Sunday, May 19, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

গাবতলীতে চাপ নেই তবু অপেক্ষায় থাকতে হচ্ছে ঘরমুখো মানুষকে

পরিবহন-সংশ্লিষ্টরা বলছেন, রাস্তায় কোথাও কোথাও যানজটের তৈরি হচ্ছে। বিশেষ করে রাজধানী থেকে বের হওয়ার বিভিন্ন সড়কে গাড়ির চাপ দেখা গেছে। ছোট-বড় এসব যানজটের কারণে যাত্রীদের অপেক্ষা বাড়ছে

 

আপডেট : ২০ এপ্রিল ২০২৩, ০৩:৩০ পিএম

শেকড়ের টানে ঘরে ফিরছেন ঢাকায় বসবাস করা “উদ্বাস্তু” মানুষেরা। ঢাকায় নিঃশ্বাস নেওয়ার জায়গা নেই, খোলা মাঠ নেই, গাছপালা নেই। ফলে একটু লম্বা ছুটি পেলেই নগরবাসী স্বস্তি পেতে গ্রামে ফেরেন। এই সময় বাড়তি মানুষের চাপ তৈরি হয় গণপরিবহনে। সড়কে ও মহাসড়কে যানজটের চিত্র দেখা যায়। তবে এ বছর যেন পুরো দৃশ্যই ভিন্ন।

বৃহস্পতিবার (২০ এপ্রিল) রাজধানীর গাবতলী বাস টার্মিনালে ঘরমুখী মানুষের তেমন চাপ দেখা যায়নি। অন্য বছরের তুলনায় এ বছর মানুষের চাপ কম বলে জানিয়েছেন পরিবহন-সংশ্লিষ্টরা।

গাবতলী বাস টার্মিনাল ঘুরে দেখা গেছে, প্রচণ্ড গরমে পরিবারের সদস্যদের নিয়ে বাড়ি যাওয়ার জন্য বাসের জন্য অপেক্ষা করছেন অনেকে। টার্মিনালে যাত্রী বিশ্রামাগারের বাইরেও কেউ কেউ বরেস আছেন। তাদের কাঙ্ক্ষিত বাস এলেই বাসে উঠে পড়ছেন।

পরিবহন-সংশ্লিষ্টরা বলছেন, রাস্তায় কোথাও কোথাও যানজটের তৈরি হচ্ছে। ছোট-বড় এসব যানজটের কারণে যাত্রীদের অপেক্ষা বাড়ছে। ক্রমে সড়কে গাড়ির চাপ বাড়ছে। বিশেষ করে রাজধানী থেকে বের হওয়ার বিভিন্ন সড়কে গাড়ির চাপ দেখা গেছে।

অপেক্ষমাণ যাত্রী মামুন বলেন, “গাড়ির জন্য অপেক্ষা করছি, এখনও গাড়ি আসেনি। গরমে কী অবস্থা তা তো দেখতেই পাচ্ছেন। তারপরও পরিবারের সঙ্গে ঈদ করতে বাড়ি যাচ্ছি। ঠিকমতো পৌঁছাতে পারবো এবং পরিবারের সঙ্গে ঈদ করতে পারবো, এটাই বড় কথা।”

হাসিনা বানু বলেন, “সাত মাস পরে বাড়ি যাচ্ছি। সবাইকে নিয়ে ঈদ করতে পারবো, এটা ভেবেই আনন্দ লাগছে। যাত্রী নেওয়ার জন্য বাস অপেক্ষা করছে আমরা অপেক্ষা করছি। বলল কিছুক্ষণের মধ্যে ছেড়ে দেবে। দেখা যাক সড়কে কী অবস্থা দাঁড়ায়। এ বছর মনে হচ্ছে সড়কে ভোগান্তি একটু কম হবে। তারপরও আল্লাহ ভরসা।”

জাহিদুল ইসলাম নামে আরেক যাত্রী বলেন, “বাসের জন্য দুই ঘণ্টা ধরে অপেক্ষা করছি। এখনো আসেনি। কিছু করার নেই। একটু অপেক্ষা করতে হবে। ঢাকা থেকে বের হওয়ার রাস্তায় যানজট আছে। কিছু করার নেই। এভাবেই আমাদের হাসিখুশি থেকে বাড়ি যেতে হবে।”

হানিফ পরিবহনের ম্যানেজার আশরাফ অনলাইন সংবাদমাধ্যম বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, “বৃহস্পতি ও শুক্রবারকে কেন্দ্র করে যে ধরনের যাত্রীর চাপ থাকে, ঈদকে কেন্দ্র করে সে ধরনের চাপ রয়েছে। তবে বিশেষ বা বাড়তি কোনো চাপ নেই।”

তিনি আরও বলেন, “পদ্মা সেতু হওয়ায় অনেকেই গাবতলী বাস টার্মিনাল থেকে না গিয়ে অন্যান্য বাস টার্মিনাল থেকে বাসে করে যাচ্ছে। যে কারণে বাসের এবং যাত্রীর চাপ কিছুটা কম রয়েছে। তবে গার্মেন্টস ছুটি হলে যাত্রী চাপ কিছুটা বাড়বে।”

About

Popular Links