Sunday, May 26, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

বুথ থেকে টাকা চুরি, ধরা পড়লেন ব্যাংক কর্মকর্তা

আবু রায়হান পাসওর্য়াড জানতেন। তিনি পরিকল্পিতভাবে  রংপুরে প্রাইম ব্যাংকের বুথের ভল্ট থেকে ৯ লাখ ৬৩ হাজার টাকা চুরি করেন

আপডেট : ২১ নভেম্বর ২০২১, ০৯:৫৮ পিএম

ব্যাংকের বুথ থেকে টাকা চুরি করার এক বছরেরও বেশি সময় পর ধরা পড়লেন স্বয়ং ব্যাংক কর্মকর্তা। রংপুরে প্রাইম ব্যাংকের এটিএম বুথ থেকে ৯ লাখ ৬৩ হাজার টাকা চুরির ঘটনায় আবু রায়হান নামে ওই ব্যাংকেরই এক কর্মকর্তাকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। 

রবিবার (২১ নভেম্বর) বিকেলে গণমাধ্যমে পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য নিশ্চিত করেন পিবিআইয়ের রংপুর জেলা পুলিশ সুপার এ বি এম জাকির হোসেন।

শনিবার (২০ নভেম্বর) রাতে রংপুর নগরের ডিসির মোড় এলাকা থেকে টাকা চুরির অভিযোগে আবু রায়হানকে গ্রেপ্তার করা হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত বছরের ৬ অক্টোবর টাকা চুরির ঘটনা পুলিশকে জানায় ব্যাংক কর্তৃপক্ষ। দীর্ঘ তদন্ত শেষে চুরির রহস্য উদঘাটন করেছে পিবিআই। ওই অভিযোগে রংপুর প্রেসক্লাবের বিপরীতে ধর্মসভা মন্দিরের পাশের ভবনের নিচতলায় অবস্থিত প্রাইম ব্যাংকের এটিএম বুথ থেকে ৯ লাখ ৬৩ হাজার টাকা চুরি হয়েছে দাবি করা হয়। অজ্ঞাত হ্যাকার, চোর, ই-ট্রাঞ্জেকশন অথবা ডিজিটাল ডিভাইস ব্যবহারের মাধ্যমে টাকা চুরি করা হয় বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়।।

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে করা ওই মামলাটি রংপুর পিবিআই তদন্তের দায়িত্ব পায়। এরপর অনুসন্ধানে বের হয়ে আসে এটিএম বুথ থেকে এসব টাকা চুরি হওয়ার নেপথ্যের রহস্য।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, এটিএম বুথে টাকা লোড দেওয়ার সময় প্রাইম ব্যাংকের রংপুর শাখার কাস্টমার সার্ভিস অফিসার মো. মোস্তাফিজ ও অফিসার আবু রায়হান উপস্থিত ছিলেন। তারা দুজনই ব্যাংকের পাসওয়ার্ডধারী অফিসার। দীর্ঘদিন ধরে তারা ভল্টে টাকা লোড দিয়ে আসছিলেন। গত বছরের ১৭ জুন এটিএম বুথের কাস্টমারের জন্য সংরক্ষিত ডিজিটাল প্যাড অকেজো হলে এবং যান্ত্রিক ত্রুটি দেখা দেওয়ায় বিষয়টি ব্যাংক কর্তৃপক্ষের নজরে আসে। পরে ঢাকা থেকে আসা প্রকৌশলীদের এনে ৪ অক্টোবর এটিএম বুথ মেরামত করা হয়। এ সময় যুগপৎ দুটি পাসওয়ার্ড দিয়ে স্বাভাবিকভাবেই ভল্ট খুললে তিনটি ক্যাসেট চুরির বিষয়টি ধরা পড়ে।

ঘটনার সময় আবু রায়হান ঘটনার সময় প্রাইম ব্যাংক লিমিটেডের রংপুর শাখায় অফিসার পদে কর্মরত ছিলেন। তার বর্তমান কর্মস্থল প্রাইম ব্যাংকের বগুড়ার শেরপুর শাখা।

তদন্তের বরাত দিয়ে বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, আবু রায়হান বগুড়ায় বদলি হওয়ার পরও গত বছরের ২০ আগস্ট পর্যন্ত প্রাইম ব্যাংক রংপুর শাখায় কর্মরত ছিলেন। ১৭ জুন এটিএম বুথ বিকল হওয়ার আগ পর্যন্ত তিনবার ভল্টে লোড দেওয়া হয়। প্রথম দিন টাকা লোড দেওয়ার সময় পাসওয়ার্ড বহনকারী সিনিয়র অফিসার মো. ফরহাদ ও আবু রায়হান উপস্থিত ছিলেন। এরপরের বার আবু রায়হান ও ব্যাংকের ফ্যাসিলিটিজ স্টাফ মিলন মিয়া ছিলেন। আবু রায়হান সেদিন এটিএম বুথে উপস্থিত হয়ে মিলনের মোবাইল ফোন থেকে সিনিয়র অফিসার ফরহাদের কাছ থেকে রক্ষিত পাসওয়ার্ড জেনে নিয়ে ভল্টের ডোর খুলে টাকা লোড দেন। সর্বশেষ তৃতীয়বার ভল্টে টাকা লোড করার আগে আবু রায়হান ব্যাংকের অভ্যন্তরে ফরহাদের কাছ থেকে চিরকুটে পাসওয়ার্ড লিখে নিয়ে ৩০ লাখ টাকা টাকা বুথে নিয়ে গিয়ে ভল্টে লোড দেন। তিন দফায় ভল্ট লোডের সময়ই টাকা চুরির ঘটনা ঘটে।

বিজ্ঞপ্তিতে বিশেষজ্ঞ প্রকৌশলীদের বরাত দিয়ে বলা হয়, এটিএম বুথে কোনো প্রকার আঘাত কিংবা কোনো ক্ষতের এমনকি বাইরে থেকে কোনো প্রকার বল প্রয়োগ ছাড়াই ভল্ট থেকে টাকার ক্যাসেট সরানো হয়েছে। এটি শুধু পাসওয়ার্ড ও সেফডোর কি (চাবি) অপব্যবহারের মাধ্যমে সংঘটিত হয়েছে।

আবু রায়হান পাসওর্য়াড জানতেন। তিনি বদলির সুযোগে পরিকল্পিতভাবে বুথের ভল্ট থেকে ৯ লাখ ৬৩ হাজার টাকা চুরি করেন।

গ্রেপ্তার আবু রায়হানকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে বলে পিবিআইয়ের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।

About

Popular Links