Tuesday, May 21, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

পদ হারানোর আখ্যান তুলে ধরে জাহাঙ্গীর বললেন, ‘গাজীপুরকে নিরাপদ নগরী করব’

জাহাঙ্গীর বলেন, উপরের নির্দেশে আমাকে মেয়র পদ থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে

আপডেট : ২৩ মে ২০২৩, ১১:৪১ এএম

গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে মনোনয়ন পাননি সিটির সাবেক মেয়র জাহাঙ্গীর আলম। নৌকার টিকেটে মেয়র হওয়া জাহাঙ্গীর দল থেকেও দুইবার বহিষ্কার হয়েছেন।  ভোটের মাঠে তিনি নিজের প্রার্থিতা নিয়ে না থাকলেও মা জায়েদা খাতুনের প্রধান নির্বাচন সমন্বয়ক হিসেবে মাঠে রয়েছেন।

বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে “কটূক্তি” করার অভিযোগে প্রথমে দল থেকে বহিষ্কার পরে মেয়র পদ হারান তিনি। এরপরে তার বিরুদ্ধে দুর্নীতির নানা অভিযোগ ওঠে। শুরু থেকেই তিনি সেইসব অভিযোগ অস্বীকার করে “রাজনৈতিক” কারণে হেন্তার শিকার হচ্ছেন বলে অভিযোগ করে আসছেন।

সোমবার (২২ মে) রাত ১০টার দিকে মহানগরের হারিকেন এলাকার নিজ বাসভবন থেকে ফেসবুক লাইভে এসে তিনি আবারও একই দাবি তুললেন। বললেন, “উপরের নির্দেশে আমাকে মেয়র পদ থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে।” একইসঙ্গে গাজীপুরকে নিরাপদ নগরী হিসেবে গড়ে তুলতে তার মাকে নির্বাচিত করার আহ্বান জানান তিনি।

ফেসবুক লাইভে জাহাঙ্গীর আলম বলেন, “৫৭টি ওয়ার্ড নিয়ে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন গঠিত। আপানারা জানেন আগামী ২৫ মে সিটি নির্বাচন। এই নির্বাচনে আমার মা জায়েদা খাতুন টেবিল ঘড়ি প্রতীকে লড়ছেন। জন্মের পর থেকে আমি আওয়ামী লীগ পরিবারের সঙ্গে জড়িত। অত্যন্ত দুঃখের বিষয় আমাকে না বলে, কিছু জিজ্ঞেস না করে, গাজীপুরের কোনো মানুষ আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ না দেওয়ার পরও জেলার বাইরের একজন মানুষ মিথ্যা তথ্য দিয়ে চিঠি দেওয়ার পর আমাকে মেয়র পদ থেকে বাদ দেওয়া হয়। যত কৌশল আছে সবগুলো অবলম্বন করা হয়। পরে আমি এক মন্ত্রীর সঙ্গে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, ওপরের নির্দেশে আমাকে বাদ দেওয়া হয়েছে।”

তিনি আরও বলেন, “আমি বলেছিলাম আমার দোষ কী? মন্ত্রী বলেছেন, কোনো অপরাধ নেই, দোষও নেই। একটা ইশারায় বাদ দেওয়া হয়েছে। এখন আমার প্রশ্ন হচ্ছে, সিটি মেয়রকে ঢাকার ইশারায় বা কোনো অদৃশ্য শক্তির কারণে যদি (মেয়রের পদ) মন্ত্রণালয় থেকে বাদ দেওয়া হয় তাহলে সিটির ১২ লাখ ভোটারের দাম কী? তাদের ভোটের মূল্যায়ন কীভাবে হবে?”

তাকে বাদ দেওয়ার পর সিটির উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড থেমে গেছে উল্লেখ করে জাহাঙ্গীর আলম বলেন, “এ অবস্থায় মা প্রার্থী হয়ে আমার অসমাপ্ত কাজগুলো শেষ করতে গাজীপুরবাসীর পাশে দাঁড়িয়েছেন। শহরকে রক্ষার জন্য এবং সুন্দর সিটি গড়ার জন্য আপনারা আমার মা জায়েদা খাতুনের পাশে দাঁড়ান। ঘড়ি মার্কায় ভোট দিন। আমরা সবাই মিলে একটি সুন্দর শহর উপহার দেবো। যে শহরে সব ধরনের মানুষ নিরাপদে থাকবে।”

About

Popular Links