Sunday, May 19, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

দেশের সড়কে চলতে পারবে ৩৭৫ সিসির মোটরসাইকেল

মন্ত্রণালয় বলছে, দেশে উৎপাদিত ৩৭৫ সিসির মোটরসাইকেলের নিবন্ধন পাবে

আপডেট : ১১ অক্টোবর ২০২৩, ১১:৪৭ পিএম

দেশের সড়কে এখন থেকে ৩৭৫ সিসি পর্যন্ত দেশে উৎপাদিত মোটরসাইকেল চলাচল করতে পারবে। বুধবার (১১ অক্টোবর) স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক প্রজ্ঞাপনে এ তথ্য জানিয়েছে।

মন্ত্রণালয় বলছে, দেশে উৎপাদিত ৩৭৫ সিসির মোটরসাইকেলের নিবন্ধন পাবে। এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে সংবাদমাধ্যম প্রথম আলো।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, দেশীয় শিল্প খাতের বিকাশ ও সম্প্রসারণের লক্ষ্যে বিদ্যমান ১৬৫ সিসির পাশাপাশি দেশের অভ্যন্তরে উৎপাদিত ৩৭৫ সিসি পর্যন্ত মোটরসাইকেল নিবন্ধন করা যাবে।

এতদিন ১৬৫ সিসির ওপর মোটরসাইকেল দেশের সড়কে চলাচল করার সুযোগ ছিল না। মন্ত্রণালয়ের এই সিদ্ধান্তের কারণে দেশে মোটরসাইকেলের বাজার বৃদ্ধি পাবে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

২০১৭ সাল পর্যন্ত দেশে মোটরসাইকেলের সিসির সীমা ছিল ১৫৫। ওই বছরের আগস্টে তা বাড়িয়ে ১৬৫ সিসি করা হয়। যদিও পুলিশের মোটরসাইকেলের ইঞ্জিন ক্ষমতার সীমা ছিল না।

মোটরসাইকেল আমদানিকারকেরা সিসির সীমা বাড়ানোর চেষ্টা করলেও নিরাপত্তার স্বার্থে পুলিশ ও দুর্ঘটনার ঝুঁকি বিবেচনায় বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ) এর বিপক্ষে ছিল।

২০২০ সালে ইফাদ অটোস বাংলাদেশে রয়েল এনফিল্ড ব্র্যান্ডের মোটরসাইকেল আনার উদ্যোগ নিলে এই বিষয় আলোচনায় আসে।

ওই বছরের ৫ ডিসেম্বর সরকারকে চিঠি দিয়ে সিসির সীমা ২৫০-তে উন্নীত করার আবেদন করে জাপানি ব্র্যান্ড কাওয়াসাকি। 

তবে ইফাদ অটোসের সেই উদ্যোগের বিরুদ্ধে দাঁড়ায় দেশে মোটরসাইকেল উৎপাদন করা প্রতিষ্ঠানগুলো। তারা বলেন, হঠাৎ সিসির সীমা তুলে নেওয়া হলে দেশের বিনিয়োগ ক্ষতিগ্রস্ত হবে।

এর আগে, রানার অটোমোবাইলসকে শুধু রপ্তানির শর্তে ৫০০ সিসি ক্ষমতার মোটরসাইকেল উৎপাদনের সুযোগ দেওয়া হয়েছিল।

দেশে বর্তমানে নয়টি মোটরসাইকেল কারখানা রয়েছে। এখন বছরে ছয় লাখ মোটরসাইকেল বিক্রি হয়।

About

Popular Links