Monday, May 20, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

নির্বাচনের আগে রাজনৈতিক সমঝোতা হবে, আশা ইসির

ইসি আনিছুর বলেন, সামনে বড় ধরনের কোনো বাধা দেখছি না। বাধা যেটা সেটা আপনারাও জানেন, সবাই আমরা জানি যে, রাজনৈতিক পরিস্থিতি

আপডেট : ১৮ অক্টোবর ২০২৩, ০৫:০৯ পিএম

নির্বাচনের আগে দুই রাজনৈতিক শিবিবের মধ্যে দ্বন্দ্ব ছাড়া নির্বাচন কমিশনের কাছে তেমন কোনো বাধা-বিপত্তি নেই বলে জানিয়েছেন নির্বাচন কমিশনার মো. আনিছুর রহমান। তিনি মনে করেন, “নির্বাচনের এখন বেশ সময় হাতে রয়েছে; তার আগে রাজনৈতিক দলগুলো দেশের মানুষের কথা চিন্তা করে সমঝোতায় পৌঁছাবে।”

বুধবার (১৮ অক্টোবর) আগারগাঁওয়ে নির্বাচন ভবনে  সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এসব কথা বলেন।

ইসি আনিছুর রহমান বলেন, “আমরা তো এখনো পর্যন্ত তেমন কোনো পরিস্থিতি দেখছি না যে, আমাদের সামনে কোনো বাধা-বিপত্তি আছে। সামনে বড় ধরনের কোনো বাধা দেখছি না। বাধা যেটা সেটা আপনারাও জানেন, সবাই আমরা জানি যে, রাজনৈতিক পরিস্থিতি- সেটা সমঝোতা একটা হতেও পারে, আবার নাও হতে পারে। তখন পরিবেশ পরিস্থিতি অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।”

তিনি আরও বলেন, “তফসিলের যথেষ্ঠ সময় আছে। আমরা যথাসময়ে তফসিল দেবো। আশা করছি যে, নভেম্বরের যেকোনো একটি সময়ে তফসিল দিয়ে দেবো। নির্বাচনসামগ্রী প্রস্তুত রাখা হচ্ছে, যাতে মাঠ পর্যায়ে প্রক্রিয়া শুরু করা যায়, সে লক্ষ্যে কাজ করছে ইসি।”

এই নির্বাচন কমিশনার বলেন, “আমরা আমাদের কাজ করে যাচ্ছি। নির্বাচনী সামগ্রী পাঠানো থেকে শুরু করে নির্বাচনের সবকিছু এগিয়ে রাখছি। সংবিধান অনুযায়ী নির্বাচন করা ছাড়া আমাদের কোনো গত্যন্তর নেই। যখন নির্বাচনে বাধা সৃষ্টি হবে, তখনই আমরা সেটি সম্পর্কে বলতে পারবো। এই মুহূর্তে কিছু বলার নেই।”

আনিছুর রহমান বলেন, “রাজনৈতিক পরিস্থিতি কী হবে, না হবে কেউ বলতে পারছি না। কাজেই আশা করি যে, একটা ভালো পরিবেশ হবে। পরিস্থিতি ভালো হোক এবং মন্দ যেটাই হোক- তখন কিন্তু আমাদের একার কিছু করার থাকবে না। সেক্ষেত্রে ভোটার উপস্থিতি, ভোটারদের নিরাপত্তার জন্য, রাজনৈতিক দলগুলোরও এগিয়ে আসতে হবে। যদি  সমঝোতা হয়, তাহলে পরিস্থিতি এক রকম হবে। আর সমঝোতা না হলে পরিস্থিতি অন্যরকম হবে। সেটি নির্ভর করবে তখনকার পরিস্থিতির ওপর।”

তিনি আরও বলেন, “এই মহূর্তে আমরা চিন্তা করছি, রাজনৈতিক পরিস্থিতি সমঝোতা বা সমাধানের দিকে যেতে পারে। জনগণ ও দেশের কথা বিবেচনা করে রাজনৈতিক দলগুলোর সমাধানের পথ খুঁজে বের করা উচিত। যদি সমঝোতায় না যায়, তখন পরিবেশ পরিস্থিতি বুঝে আমরা ব্যবস্থা নেবো।”

প্রসঙ্গত, আগামী নভেম্বরে আসন্ন জাতীয় নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার প্রস্তুতি নিচ্ছে নির্বাচন কমিশন। সেই লক্ষ্যে বিশাল কর্মযজ্ঞ নিয়ে এগোচ্ছে সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানটি।

অন্যদিকে, মাঠের রাজনীতি ক্রমাগত জটিল হতে শুরু করেছে। এই নির্বাচন কমিশনের বিলুপ্তি ও পুনর্গঠনের দাবি জানিয়েছে সরকার পতনের এক দফা দাবিতে আন্দোলনে থাকা বিএনপি। আর ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ বলছে, তারা নির্বাচন কমিশনকে স্বাধীন করে দিয়েছে। সেখানে সরকারের কোনো ধরনের হস্তক্ষেপের সুযোগ নেই। নির্বাচন হবে বর্তমান ইসির অধীনে।

About

Popular Links