘটনাটি ঘটিয়েছেন।”

তিনি আরও জানান, “শনিবার বিকালে ফারজানাকে আদালতে পাঠানো হয়েছে। তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন আদালত। মামলাটি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হবে।”

About

Popular Links