Wednesday, May 29, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

ডেঙ্গুতে ইতিহাসের সর্বোচ্চ মৃত্যু আগস্টে, সহসাই মিলছে না মুক্তি

  • ২৮৬ জন মারা গেছেন এ মাসে। আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত ৬০,৫৩২ জন
  • ২০২১ সালে মৃত্যু হয় ২৮১ জনের
  • এ বছর মোট মৃত্যু ৫৩৭ জনের
  • আক্রান্ত হিসেবে মোট শনাক্তের সংখ্যা ১,১২,১৮৪
আপডেট : ২৭ আগস্ট ২০২৩, ০৬:৩১ পিএম

দেশের ইতিহাসে ডেঙ্গুতে এক মাসে সবচেয়ে মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে আগস্টে। এমনকি এ মাসে রোগটির প্রকোপ কমার কোনো লক্ষ্মণও নেই।

এ বছরের আগস্টে ডেঙ্গুতে যে পরিমাণ মৃত্যু হয়েছে, তা ২০২২ সালের মোট মৃত্যুর চেয়েও বেশি।

শনিবার সকাল পর্যন্ত সবশেষ ২৪ ঘণ্টায় ডেঙ্গুতে আরও নয়জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে পাঁচজন ঢাকার। এ নিয়ে এই বছরে মৃত্যুর সংখ্যা ৫৩৭ জনে দাঁড়াল। 

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হিসেবে, একই সময়ে নতুন করে আক্রান্ত ১,৯৬০ জন। এরমধ্যে ৮৩৩ জন ঢাকার বিভিন্ন হাসপাতালে ও বাকিরা অন্যান্য জেলার হাসপাতালে ভর্তি। এই পরিসংখ্যানে দেশজুড়ে ডেঙ্গু পরিস্থিতি অবনতির চিত্র উঠে আসে। 

ঢাকার হাসপাতালগুলোতে মোট ৩,৮৪৬ জনসহ সারাদেশে মোট ৮,২৩২ জন ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালগুলোতে চিকিৎসা নিচ্ছেন। 

আর এ বছর মোট ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়েছেন ১,১২,১৮৪ জন ও সুস্থ হয়েছেন ১,০৩,৪১১ জন।

জুলাইয়েই ডেঙ্গু পরিস্থিতির অবনতির চিত্র উঠে এসেছিল। পরের মাসে তা আরও বেড়ে যায়। ডেঙ্গুর প্রাদুর্ভাব ঠেকাতে গত ১১ আগস্ট দ্রুত পদক্ষেপ নেওয়ার পরামর্শ দেয় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।।

সংস্থাটির মতে, তাপমাত্রা বৃদ্ধি ও অস্বাভাবিক আদ্রতা এ বৃষ্টির কারণে ডেঙ্গুর প্রকোপ বেড়েছে। 

সরকার এখনও জনস্বাস্থ্যের জন্য জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেনি। তবে কর্তৃপক্ষের ধারণা, এ অবস্থা নভেম্বর পর্যন্ত চলতে পারে।

২৩ আগস্ট স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, প্রতিবেশী দেশের তুলনায় বাংলাদেশে ডেঙ্গুর প্রকোপ বেশি। 

দেশে ২০২১ সালে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে ২৮১ জনের মৃত্যু হয়। তার আগে এক বছরে সর্বোচ্চ মৃত্যুর সংখ্যা ছিল ২০১৯ সালে ১৬৪ জন। সে বছর আক্রান্ত হন ১,০১,৩৫৪ জন। 

যেখানে এ বছরের আগস্ট মাসের ২৬ দিনেই ৬০,৩৫২ জন আক্রান্ত হয়েছেন। আর মারা গেছেন ২৮৬ জন। গড়ে প্রতিদিন ১০ জনের মৃত্যু ও ২,৩২১ জন করে আক্রান্ত রোগী চিকিৎসা নিয়েছেন।

আগস্টে রেকর্ড করা তথ্য অনুযায়ী এই বছরের মোট আক্রান্তের (১১২,১৮৪ জন) ৫৩% হয়েছে এ মাসেই।

এর মধ্যে সবচেয়ে খারাপ অবস্থা ঢাকার। ডেঙ্গুর হটস্পট হিসেবে উঠে এসেছে রাজধানী। জুলাই ও আগস্ট মাসের প্রথম দুই সপ্তাহে বেশিরভাগ মৃত্যু ও আক্রান্তের ঘটনা ঢাকায়।

তবে গত কয়েকদিন ধরে তা কিছুটা কমে এসেছে। 

হাসপাতালগুলোর তথ্য বলছে, ঢাকার হাসপাতালগুলোতে ডেঙ্গু রোগীর চাপ ধীরে ধীরে কমছে। অর্থাৎ ঢাকাতে ডেঙ্গুর প্রকোপ কমলেও বাইরের অঞ্চলে ডেঙ্গুর প্রকোপ বাড়ছে।

ঢাকার মুগদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডা. মো. নিয়াতুজ্জামান বলেন, “জুলাই মাসের শুরু থেকে প্রতিদিন গড়ে ৬০০ জন ডেঙ্গু রোগী ভর্তি হয়েছেন। আগস্টের মাঝামাঝি থেকে মুগদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ডেঙ্গু রোগীর চাপ ৫০% কমেছে। প্রতিদিন প্রায় ৮০০ জন এই হাসপাতালে ডেঙ্গু পরীক্ষা করাচ্ছেন।”

তিনি বলেন, “জুলাইয়ের শুরু থেকে উদ্বেগজনকভাবে ডেঙ্গু রোগী বেড়েছে। আগস্টের দ্বিতীয় সপ্তাহ পর্যন্ত এই প্রবণতা অব্যাহত ছিল। এজন্য আমরা ডেঙ্গু ইউনিটসহ চিকিৎসা সেবার পরিসর বৃদ্ধি করেছি।”

এদিকে মশাবাহিত রোগ ডেঙ্গুর প্রাদুর্ভাব ঠেকাতে বাংলাদেশকে ১০০ মিলিয়ন ডলার সহায়তার ঘোষণা দিয়েছে বিশ্বব্যাংক।

About

Popular Links