Saturday, June 15, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

চালু হচ্ছে দুটি সরকারি বন্ডেড ওয়্যারহাউস, ভাঙছে মদের সিন্ডিকেট

কূটনৈতিক বন্ডেড ওয়্যারহাউসগুলোর দায়িত্ব যাতে সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলো নেয়, এমন ইচ্ছা থেকেই এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার

আপডেট : ০৭ মার্চ ২০২৪, ০৩:৩৭ পিএম

রাজস্ব ফাঁকি ঠেকাতে গত ২ জুলাই থেকে বন্ডেড ওয়্যারহাউসগুলোর জন্য একটি সফটওয়্যার ব্যবহার বাধ্যতামূলক করে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)। এ ঘোষণার প্রতিবাদে ধর্মঘট ডাকে বেসরকারি ৬টি কূটনৈতিক বন্ডেড ওয়্যারহাউস। এ কারণে দেশের মদের বাজারে সংকট তৈরি হয়।

চলমান এ সংকটের মুখে রাষ্ট্রায়ত্ত্ব প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ পর্যটন কর্পোরেশন এবং হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টাল ঢাকাকে ডিপ্লোমেটিক বন্ডেড ওয়্যারহাউসের লাইসেন্স দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে এনবিআর।  

এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে ইংরেজি দৈনিক দ্য বিজনেস স্ট্যান্ডার্ডের অনলাইন সংস্করণ।

এনবিআর সূত্রের বরাত দিয়ে প্রতিবেদনে বলা হয়, ওয়্যারহাউসগুলো মদ বিক্রি বন্ধ রাখায় রাজস্ব বোর্ড একটি নতুন লাইসেন্স ইস্যু করে। যার শর্ত হলো, মদের বাজারে সফটওয়্যারটি ব্যবহারের মাধ্যমে অটোমেশন প্রক্রিয়া বহাল রাখতে হবে।

পর্যটন কর্পোরেশন এবং হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টাল ঢাকাকে মদ আমদানির জন্য বাংলাদেশ ব্যাংক এবং বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের কাছ থেকে একটি “অনাপত্তি” সনদ সংগ্রহ করতে বলা হয়েছে।

নতুন লাইসেন্স ইস্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে কাস্টমস বন্ড কমিশনারেট কমিশনার কাজী মুস্তাফিজুর রহমান জানান, কূটনৈতিক বন্ডেড ওয়্যারহাউসগুলোর দায়িত্ব যাতে সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলো নেয়, এমন ইচ্ছা থেকেই এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।

বন্ডেড ওয়্যারহাউসের কার্যক্রম অটোমেশনের আওতায় আসছে

জানা গেছে, বন্ডেড কার্যক্রমকে অটোমেশনের আওতায় আনতে একটি নতুন বিধিমালা প্রবর্তন করতে যাচ্ছে সরকার। বন্ডেড ওয়্যারহাউস লাইসেন্সিং আইন ২০০৮-এর অধীনে এ প্রক্রিয়া বাস্তবায়িত হবে।

শুল্ক আইন ১৯৬৯-এর ধারা ১১৯ক অনুযায়ী, বিশেষ কোনো কারণে নতুন নিয়ম যুক্ত বা পরিবর্তনের ক্ষমতা রাখে এনবিআর।

এই ক্ষমতাবলে নতুন বিধিমালার মধ্যে ইলেক্ট্রনিক বন্ডেড কার্যক্রম সংযুক্ত করতে যাচ্ছে এনবিআর। ধারণা করা যায়, দেশের মদের বাজারে সফটওয়্যার প্রযুক্তি চালুর বিষয়ে দৃঢ় সংকল্পবদ্ধ রাজস্ব বোর্ড।

এদিকে, এনবিআর এর এই সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করে বন্ডেড ওয়্যারহাউসগুলোর দায়ের করা রিট পিটিশনের জবাবে গত ৩০ নভেম্বর রাজস্ব বোর্ডের সিদ্ধান্ত বাতিল করেন হাইকোর্ট।   

