Friday, May 24, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

স্কুলছাত্রীকে আটকে রেখে ধর্ষণ, হেলপার ও তার স্ত্রী গ্রেফতার

"এখনো ওই স্কুল ছাত্রীকে উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি"

আপডেট : ১৪ জানুয়ারি ২০১৯, ০৫:৪৫ পিএম

টাঙ্গাইলের সখীপুরে দশম শ্রেণীর এক স্কুলছাত্রীকে প্রায় ২০ দিন ধরে আটকে রেখে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় রোববার রাতে ওই ছাত্রীর মা বাদী হয়ে থানায় মামলা করেছে। মামলার পরই রাতেই অভিযুক্ত বাসের হেল্পার মজিবর রহমান (৪২) ও তার স্ত্রী আমেনা বেগমকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

আজ সোমবার সকালে গ্রেফতারকৃত মজিবরকে ৫ দিনের রিমান্ডে চেয়ে টাঙ্গাইল আদালতে পাঠায় পুলিশ। 

মামলা সূত্রে জানা যায়, মজিবুর রহমান ওই স্কুল ছাত্রীকে স্কুলে যাওয়ার পথে কুপ্রস্তাব দিতো। এতে সে রাজি না হওয়ায় ২৪ ডিসেম্বর বাজারে কেনাকাটার জন্য গেলে তাকে মজিবর অপহরণ করে নিয়ে যায় এবং তাকে আটকে রেখে একাধীকবার জোর পূর্বক ধর্ষণ করে। 

নির্যাতিত ছাত্রীর মা বলেন, "অভিযুক্ত মজিবর প্রতিবেশী হওয়ায় আমার মেয়েকে তার প্রবাসী ছেলের বউ করার জন্য নানাভাবে প্রস্তাব দেয়। তাকে বলা হয়, মেয়েকে আরও পড়াশোনা করাব, উচ্চ শিক্ষিত করব। বিয়েতে রাজি হইনি। আমি এ ঘটনার দৃষ্টান্তমূলক বিচার দাবি করছি"।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বলেন, "মেয়েটি মেধাবী। কয়েকদিন ধরে বিদ্যালয়ে অনুপস্থিতি থাকার খবরটি নিয়েছি। তার মা সব সময় পড়াশোনার খোঁজ নিতেন। মেয়েকে উচ্চ শিক্ষিত করার চিন্তা করতেন"।’  

এ ব্যাপারে সখীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমির হোসেন বলেন, "মামলা দায়েরের পর পুলিশ অভিযান চালিয়ে তাদেরকে গ্রেফতার করেছে। পরে সোমবার সকালে মজিবরকে ৫ দিনের রিমান্ড চেয়ে টাঙ্গাইল আদালতে পাঠানো হয়েছে। তবে এখনো ওই স্কুল ছাত্রীকে উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি। তাকে উদ্ধারের অভিযান অব্যাহত রয়েছে"।

About

Popular Links