Sunday, May 19, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

খুলনার তিন ডিপো থেকে জ্বালানি তেল উত্তোলন বন্ধ, ১৫ জেলায় সঙ্কট

জ্বালানি তেল ব্যবসায়ী ও শ্রমিকরা তিন দাবিতে ধর্মঘট পালন করছেন

আপডেট : ০১ অক্টোবর ২০২৩, ০৭:৫৭ পিএম

খুলনার তিন ডিপো থেকে তেল উত্তোলন ও পরিবহন বন্ধ রেখে ধর্মঘট পালন করছেন জ্বালানি তেল ব্যবসায়ী ও শ্রমিকরা। জ্বালানি তেল বিক্রিতে কমিশন বৃদ্ধি বাস্তবায়নের দাবিতে এ ধর্মঘট করছেন তারা।

রবিবার (১ অক্টোবর) সকাল আটটা থেকে পদ্মা, মেঘনা ও যমুনা ডিপোতে এ ধর্মঘট পালন শুরু হয়।

এ কারণে ১৫ জেলায় তেল পরিবহন ও সরবরাহ বন্ধ রয়েছে। এতে এ অঞ্চলে তেলের সঙ্কট দেখা দিয়েছে।

জ্বালানি তেল ব্যবসায়ীদের তিন দফা দাবি হলো–  জ্বালানি তেল বিক্রির ওপর প্রচলিত কমিশন কমপক্ষে সাত ভাগ করা, একই সঙ্গে তাদের শিল্প থেকে বাদ দিয়ে কমিশন এজেন্ট ঘোষণা করে গেজেট প্রকাশ করতে হবে। এছাড়া পুরাতন ট্যাংক লরি অবসরের সময় ২৫ বছর থেকে বাড়াতে হবে।

খুলনা বিভাগীয় জ্বালানি তেল পরিবেশক সমিতির সাধারণ সম্পাদক শেখ বাস্তবায়নের হোসেন বলেন, “জ্বালানি তেল বিক্রিতে কমিশন বৃদ্ধির দাবিতে নানা কর্মসূচি পালন করা হয়েছে। ফলে কমিশন বৃদ্ধি সংক্রান্ত একটি গেজেটও প্রকাশ করা হয়। কিন্তু এখনও তা বাস্তবায়ন হয়নি। শুধু গেজেট প্রকাশ নয়, দাবির বাস্তবায়ন করতে হবে। দাবি বাস্তবায়ন না হওয়া পর্যন্ত কর্মসূচি চলবে।”

গত ৩ সেপ্টেম্বর কমিশন বৃদ্ধির দাবিতেই তেল উত্তোলন বন্ধ করেছিলেন জ্বালানি তেল ব্যবসায়ীরা। এরপর সরকারের আশ্বাসে ধর্মঘট প্রত্যাহার করা হয়।

পরবর্তীতে ২৬ সেপ্টেম্বর বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ মন্ত্রণালয় কমিশন বাড়িয়ে একটি প্রজ্ঞাপন জারি করে। সেই অনুযায়ী প্রতি ১০০ টাকার অকটেন বিক্রিতে পাম্প মালিকরা চার টাকা ২৮ পয়সা, পেট্রোল বিক্রিতে ৪ টাকা ৩৪ পয়সা, কেরোসিনে ২ টাকা, এবং ডিজেলে ২ টাকা ৮৫ পয়সা কমিশন পাবে।

এর আগে ডিজেলের ২%, পেট্রোলের ৩% এবং অকটেনের ৪% কমিশন ছিল।

About

Popular Links