Sunday, May 26, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

রাজনৈতিক দলের দখলে ঢাকার রাজপথ, যানজটের ভোগান্তিতে নগরবাসী

ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার (ট্রাফিক) বলেন, রাজনৈতিক দলগুলো কর্মব্যস্ত দিনে কর্মসূচি না দিয়ে ছুটির দিনগুলোতে এ ধরনের কর্মসূচি পালন করলে জনভোগান্তি কমবে

আপডেট : ১৯ জুলাই ২০২৩, ০৭:৪৩ পিএম

চিরায়ত যানজটের শহর ঢাকায় বসবাসকারী বাসিন্দাদের ভাগ্যে জুটেছে যানজটের নতুন এক ধরন “রাজনৈতিক যানজট”।

সরকার পতনের “এক দফা” আন্দোলনে রয়েছে বিএনপি ও সমমনা জোট। সরকারবিরোধীদের মোকাবিলায় মাঠে রয়েছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। নির্বাচন যত ঘনিয়ে আসছে ঢাকার রাজপথ তত আন্দোলন-সমাবেশের দখলে চলে যাচ্ছে। এতে করে ভোগান্তিতে পড়ছেন সাধারণ মানুষেরা।

বুধবার (১৯ জুলাই) উত্তরা থেকে কুড়িল হয়ে যাত্রাবাড়ি পর্যন্ত পদযাত্রা করেছে বিএনপি। তাদের সমমনা দল ও জোটগুলোও ঢাকার বিভিন্ন রুটে একই কর্মসূচি পালন করেছে। অন্যদিকে আওয়ামী লীগ তেজগাঁওয়ের সাতরাস্তা মোড় থেকে মহাখালী পর্যন্ত “শান্তি ও উন্নয়ন শোভাযাত্রা” করেছে। আওয়ামী লীগের ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠন ছাত্রলীগও ঢাকা বিশ্ববিশ্বব্যালয়ে কর্মসূচি রেখেছিল। 

রাজনীতির বাইরে বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষকরাও আন্দোলনে রয়েছেন। তারা প্রেসক্লাবের সামনে অবস্থান নিয়েছিলেন। সবমিলিয়ে বুধবার ঢাকার বাসিন্দাদের ব্যাপক যানজটের মধ্যে পড়তে হয়। গতকাল মঙ্গলবারও একই ভোগান্তি পোহাতে হয় বাসিন্দাদের।

ঢাকা প্রায় অধিকাংশ রাস্তায় তীব্র যানজট দেখা গেছে। যানজটে আটকে থাকা বিভিন্ন পরিবহনের যাত্রীরা বলছেন, রাজনৈতিক “অস্থিরতার” কারণে তাদের এমন ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে।

ঢাকা ক্যান্টনমেন্ট এলাকা থেকে ধানমন্ডি-৩২-এ এসেছেন সংবাদকর্মী রাফীদ শাদমান। তিনি এই রুটে প্রায় প্রতিদিন-ই যাতায়াত করেন। অন্যসময় তার এই রুটে যাতায়াতে এক ঘণ্টা লাগলেও আজ সময় লেগেছে প্রায় দুই ঘণ্টা।

একই অবস্থা বাড্ডা-যাত্রাবাড়ি ও মগবাজার-মহাখালী রুটেরও।

ঢাকায় যানজটের বিষয়ে বিকেলের দিকে রমনা ট্রাফিক বিভাগের উপ-কমিশনার মো. জয়নাল আবেদীন অনলাইন সংবাদমাধ্যম বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, “শাহবাগ হয়ে প্রেসক্লাব ও গুলিস্তানে গাড়ির ধীরগতি রয়েছে। প্রেসক্লাবের রাস্তাটিও কিছুক্ষণ ধরে বন্ধ রয়েছে। মালিবাগ আবুল হোটেলের সামনে এক পাশ বন্ধ থাকায় যানবাহন আটকে আছে। বিভিন্ন কর্মসূচির জন্য কিছু পয়েন্ট বন্ধ রয়েছে। আমরা স্পটে আছি। নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা করছি।”

এ প্রসঙ্গে ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার (ট্রাফিক) মুনিবুর রহমান চৌধুরী সংবাদমাধ্যমটিকে বলেন, “রাজনৈতিক দলগুলো কর্মব্যস্ত দিনে কর্মসূচি না দিয়ে ছুটির দিনগুলোতে এ ধরনের কর্মসূচি পালন করলে জনভোগান্তি কমবে।”

About

Popular Links