Friday, May 24, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

প্রতিমন্ত্রী: জাপানের সঙ্গে বাণিজ্যিক অগ্রাধিকার ইস্যুতে আলোচনা

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী জানান, জাপানের সহযোগিতায় বৃহৎ অবকাঠামো প্রকল্পগুলো শেষের দিকে। মেট্রোরেলের লাইন-৬ এর কাজ প্রায় শেষের দিকে। বিমানবন্দরের তৃতীয় টার্মিনালের আংশিক উদ্বোধন হলো এবং মাতারবাড়ির কাজ এগিয়ে চলছে

আপডেট : ০৭ অক্টোবর ২০২৩, ০৯:৫৬ পিএম

পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম বলেছেন, “জাপানের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক নতুন উচ্চতায় পৌঁছেছে এবং আরও প্রত্যাশা সৃষ্টি হয়েছে। দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্য আরও কীভাবে জোরদার করা যায়, সে বিষয়গুলো নিয়ে তাদের সঙ্গে আলাপ হয়েছে।”

শনিবার (৭ অক্টোবর) রাতে রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী ও  বাংলাদেশে সফররত জাপানের সংসদ-বিষয়ক ভাইস মিনিস্টার মাসাহিরো ওয়াকামুরোর মধ্যে এই আলোচনা হয়। হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের তৃতীয় টার্মিনালের আংশিক উদ্বোধন অনুষ্ঠানে অংশ নিতে ঢাকায় এসেছেন জাপানের এই মন্ত্রী।

বৈঠক শেষে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, “জাপানের সহযোগিতার একটি বড় অংশ হলো বাণিজ্য অগ্রাধিকার। আমরা দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য আরও কীভাবে জোরদার করা যায়- সেটি নিয়ে আলাপ করেছি। এই প্রকল্পগুলো যেন সঠিক সময়ে মসৃণভাবে শেষ হয়, সেটির বিষয়ে জোর দিয়েছি।”

প্রতিমন্ত্রী জানান, জাপানের সহযোগিতায় তৈরি বৃহৎ অবকাঠামোর প্রকল্পগুলো শেষের দিকে। মেট্রোরেলের লাইন-৬ এর কাজ প্রায় শেষের দিকে। খুব শিগগিরই এটি খুলে দেওয়া হবে। তৃতীয় টার্মিনালের আংশিক উদ্বোধন হলো এবং মাতারবাড়ির কাজ এগিয়ে চলছে।

তিনি বলেন, “তৃতীয় টার্মিনালের অপারেশন এবং ব্যবস্থাপনার জন্য জাপান আগ্রহ প্রকাশ করেছে। একাধিক জাপানি কোম্পানির সঙ্গে আলোচনা চলছে।”

প্রতিমন্ত্রী বলেন, “জাপানের মন্ত্রী রোহিঙ্গা ক্যাম্পে যাবেন। এটি বড় এবং জটিল সমস্যা। এটি সমাধানে জাপানের সহযোগিতা প্রয়োজন। মিয়ানমারের সঙ্গে জাপানের একটি ঐতিহাসিক সম্পর্ক আছে। কিন্তু বর্তমান সামরিক শাসকের সঙ্গে যে কারও যোগাযোগ একটি জটিল ও চ্যালেঞ্জিং প্রক্রিয়া। এটি নিয়েও আমরা বিস্তারিত আলোচনা করেছি।”

শাহরিয়ার আলম বলেন, “নির্বাচন প্রসঙ্গে আমরা স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে আমাদের ইচ্ছাটা পুনর্ব্যক্ত করেছি। কিন্তু বাংলাদেশ জাপানের মধ্যে যে সম্পর্ক, দু-একটি রাষ্ট্র থেকে বিভিন্ন সময়ে যে ধরনের উদ্বেগ ও অন্যান্য বিষয়ে শুনেছেন, এ ধরনের কিছু তাদের নেই। আমরা সুষ্ঠু নির্বাচনের বিষয়ে অঙ্গীকার পুনর্ব্যক্ত করেছি। যেটা প্রধানমন্ত্রী বারবার বলেছেন। আর সুষ্ঠু নির্বাচনে সরকার বদ্ধপরিকর।”

About

Popular Links