Saturday, May 25, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

৩০ বছরের মধ্যে সবচেয়ে কম ঠান্ডা এ বছরের ৩১ ডিসেম্বরে

গত ৩০ বছরের তুলনায় এ বছরের ৩১ ডিসেম্বর দেশব্যাপী তাপমাত্রা ১ থেকে ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস বেশি ছিল বলে বিগত বছরের তথ্য বিশ্লেষণ করে জানা গেছে

আপডেট : ৩১ ডিসেম্বর ২০২১, ০৬:১৬ পিএম

বিগত ৩০ বছরের মধ্যে এ বছরের ৩১ ডিসেম্বর সবচেয়ে কম ঠাণ্ডা পড়েছে। গত ৩০ বছরের তুলনায় এ বছরের ৩১ ডিসেম্বর দেশব্যাপী তাপমাত্রা ১ থেকে ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস বেশি ছিল বলে বিগত বছরের তথ্য বিশ্লেষণ করে জানা গেছে।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের তথ্যানুযায়ী, শুক্রবার (৩১ ডিসেম্বর) দেশের বিভিন্ন স্থানে তাপমাত্রা ৮.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস থেকে ১৮ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে ছিল। যা গত ৩০ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ। এর মধ্যে রাজধানীতে ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস বেশি তাপমাত্রা ছিল, যা দেশের অন্যান্য অংশের তুলনায় সবচেয়ে বেশি।

দৈনিক প্রথম আলোকে আবহাওয়া অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ মুহাম্মদ আবুল কালাম মল্লিক জানান, বিগত ৩০ বছরের ৩১ ডিসেম্বরের তুলনায় এ বছরের ৩১ ডিসেম্বর তাপমাত্রা ১-৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস বেশি। বাতাসে জলীয় বাষ্পের পরিমাণ বেশি থাকা, প্রতি ঘণ্টায় বাতাসের গতিবেগ কম থাকা এবং সর্বোচ্চ ও সর্বনিম্ন তাপমাত্রার মধ্যে পার্থক্য বেশি থাকায় রাজধানীতে শীত কম অনুভূত হচ্ছে।

তিনি আরও জানান, সামনের সপ্তাহে এ অবস্থার পরিবর্তন ঘটলে ঢাকায় শীত পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। 

আবহাওয়া অধিদপ্তরের তথ্য অনুসারে, শুক্রবার দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায় ৮.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে সীতাকুণ্ডতে। এছাড়া, রাজধানীতে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৬.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ২৬.১ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়েছে। 

তবে, হিমালয়ের ঠাণ্ডা বাতাস প্রবেশ করায় রংপুর, রাজশাহী ও ময়মনসিংহ এবং মেঘালয়, নাগাল্যান্ড, অরুণাচলের ঠাণ্ডা বাতাস প্রবেশ করায় সিলেট অঞ্চলে তীব্র শীত পড়েছে।

জানা গেছে, শুক্রবার সকালে ঢাকার বাতাসে জলীয় বাষ্পের পরিমাণ ছিল ৮১%। দুপুরের পর তা কমে ৭২% হয়েছে। অন্যদিকে, রংপুর, রাজশাহী, ময়মনসিংহ ও সিলেট অঞ্চলে জলীয় বাষ্পের পরিমাণ গড়ে ৬০% থেকে ৪০%-এর মধ্যে ছিল।

আবহাওয়াবিদ মুহাম্মদ আবুল কালাম মল্লিক আরও জানান, নতুন বছরের প্রথম দিন থেকে রাজধানীতে শীত বাড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এ সময় ঢাকায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১২-১৬ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যেই থাকবে।তবে, পঞ্চগড় ও কুড়িগ্রাম জেলায় মৃদু শৈত্যপ্রবাহ অব্যাহত থাকবে।

About

Popular Links