Sunday, June 16, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

২০২১ সালে দেশে ধর্ষণের শিকার ১,৮৩৩ জন নারী

এদের মধ্যে ২৯৬ জন নারী গণধর্ষণের শিকার হয়েছেন

আপডেট : ০১ জানুয়ারি ২০২২, ০৪:৫৪ পিএম

২০২১ সালে বাংলাদেশে ১,৮৩৩ জন নারী ধর্ষণের শিকার হয়েছেন বলে হিউম্যান রাইটস সাপোর্ট সোসাইটির (এইচআরএসএস) এক বার্ষিক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

ধর্ষণের শিকার নারীদের মধ্যে ১,০৪৭ জনের বয়সই ১৮ বছরের কম। আর ধর্ষণ থেকে বেঁচে যাওয়াদের মধ্যে ২৯৬ জন নারী গণধর্ষণের শিকার হয়েছেন। অন্যদিকে, ধর্ষণের পর ৫২ জন নারীকে হত্যা করা হয়েছে।

এইচআরএসএস আরও জানিয়েছে, এ সংখ্যা আরও বেশি হতে পারে কারণ বিভিন্ন সংবাদপত্র থেকে তথ্যগুলো সংকলন করা হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এই তথ্য থেকে আরও জানা যায় নারীরা এখনও যৌতুক না দেওয়ার জন্য নির্যাতনের শিকার হচ্ছে।

এইচআরএসএস-এর তথ্য অনুযায়ী, ২০২১ সালে যৌতুক দিতে অস্বীকার করায় ১১৩ জন নারীকে শারীরিকভাবে নির্যাতন করা হয়েছে এবং ৪২ জনকে হত্যা করা হয়েছে।

অন্যদিকে, বাংলাদেশে বহু বছর ধরে চলে আসা অ্যাসিড হামলার বিরুদ্ধে যথেষ্ট এবং ব্যাপক সামাজিক সচেতনতামূলক প্রচারাভিযান সত্ত্বেও এখনও তা অব্যাহত রয়েছে। ২০২১ সালে, অ্যাসিড হামলায় চারজন নিহত এবং আরও ২৪ জন আহত হয়েছেন।

রাজনৈতিক অস্থিরতা মৃত্যুর আরেকটি বড় কারণ। ২০২১ সালে, রাজনৈতিক অস্থিরতার কারণে ৪,৩৫২ জন আহত এবং ৮২ জন নিহত হয়েছেন। 

এছাড়া, ২০২১ সালের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের সময় অন্তত ৫,৪০১ জন আহত এবং ১৭ জন নিহত হয়েছেন।

এইচআরএসএসের মতে, বাংলাদেশের সংবাদপত্রের স্বাধীনতাও হ্রাস পাচ্ছে। ২০২১ সালে রাজনৈতিক অস্থিরতার ১৭৩টি ঘটনায় ১২৭ সাংবাদিক আহত হয়েছেন।

এছাড়াও, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ২০১৮-এর অধীনে ১৮৯ সাংবাদিককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে এই বিতর্কিত আইনের অধীনে মোট ২২১টি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

বাংলাদেশও ২০২১ সালে বিভিন্ন জেলায়, বিশেষ করে দুর্গা পূজার সময় সাম্প্রদায়িক সহিংসতার সাক্ষী হয়েছে। ৮৫টি হামলায় তিনজন নিহত, ৫৯ জন আহত এবং ৯৮টি মন্দির ও সংখ্যালঘু গোষ্ঠীর ৩৫টি বাড়ি ভাঙচুর করা হয়েছে।

এছাড়া, দেশে গত বছর বিচারবহির্ভূত মৃত্যুদণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। আইন প্রয়োগকারী কর্মকর্তারা “ক্রসফায়ার” বা “বন্দুকযুদ্ধে” ৮২ জনকে হত্যা করেছে বলে জানা গেছে।

About

Popular Links