Monday, May 27, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

জাবিতে সাংবাদিকের ওপর হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন

বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে সংশপ্তকের পাদদেশে এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়

আপডেট : ২৪ মার্চ ২০২৩, ০৩:২৮ পিএম

সংবাদ সংগ্রহকালে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) কর্মরত সাংবাদিকদের হেনস্তার প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছে শিক্ষার্থীরা।

বৃহস্পতিবার (২৩ মার্চ) দুপুর ১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের সামনে সংশপ্তকের পাদদেশে এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

মানববন্ধনে আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের শিক্ষার্থী আশফার রহমান নবীন বলেন, “দুই হলের সংঘর্ষে সাংবাদিকরা সংবাদ সংগ্রহ করতে গেলে সেখানে তাদের মারধর করা হয়, জামাকাপড় ছিড়ে ফেলা হয়।”

“আমরা প্রায়শই এমন মারামারি দেখি, যেখানে দেশীয় অস্ত্র থেকে আগ্নেয়াস্ত্রর ব্যবহার দেখতে পাই। এর অবাধ ব্যবহারের চূড়ান্ত পরিণতি আজ সাংবাদিকদের উপর হামলা,” যোগ করেন তিনি।

নবীন বলেন, “আজ আমাদের জিজ্ঞাসা করতে হবে এই ক্যাম্পাসে অপরাধী থাকবে নাকি সাধারণ ছাত্ররা। এই হামলা কোনো বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছিল না। এর আগেও ক্যাম্পাসে সাংবাদিকদের ওপর হামলার ঘটনা ঘটেছে।”

“সাধারণ ছাত্র থেকে সাংবাদিক, এখানে কেউ নিরাপদ নয়,” তিনি বলেন।

নাটক ও নাট্যতত্ত্ব বিভাগের শিক্ষার্থী কনোজ কান্তি রায় বলেন, “ছাত্র নেতারা ক্যাম্পাসে বন্দুক নিয়ে প্যারেড করলেও প্রশাসন কোনো ব্যবস্থা নিচ্ছে না।”

“তারা এই ক্যাম্পাসকে অপরাধী এবং অ-ছাত্রদের থেকে মুক্ত করছে না,” তিনি সমালোচনা করেন।

ইংরেজি বিভাগের আলিফ মাহমুদ বলেন, “বিশ্ববিদ্যালয়ে যখনই কোনো অপকর্ম ঘটে, বারবার ছাত্রলীগের নাম উঠে আসে।”

“ছাত্রলীগের নেতারা রাজনৈতিক ক্ষমতার আশ্রয়ে ক্যাম্পাসে বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে তারা জুনিয়রদের মারধর করে। প্রতিনিয়ত তারা ক্যাম্পাসে কুচকাওয়াজ করে, তাদের ক্ষমতার ঝাঁকুনি দেয়, এবং যখন সাংবাদিকরা তাদের অন্যায়কে ঢাকতে চেষ্টা করে, তখন তারা নির্মমভাবে আক্রমণ করে। এই ঘটনা দ্বারা, আপনি সহজেই ক্যাম্পাসের সাধারণ ছাত্রদের অবস্থার সারসংক্ষেপ করতে পারেন,” তিনি বলেন।

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের মীর মশাররফ হোসেন হল শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা বুধবার ক্যাম্পাসে মঞ্চস্থ “শোডাউন” কভার করতে গেলে দুই সাংবাদিকের ওপর হামলা হয় বলে অভিযোগ।

About

Popular Links