Tuesday, May 21, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

সেনাপ্রধান: সৌদি আরব-বাংলাদেশ সামরিক সহযোগিতা চুক্তি হচ্ছে

১৪ ফেব্রুয়ারি এই প্রতিরক্ষা সমঝোতা চুক্তি স্বাক্ষর হবার সম্ভাবনা রয়েছে

আপডেট : ০৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১১:৪০ এএম

সৌদি আরবে সফররত বাংলাদেশের সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ বলেছেন, বাংলাদেশের সাথে সৌদি আরব একটি সামরিক সহযোগিতা চুক্তি করতে যাচ্ছে। আগামী ১৪ ফেব্রুয়ারি এই প্রতিরক্ষা সমঝোতা চুক্তি স্বাক্ষর হবার সম্ভাবনা রয়েছে।

ইউএনবি'র প্রতিবেদন অনুসারে, রবিবার সৌদি আরবের রিয়াদস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসের নবনির্মিত ভবন পরিদর্শনকালে এ কথা জানান সেনাপ্রধান।

এদিন তিনি সৌদি আরবের যৌথ বাহিনীর প্রধান ফায়াদ আল রুয়ায়লি সাথে বৈঠক করেন। এছাড়া দেশটির সহকারী প্রতিরক্ষামন্ত্রী মোহাম্মদ বিন আবদুল্লাহ আল-আয়েশের সাথেও রিয়াদে পৃথক একটি বৈঠক করেন সেনাপ্রধান। এ সময় তিনি দুদেশের বিভিন্ন স্বার্থ-সংশ্লিষ্ট বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন।

সেনাপ্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ বলেন, "সৌদি ও ইয়েমেনের সীমান্তবর্তী যুদ্ধবিদ্ধস্ত এলাকায় মাইন অপসারণে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর অংশগ্রহণের বিষয়টি বৈঠকে আলোচনা হয়েছে। এ লক্ষ্যে একটি সমঝোতা চুক্তি প্রস্তুত করা হয়েছে। চুক্তি স্বাক্ষরিত হলে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর দুটি ব্যাটালিয়নের প্রায় ১৮০০ সেনা সদস্য মাইন অপসারণ কাজে নিয়োজিত হবে। যা সৌদি আরব ও বাংলাদেশের সামরিক সম্পর্ককে নতুন উচ্চতায় নিয়ে যাবে"।

এছাড়া বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ইঞ্জিনিয়ারিং কোরের সদস্যদের সৌদি আরবের বিভিন্ন সামরিক, বেসামরিক অবকাঠামো নির্মাণ ও উন্নয়ন কাজে নিয়োজিত করার বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে বলে জানান তিনি।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর অভিজ্ঞ চিকিৎসকদের সৌদি আরবের বিভিন্ন সামরিক খাতে নিয়োজিত করার প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। দেশটি তা গ্রহণ করলে চিকিৎসকগণ কাজের পাশপাশি সৌদি আরবের বিভিন্ন হাসপাতাল থেকে উচ্চতর প্রশিক্ষণও গ্রহণ করতে পারবেন।

সেনাপ্রধান আরও জানান, সৌদি আরবের ইসলামিক মিলিটারি কাউন্টার টেরোরিজম কোয়ালিশনে (আইএমসিটিসি) বাংলাদেশ থেকে একজন ব্রিগেডিয়ার জেনারেলসহ চারজন কর্মকর্তাকে নিয়োগের জন্য নাম দেয়া হয়েছে। এই কোয়ালিশনের সাথে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর সব ধরনের সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে।

তিনি সৌদি আরবের সামরিক কর্মকর্তাদের বাংলাদেশে প্রশিক্ষণ গ্রহণের কথা তুলে ধরে বলেন, "সৌদি আরবের সেনা, নৌ ও বিমান বাহিনীর কর্মকর্তারা বাংলাদেশে মিলিটারি একাডেমি, ডিফেন্স কলেজ ও ডিফেন্স সার্ভিসেস কমান্ড ও স্টাফ কলেজে প্রশিক্ষন গ্রহণ করছে। বাংলাদেশের সাথে সৌদি আরবের চমৎকার বন্ধুত্বপূর্ন সম্পর্ক রয়েছে। ভবিষ্যতে প্রতিরক্ষা খাতে এ সম্পর্ক আরও জোরদার হবে বলে সেনাপ্রধান আশা প্রকাশ করেন"।

সেনাপ্রধান আজিজ আহমেদ রিয়াদস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসের নবনির্মিত ভবন পরিদর্শন করতে এলে তাকে স্বাগত জানান রাষ্ট্রদূত গোলাম মসীহ।

এসময় মিশন উপপ্রধান ড. নজরুল ইসলাম, ডিফেন্স অ্যাটাশে ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ শাহ আলম চৌধুরীসহ দূতাবাসের কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।সেনাপ্রধানের সফরসঙ্গী হিসেবে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারাও সেখানে উপস্থিত ছিলেন।

About

Popular Links