Tuesday, May 28, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

প্রধানমন্ত্রীর উপহারের ঘর পাচ্ছেন ভূমিহীন মীম

মীমের অভিযোগ, স্থায়ী ঠিকানা না থাকার কারণে তার চাকরি হচ্ছে না। তবে পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, স্বাস্থ্য পরীক্ষায় অনুত্তীর্ণ হওয়ায় মীম বাদ পড়েছেন

আপডেট : ১৩ ডিসেম্বর ২০২১, ১১:২৪ পিএম

পুলিশের কনস্টেবল নিয়োগ পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েও চাকরি না পাওয়া খুলনার মীম আক্তারকে ঘর দিচ্ছে জেলা প্রশাসন। প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ন প্রকল্পের আওতায় তার পরিবারকে ঘরটি দেওয়া হচ্ছে।

সোমবার (১৩ ডিসেম্বর) খুলনা জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান তালুকদার ঢাকা ট্রিবিউনকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

জেলা প্রশাসক বলেন, “স্থায়ী ঠিকানা না থাকায় মীম আক্তারের চাকরি হচ্ছে না, এমন অভিযোগ পাওয়ার পর তাকে প্রধানমন্ত্রীর উপহারের জমি ও ঘর দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তিনি যেহেতু খুলনা শহরেই থাকেন তাই খুলনা শহর বা আশেপাশের এলাকাতেই তাকে জমি ও ঘর দেওয়ার চেষ্টা চলছে। দ্রুততম সময়ের মধ্যে ঘরটি হস্তান্তর করা হবে।”

এর আগে গত ১১ ডিসেম্বর মীম আক্তার অভিযোগ করেছিলেন, পুলিশের নিয়োগ কার্যক্রমে অংশ নিয়ে প্রতিটি ধাপ সাফল্যের সঙ্গে উত্তীর্ণ হলেও স্থায়ী ঠিকানা না থাকার কারণে তার চাকরি হচ্ছে না।

তবে খুলনার পুলিশ সুপার (এসপি) মোহাম্মদ মাহবুব হাসান ঢাকা ট্রিবিউনকে জানিয়েছিলেন, “স্থায়ী ঠিকানা নয়, স্বাস্থ্যপরীক্ষায় অনুত্তীর্ণ হওয়ায় মীমকে চাকরি দেওয়া সম্ভব হয়নি।” 

সোমবার জেলা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (দক্ষিণ) তানভির আহম্মেদ জানান, “মীমের পুরো বিষয়টি পুলিশ হেড কোয়ার্টারে জানানো হয়েছে। তার চাকরির ব্যাপারে কোনো সিদ্ধান্ত এলে জানিয়ে দেওয়া হবে।” 

মীমদের পৈত্রিক বাড়ি বাগেরহাটের বাড়ি বাগেরহাট জেলার চিতলমারি উপজেলার বড়বাড়িয়া গ্রামে। তার বাবা রবিউল ইসলাম পেশায় একজন ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী। পরিবার নিয়ে ১৯৮৮ সাল থেকে থাকেন খুলনা শহরের সোনাডাঙ্গা ৩ নম্বর আবাসিক এলাকায়।

এ বছর পুলিশের কনস্টেবল পদে সাধারণ (নারী) কোটায় আবেদন করেন মীম আক্তার। গত ২৫ অক্টোবর থেকে তিন দিন ধরে খুলনা শিরোমনি পুলিশ লাইন্সে চলা শারীরিক যোগ্যতা যাচাই পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন তিনি। এরপর ২৮ ডিসেম্বর খুলনা সরকারি মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে হওয়া লিখিত পরীক্ষায়ও উত্তীর্ণ হন। মনস্তাত্ত্বিক ও মৌখিক পরীক্ষারও বৈতরণীও পার করেন তিনি। 

ফল প্রকাশের পর জানা গেলো, নিয়োগ পরীক্ষার মেধা তালিকায় প্রথম হয়েছেন মীম। এরপর খুলনা জেলা পুলিশ লাইন্সে সাধারণ মেডিকেল পরীক্ষায়ও তাকে উত্তীর্ণ বলে ঘোষণা করা হয়। 

কিন্তু পরে জানা যায়, তার চাকরি হচ্ছে না। মীমের অভিযোগ ছিল, “ভূমিহীন” হওয়ায় তার চাকরিটি হচ্ছে না। তবে পরে পুলিশ জানায়, “ভূমিহীন” হওয়ার কারণে নয়, শারীরিক পরীক্ষায় অনুত্তীর্ণ হওয়ার কারণেই মীমের চাকরিটি হয়নি।

About

Popular Links