তবে এনবিআর ইতোমধ্যে আদালতের এই আদেশের বিরুদ্ধে আপিল করেছে।

তবে হাইকোর্টের রায় পক্ষে যাওয়া সত্ত্বেও রাজস্ব কর্তৃপক্ষের সবুজ সংকেত না পাওয়ায় এখনও মদ বিক্রি শুরু করেনি ওয়্যারহাউসগুলো।

এ বিষয়ে এক শীর্ষ এনবিআর কর্মকর্তা গণমাধ্যমকে বলেন, বন্ডেড ওয়্যারহাউসগুলো সফটওয়্যারের মাধ্যমে মদ বিক্রি করলে রাজস্ব বোর্ডের কোনো আপত্তি নেই।

কূটনীতিবীদদের জন্য বিনাশুল্কে আমদানি করা মদগুলো প্রায়ই কূটনৈতিক পাসবুকের অপব্যবহারের মাধ্যমে অবৈধ পথে চালান হয়, এ তথ্য মোটামুটি সবাই জানেন।

বন্ডেড ওয়্যারহাউসগুলো ছাড়া দেশে আরও ৩৭টি প্রতিষ্ঠানের মদ আমদানির লাইসেন্স রয়েছে। কিন্তু মাত্র ৬টি বন্ডেড ওয়্যারহাউস মদ বিক্রি বন্ধ রাখায় মদের বাজারে হাহাকার দেখা দেয়। এ ঘটনা থেকে বোঝা যায়, শুল্কমুক্ত মদ আমদানিকারকরাই অবৈধ উপায়ে মদ সরবরাহের মূল হোতা।

তাই অবৈধ ব্যবসা ও শুল্কমুক্ত আমদানি সুবিধার অপব্যবহার ঠেকাতে এবং ওয়্যারহাউসগুলোকে কঠোর নজরদারির আওতায় আনতে একটি সফটওয়্যার ব্যবহার করতে চাইছে এনবিআর।

ওয়্যারহাউসগুলো বর্তমানে পাসবুকের হার্ডকপি দেখে মদ বিক্রি করে থাকে। এক্ষেত্রেও রয়েছে সমস্যা। যেসব বিদেশি কূটনীতিক বাংলাদেশ ছেড়ে চলে গেছেন কিন্তু তাদের পাসবুকগুলো পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে ফেরত দেননি, সেগুলোর পাশাপাশি জাল পাসবুক ব্যবহৃত হয় এক্ষেত্রে।

বেসরকারি ওয়্যারহাউসগুলো এসব পাসবুকের বিরুদ্ধে বিক্রি দেখিয়ে বড় অংকের মুনাফায় কালোবাজারে মদ বিক্রি করে। সরকারের বিভিন্ন দপ্তরে এই মুনাফার কিছু অংশ পৌঁছায়।

কিন্তু সফটওয়্যারের মাধ্যমে এই বিক্রয় ট্র্যাক করা হলে ওয়্যারহাউসগুলোকে প্রয়োজনীয় তথ্য ইনপুট দিতে হবে সিস্টেমে। প্রতিটি কূটনৈতিক ওয়্যারহাউসকে বন্ড অটোমেশন সিস্টেমে আমদানি সংক্রান্ত সমস্ত তথ্য যেমন- বিল অব এন্ট্রি নম্বর, আমদানির তারিখ, অফিস কোড, চালান নম্বর ও তারিখ, ক্রয় করা পণ্যের নাম, ভলিউম ও মূল্য ইত্যাদি লিখতে হবে।

বিক্রির সময় তাদের সিস্টেমে লগ ইন করতে হবে এবং সফটওয়্যারে পাসবুক বা ট্যাক্স এক্সেম্পশন সার্টিফিকেট (টিইসি) নম্বর, বিক্রি হওয়া পণ্যের নাম, ভলিউম, বিল অব এন্ট্রি নম্বর ও মূল্য সম্পর্কে প্রয়োজনীয় সব তথ্য ইনপুট দিতে হবে।

এতদিন ধরে এনবিআরকে ম্যানুয়ালি তথ্য সরবরাহ করতো বন্ডেড ওয়্যারহাউসগুলো। কিন্তু নতুন করে সফটওয়্যার ব্যবহার শুরু করায় আগের অনিয়ম বহাল রাখতে পারছে না তারা।

About

Popular Links