Sunday, May 26, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

র‍্যাগিংয়ের শিকার হয়ে হাসপাতালে পাবনা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের একাধিক শিক্ষার্থী জানান, ঘটনা ধামাচাপা দিতে চেষ্টা করছেন ছাত্রীনিবাসের মালিক আবুল কালাম আজাদ

আপডেট : ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২৩, ১০:৩৩ পিএম

পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (পাবিপ্রবি) এক ছাত্রী র‍্যাগিংয়ের শিকার হয়েছেন। তাকে পাবনা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

শনিবার (১৭ সেপ্টেম্বর) রাতে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস সংলগ্ন রব্বেজ টাওয়ারে (ছাত্রীনিবাস) এ ঘটনা ঘটে।

ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের শিক্ষার্থী। তবে অভিযুক্তদের নাম-পরিচয় জানা যায়নি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের একাধিক সূত্রে জানা গেছে, ওই ছাত্রীনিবাসে বিশ্ববিদ্যালয়য়ের অনেক ছাত্রী ভাড়া থাকেন। শনিবার রাত ৮টার দিকে প্রথম বর্ষের বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থীকে নিজেদের রুমে ডেকে নেন সিনিয়র শিক্ষার্থীরা। ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী অসুস্থতার কথা জানিয়ে যেতে রাজি না হলে সিনিয়ররা ক্ষিপ্ত হয়ে তাকে ছাত্রীনিবাসের ছাদে নিয়ে যান। সেখানে রাত ১১টা পর্যন্ত র‍্যাগিংয়ের নামে তাকে নির্যাতন করা হয়। এতে ওই ছাত্রী অসুস্থ হয়ে পড়লে পাবনা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

র‌্যাগিংয়ের বর্ণনা দিতে দিতে চান না ভুক্তভোগী শিক্ষার্থী। তবে তিনি ঢাকা ট্রিবিউনকে বলেন, “আমি চাই না আমার এ ঘটনা পরিবারের কেউ জানুক। আমি সিনিয়র আপুদের অনেক নিষেধ করার পরেও তারা আমার কথা শোনেননি। এর বেশি কিছু আমি বলতে পারব না।”

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক শিক্ষার্থী জানান, ঘটনা ধামাচাপা দিতে চেষ্টা করছেন ওই ছাত্রীনিবাসের মালিক আবুল কালাম আজাদ।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে আবুল কালাম আজাদ বলেন, “রাতে ১০ জন জুনিয়র শিক্ষার্থীকে কিছু শিক্ষার্থী ডেকে নিয়েছিল। কিন্তু তেমন কিছু হয়নি। বিশ্ববিদ্যালয় থেকে লোকজন এসেছিল। সে একটু অসুস্থ হয়ে গিয়েছিল আরকি।”

বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগের চেয়ারম্যান ড. মো. হাবিবুল্লাহ বলেন, “বিষয়টি জানার পরপরই খোঁজখবর নিয়েছি, চিকিৎসার ব্যবস্থা করেছি। ঘটনাটি অন্য বিভাগের শিক্ষার্থী ঘটিয়েছে। এজন্য আমি তাদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা আমি নিতে পারি না। এ বিষয়ে প্রোক্টর ও ছাত্র উপদেষ্টাকে জানিয়েছি।”

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. কামাল হাসেন ঢাকা ট্রিবিউনকে বলেন, “এমন ঘটনা আমিও শুনেছি। ওই শিক্ষার্থীসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে আগামীকাল বিশ্ববিদ্যালয়ে ডাকা হয়েছে। প্রকৃতপক্ষে কী ঘটেছিল তা জেনে পরে বলতে পারব।”

About

Popular Links