Sunday, May 19, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

শিক্ষা কর্মকর্তাকে চড় দেওয়ায় মেয়রের বিরুদ্ধে মামলা

আপডেট : ১৭ ডিসেম্বর ২০২১, ০৯:৩১ এএম

জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জ উপজেলায় শিক্ষা কর্মকর্তাকে চড় মারার অভিযোগে পৌরসভা মেয়র মো. শাহনেওয়াজ শাহানশাহর বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৬ ডিসেম্বর) রাত ৯টার দিকে ভুক্তভোগী উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. মেহের উল্লাহ বাদী হয়ে মামলাটি করেন। ঢাকা ট্রিবিউনকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন দেওয়ানগঞ্জ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্মদ মহব্বত কবীর। 

তিনি জানান, বিজয় দিবসের অনুষ্ঠানে দায়িত্বপালনের শিক্ষা কর্মকর্তাকে দুটি চড় মারা এবং লাঞ্ছিত করার অভিযোগে থানায় মামলা হয়েছে। মামলায় মেয়রকে একমাত্র আসামি করা হয়েছে। তাকে গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে। দ্রুত সময়ের মধ্যে তাকে গ্রেপ্তার করা হবে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, দেওয়ানগঞ্জ সরকারি হাইস্কুল মাঠে বৃহস্পতিবার উপজেলা প্রশাসন বিজয় দিবসের অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। ওই অনুষ্ঠানে উপস্থাপকের দায়িত্ব পান মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো.মেহের উল্লাহ। ভোর থেকে ওই মাঠের শহীদ মিনারে উপজেলা প্রশাসনসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ ফুলের শ্রদ্ধা নিবেদন করছিলেন। এ সময় দেওয়ানগঞ্জ পৌরসভার মেয়র মো.শাহনেওয়াজ শাহানশাহ ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করতে আসেন। 

উপস্থাপক শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্যে মাইকে প্রশাসন ও বিভিন্ন সংগঠনের নাম ঘোষণা করছিলেন। পৌরসভার নাম ক্রমিকের ৫ নম্বরে ঘোষণা করায় মেয়র প্রকাশ্যে ওই মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তাকে অকথ্য গালিগালাজ করেন এবং তাকে চড় মারেন। 

প্রকাশ্যে এই ধরনের ঘটনা ঘটলেও তাৎক্ষণিক প্রতিবাদ করার সাহস কেউ পাননি। 

উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মো. মেহের উল্লাহ বলেন, “জেলা প্রশাসক মোর্শেদা জামানের পরামর্শে  অনুযায়ী আমি থানায় মামলা করেছি। দ্রুত সময়ের মধ্যে আসামির গ্রেপ্তার ও তার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।”

এ ব্যাপারে মেয়র মো.শাহনেওয়াজ শাহান শাহ্  মোবাইল ফোনে বলেন, “বিজয় দিবসের অনুষ্ঠানে শিক্ষা কর্মকর্তা মাইকে ছিলেন। প্রটোকল অনুযায়ী পৌরসভার নাম ঘোষণা হবে ৪ নম্বরে। কিন্তু তিনি পৌরসভার নাম ঘোষণা করেন উপজেলা অফিসার্স ক্লাবের পরে ৮ নম্বরে। প্রটোকল অনুযায়ী পৌরসভার নাম প্রটোকল অনুযায়ী ঘোষণা না করে অপমান করা হয়েছে। তাই তার সঙ্গে তর্ক হয়েছে। তাকে গালিগালাজ করেছি। তার গায়ে কেন হাত দেবো? গায়ে হাত দেওয়ার বিষয়টি মিথ্যা।”

এমন কোনো ঘটনা ঘটেনি বলে দাবি করেন তিনি।



About

Popular Links