Monday, May 27, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

ইউটিউব দেখে বস্তায় আদা চাষে কৃষকের বাজিমাত

স্বল্প পরিসরে এ পদ্ধতিতে চাষের মাধ্যমে পারিবারিক চাহিদাও মেটানো সম্ভব

আপডেট : ২৭ জুলাই ২০২৩, ০৪:৪৩ পিএম

কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে পতিত জমিতে বস্তায় আদা চাষ করে সাফল্য পেয়েছেন স্থানীয় এক চাষি। উপজেলার জগন্নাথপুর ইউনিয়নের হাজী পাড়া গ্রামের আসাদুর রহমানের তাক লাগানো সাফল্য বস্তা পদ্ধতিতে আদা চাষে আগ্রহ বাড়ছে স্থানীয় কৃষকদের মাঝেও।

ভেষজ গুণসম্পন্ন মসলা আদা গাছ রোপণের মাত্র তিন মাসের মাথায় ফলন দিতে শুরু করেছে বলে ঢাকা ট্রিবিউনকে জানান চাষি আসাদুর রহমান।

প্রথমে তিনি ইউটিউব দেখে আদা চাষে আগ্রহী হয়ে ওঠেন, এরপর ময়মনসিংহ এক কৃষকের পরামর্শ নিয়ে চাষ শুরু করেন বলে জানান।

প্রথমে ছাই, জৈব সার ও বালু মিশিয়ে মাটি প্রস্তুত করেন। পরীক্ষামূলকভাবে এককাঠা জমিতে দুইশটি বস্তায়  মাটি ভরাট করে টবের মতো করেন তিনি। প্রতিটি বস্তায় তিন থেকে চারটি  করে আদার চারা রোপণ করেন। 

আসাদুর রহমান বলেন, “এভাবে আদা চাষে সবচেয়ে বড় সুবিধা হলো, পতিত জমিতে খুবই সীমিত খরচ আর অল্প শ্রমে চাষ করা সম্ভব।”

একেকটি বস্তায় প্রায় দুই কেজি পর্যন্ত আদা পাওয়া যাবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, “আদা গাছে পানির চাহিদা অনেক কম। আবার সার বা কীটনাশক ব্যবহার করতে হয় খুবই কম। মাঝে মধ্যে পাতা মরা রোগ প্রতিরোধে কিছু ওষুধ স্প্রে করতে হয়। এর বাইরে তেমন কোনো পরিচর্যা করতে হয় না। এভাবে আদা চাষ করে সহজেই লাভবান হওয়া যায়।”

তিনি আরও বলেন, “প্রথম অবস্থায় অল্প পরিসরে চাষ করেছি। এ বছর যদি লাভ ভালো হয়, তাহলে আগামীতে আরও বড় পরিসরে আদা চাষ করবো। একটি বস্তায় চারা রোপণ করতে মোট খরচ প্রায় ৩০ টাকা। কিন্তু একেকটি বস্তায় আদা পাওয়া যাবে প্রায় দুই থেকে আড়াই কেজি। বর্তমানে দুই কেজি আদার বাজার মূল্য ২০০ টাকা।”

আসাদুর রহমানের এ পদ্ধতিতে আদা চাষ দেখে এলাকার অনেক মানুষের মধ্যে আগ্রহ তৈরি হয়েছে। আশেপাশের বিভিন্ন গ্রাম থেকে আদা চাষ দেখতে আসেন অনেকে।  

স্থানীয় বাসিন্দা জালাল ঢাকা ট্রিবিউনকে বলেন, “এভাবে আদা চাষ এর আগে আমি দেখিনি। এটি দেখার পরে আমাদের মধ্যে আগ্রহ তৈরি হয়েছে। এরই মধ্যে এই এলাকার বেশ কয়েকজন কৃষক এভাবে আদা চাষ শুরু করেছেন।”

কুমারখালী উপজেলা উপ-সহকারী কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা আরিফুল ইসলাম বলেন, “আদা একটি অর্থকরী ফসল। এ পদ্ধতিতে আদা চাষে জমির চেয়ে রোগবালাইয়ের আক্রমণ হয় কম। বস্তায় আদা চাষে কীটনাশক এবং পানি লাগে অনেক কম। ফলে যেকোনো স্থানে এভাবে আদা চাষ করা সম্ভব পাশাপাশি কেউ চাইলে বাসার ছাদে, বেলকোনিতে এবং বাড়ির সামনে পরিত্যক্ত স্থানেও চাষ করা যায়।”

 তিনি আরও বলেন, “বাণিজ্যিকভাবে যদি কেউ আদা চাষ নাও করতে চায়, স্বল্প পরিসরে এ চাষের মাধ্যমে নিজেদের আদার চাহিদা মেটানো সম্ভব। কেউ যদি এভাবে আদা চাষ করতে চায়, তাহলে আগ্রহীদের প্রশিক্ষণ ও পরামর্শ দেওয়া হবে কৃষি বিভাগের পক্ষ থেকে।”

About

Popular Links