Wednesday, May 29, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

বিপৎসীমার উপরে তিস্তার পানি, লালমনিরহাটে বন্যা

পানির প্রবাহ নিয়ন্ত্রণে তিস্তা ব্যারেজের সব স্লুইস গেট খুলে দেওয়া হয়েছে

আপডেট : ২৫ আগস্ট ২০২৩, ১০:১৫ পিএম

উজান থেকে আসা পানির প্রবাহ ও অবিরাম ভারী বর্ষণের কারণে তিস্তা নদীর পানি বৃদ্ধি পাচ্ছে। এতে লালমনিরহাটের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে।

শুক্রবার (২৫ আগস্ট) বিকেল ৪টা পর্যন্ত দেশের বৃহত্তম সেচ প্রকল্প হাতীবান্ধা উপজেলার ডালিয়া পয়েন্টে তিস্তা ব্যারেজে ৫২.২৬ মিটার (স্বাভাবিক ৫২.১৫ সেন্টিমিটার) পানি প্রবাহিত হয়েছে, যা বিপৎসীমার ১১ সেন্টিমিটারের উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে বলে জানায় পাউবো।

পাউবোর বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্রের নির্বাহী প্রকৌশলী সরদার উদয় রায়হান বিকেলে বলেন, “তিস্তা নদীর ডালিয়া পয়েন্টে মধ্যরাত নাগাদ আরও পানি বাড়তে পারে। বেড়ে সর্বোচ্চ বিপৎসীমার ৩০ থেকে ৪০ সেন্টিমিটার উপর পর্যন্ত যাওয়ার সম্ভাবনা আছে।”

এর আগে, গত ১৪ আগস্ট পানির স্তর বিপৎসীমার ওপরে উঠলেও একদিন পরই তা কমে যায়।

এদিকে পানির প্রবাহ নিয়ন্ত্রণে তিস্তা ব্যারেজের সব স্লুইস গেট খুলে দেওয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার রাত থেকেই পানি বৃদ্ধির সম্ভাবনা হয়। শুক্রবার সকাল ৯টার মধ্যে ডালিয়া পয়েন্টে পানি বিপৎসীমায় পৌঁছে যায়। 

দুপুরের মধ্যে পানি বিপৎসীমার ৩ সেন্টিমিটার ওপরে প্রবাহিত হয়।

ব্যারেজের দায়িত্বে নিয়োজিত কর্মকর্তারা জানান, ভারী বর্ষণ, পাহাড়ি পানির স্রোত এবং ভারতের গাজলডোবা থেকে তিস্তায় পানি আসায় ডালিয়া পয়েন্টে পানির প্রবাহ বৃদ্ধি পেয়েছে।

তিস্তা নদীর তীরের নিম্নাঞ্চলে পানি বৃদ্ধির ফলে লালমনিরহাট জেলায় ব্যাপক বন্যা দেখা দিয়েছে। এই নিম্ন অঞ্চলের ফসলি জমি প্লাবিত হয়েছে।

ইতিমধ্যেই চর এলাকায় যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে, ফলে অনেক এলাকায় চলাচল বন্ধ হয়েছে।

এতে  নিচু অঞ্চলের শত শত পরিবার পানিতে আটকা পড়েছে।

গোবর্ধন চর এলাকার আজিজুল ইসলাম জানান, রাতভর তিস্তার পানির উচ্চতা বেড়ে যাওয়ায় নদীর তীর, রাস্তা ও পুকুরের ধারে জমি তলিয়ে গেছে।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের তিস্তা ব্যারাজ ডালিয়া শাখার নির্বাহী প্রকৌশলী আসফা উদ দৌলা বলেন, “ভারী বৃষ্টি ও ঢলের কারণে পানি বেড়েছে।”

About

Popular Links