Wednesday, May 29, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

এনবিআর সার্ভারে অনুপ্রবেশ করে ১৫৩ টন পণ্য খালাস

এর আগেও সাইবার অপরাধীরা জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সার্ভারে অনুপ্রবেশ করে ৮৫০ কোটি টাকা মূল্যমানের ৩ হাজার ৩৩৭টি চালান শুল্ক ছাড়া মুক্ত করে দেন

আপডেট : ১৫ নভেম্বর ২০২১, ০৬:৩৮ পিএম

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) সার্ভারে সাইবার অপরাধীরা আবারও অনুপ্রবেশ করে অন্তত ১৫৩ টন পণ্য খালাস করে নিয়েছে।

নজরদারিতে থাকা এসব চালান খালাস করতে জাল আমদানি অনুমতিপত্র ব্যবহারের পাশাপাশি কাস্টমসের ২ কর্মকর্তার ইউজার আইডি ও পাসওয়ার্ড ব্যবহার হয়েছে। 

প্রতারকরা এ বছরের জুন থেকে অক্টোবরের মধ্যে অন্তত ৯টি চালান ছাড়িয়ে নেয়। এই অবৈধ পন্থা অবলম্বন করে ৯ জন আমদানিকারক সরকারকে বড় আকারের শুল্ক ফাঁকি দিয়েছে।

যে ২ জন কর্মকর্তার তথ্য ব্যবহার করা হয়েছে, তাদের একজনকে ঘটনার বেশ কয়েক মাস আগে অন্য জায়গায় বদলি করা হয়েছে এবং অপরজনকে ঘুষ গ্রহণের অভিযোগে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। অর্থাৎ এই সিস্টেম ব্যবহার করার অনুমোদন তাদের ছিল না বলে ইংরেজি দৈনিক ডেইলি স্টারের এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে।

এই অবৈধ অনুপ্রবেশের ঘটনায় এনবিআরের সার্ভারের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। এর আগেও, ২০১৯ এ শুল্ক গোয়েন্দারা ২০১৬ থেকে ২০১৮ এর মধ্যে সার্ভারে অনুপ্রবেশের বেশ কিছু ঘটনা উন্মোচন করে।

সে সময়েও সাইবার অপরাধীরা অন্য ২ জন শুল্ক কর্মকর্তার লগইন ও পাসওয়ার্ড ব্যবহার করে ৮৫০ কোটি টাকা মূল্যমানের ৩ হাজার ৩৩৭টি চালান শুল্ক ছাড়া মুক্ত করে দেন। 

এই ঘটনা নিয়ে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) এবং পুলিশের দায়ের কার আলাদা ২টি মামলার বিচার কাজ ইতোমধ্যে চলমান রয়েছে। এ ঘটনার সঙ্গে শুল্ক কর্মকর্তাদের জড়িত থাকার পাশাপাশি ৭ জন সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট ও ২ জন আমদানিকারকের বিরুদ্ধে জালিয়াতির অভিযোগ এনেছে পুলিশ।

About

Popular Links