Sunday, May 26, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

মাদ্রাসাছাত্রীকে তুলে নিয়ে ধর্ষণের অভিযোগ

এ ঘটনায় ছাত্রীর মা বাদী হয়ে দুজনকে আসামি করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেছেন

আপডেট : ০৩ ডিসেম্বর ২০২১, ০৭:৪৫ পিএম

নোয়াখালীর সেনবাগ উপজেলায় সড়ক থেকে তুলে নিয়ে ৫ম শ্রেণির এক মাদ্রাসাছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। 

বৃহস্পতিবার (২ ডিসেম্বর) দুপুর ২টার দিকে উপজেলার বীজবাগ ইউনিয়নের একটি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় ওইদিন রাত ১০টার দিকে  সেনবাগ থানায় দুজনকে আসামি করে নির্যাতের শিকার মেয়েটির মা বাদী হয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেছেন। মামলার আসামিরা হলেন- বীজবাগ ইউনিয়নের জহির উদ্দিন (৪৫) ও তার সহযোগী হাবীব উল্যাহ (৪৩)।

সেনবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইকবাল হোসেন পাটোয়ারী এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে দৈনিক প্রথম আলো।

পুলিশ ও মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, ভুক্তভোগী ছাত্রী স্থানীয় একটি মাদ্রাসায় পঞ্চম শ্রেণিতে পড়ে। মাদ্রাসায় আসা-যাওয়ার পথে বিভিন্ন সময় ডেকোরেটর ব্যবসায়ী জহির ওই ছাত্রীকে নানা প্রলোভন দেখাতেন। বৃহস্পতিবার দুপুরে ওই ছাত্রী মাদ্রাসা থেকে বাড়ি ফেরার পথে ডেকোরেটর দোকানের সামনে পৌঁছালে, জহির ওই ছাত্রীর মুখ চেপে ধরে রাস্তা থেকে তুলে দোকানের ভেতরে হাবীবের সহায়তায় ধর্ষণ করেন।

স্থানীয়রা বিষয়টি টের পেয়ে সেখানে গেলে জহির ও হাবীব কৌশলে পালিয়ে যান। পরে ছাত্রীর মা স্থানীয় গণ্যমান্যদের বিষয়টি জানান। রাতে এ ঘটনায় তিনি থানায় মামলা করেন।

সেনবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইকবাল হোসেন পাটোয়ারী বলেন, “ওই ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে হওয়া মামলার আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা করা হচ্ছে।”

About

Popular Links