Saturday, May 18, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

অবশেষে অপারেশন করে বের করা হলো কাঁচি, পর্যবেক্ষণে চেতনাহীন রোগী

‘দীর্ঘদিন পেটের ভিতরে কাঁচি থাকার কারণে তার পেটের নাড়ির কিছু অংশ পচন ধরায় কেটে ফেলতে হয়েছে। তার কৃত্রিম নাড়ি লাগানো লাগতে পারে’

আপডেট : ১১ ডিসেম্বর ২০২১, ০৭:২৯ পিএম

চিকিৎসকের অবহেলায় পেটে কাঁচি রেখে অপারেশন শেষ করার প্রায় দুই বছর পর আবারও অপারেশন করে কাঁচিটি বের করা হয়েছে মনিরা খাতুনের (১৮)। ফরিদপুরের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে সার্জারি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. রতন কুমার সাহার নেতৃত্বে কয়েকজন চিকিৎসক তিন ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে কাঁচিটি বের করতে সক্ষম হয়েছেন।

শনিবার (১১ ডিসেম্বর) বেলা ১১টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত এ অপারেশন করা হয়। ভুক্তভোগী তরুণী গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর উপজেলার বাঁশবাড়ীয়া ইউনিয়নের ঝুটিগ্রামের কৃষক খাইরুল মিয়ার মেয়ে মনিরা খাতুন (১৮)।

মনিরা খাতুন ২০২০ সালের ৩ মার্চ ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পেটে টিউমার নিয়ে ভর্তি হয়েছিলেন। ভর্তির সাতদিন পর তার অপারেশন করা হয়। তারপর মনিরা সুস্থ হয়ে বাড়িও ফিরে যান। এরপর কেটে গেছে প্রায় দেড় বছর। এই দেড় বছরে তিনি পেটের অসহনীয় যন্ত্রণাভোগের পর এখন মৃত্যু পথযাত্রী। দীর্ঘ এ সময়ে শরীর সোজা করে দাঁড়াতেও পারেননি। গত দু’তিনদিনে তার অবস্থা মুমূর্ষু পর্যায়ে পৌঁছানোর পর এক্সরে করলে পেটের ভেতর কাঁচি থাকার বিষয়টি ধরা পড়ে।

এ বিষয়ে ডা. রতন কুমার সাহা জানান, আমরা তিন ঘণ্টা চেষ্টার পর অপারেশন করে কাঁচিটি বের করতে সক্ষম হই। মনিরা অজ্ঞান রয়েছে তাই সুস্থ না হওয়া পর্যন্ত কিছু বলা যাচ্ছে না। দীর্ঘদিন পেটের ভিতরে কাঁচি থাকার কারণে তার পেটের নাড়ির কিছু অংশ পচন ধরায় কেটে ফেলতে হয়েছে। তার কৃত্রিম নাড়ি লাগানো লাগতে পারে।

ফরিদপুরের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডা. সাইফুর রহমান বলেন, “শনিবার (১১ ডিসেম্বর) দুপুরে মনিরার পেটে থেকে কাঁচি বের করার জন্য অপারেশন করা হয়েছে। তার সুস্থতায় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে কাজ করছি।”

About

Popular Links