Friday, May 31, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

কিশোরগঞ্জ ট্রেন দুর্ঘটনা, ১৫ লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর

নিহতদের পরিচয় শনাক্তে হাসপাতালের জরুরি বিভাগের সামনে বড় পর্দায় নিহতদের ছবি প্রদর্শন করা হয়

আপডেট : ২৪ অক্টোবর ২০২৩, ০৩:৪০ পিএম

কিশোরগঞ্জের ভৈরব রেলস্টেশনে যাত্রীবাহী ট্রেন ও মালবাহী ট্রেনের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহতদের মধ্যে ১৫ জনের লাশ শনাক্ত করা হয়েছে। পরে লাশ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

সোমবার (২৩ অক্টোবর) রাতে বিষয়টি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন কিশোরগঞ্জ জেলার পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) পরিদর্শক সাজ্জাদ হোসেন।

তিনি জানান, এখন পর্যন্ত ১৫ জনের লাশ শনাক্ত করা হয়েছে। দুইজনের আঙুলের ছাপ মিলছে না। শনাক্ত করে জেলা প্রশাসন ও পুলিশের মাধ্যমে লাশ হস্তান্তর করা হবে।

পরিচয় শনাক্ত হওয়া ১৫ জনের মধ্যে রয়েছেন- কিশোরগঞ্জের কুলিয়ারচরের জিল্লুর রহমানের ছেলে হুমায়ুন কবির (৫৭), ভৈরবের প্রবুদ চন্দ্র শীলের ছেলে সবুজ চন্দ্র শীল (৫০), ভৈরব রাধানগরের আব্দুল মান্নানের ছেলে আফজাল হোসেন (২৪), ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরাইলের শবত আলীর ছেলে মিজান উদ্দিন সরকার (৬৫), ভৈরবের মানিক মিয়ার ছেলে রাব্বি মিয়া (১৪), ময়মনসিংহ নান্দাইলের শিরু মিয়ার মেয়ে ফাতেমা বেগম (৩০), একই এলাকার সাইজ উদ্দিনের ছেলে সুজন মিয়া ও সুজন মিয়ার ছেলে ইসলামইল (০৮), সুজন মিয়ার ছেলে সজিব (১১), ঢাকার দক্ষিনখান এলাকার আব্দুর রহমানের ছেলে একেএম জালাল উদ্দিন আহমেদ (৩৬), কিশোরগঞ্জের কটিয়াদি এলাকার কাশেম মিয়ার ছেলে গোলাপ মিয়া (৩৪), মিঠামইন এলাকার চাঁন মিয়ার ছেলে সায়মন মিয়া (২৩), একই এলাকার হবিদ মিয়ার ছেলে রাসেল মিয়া (১৪), ময়মনসিংহ নান্দাইলের আরজু মিয়ার মেয়ে হোসনা আক্তার (২৩)।

ভৈরব উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ডা. ইমরান হোসেন অনলাইন সংবাদমাধ্যম বাংলা ট্রিবিউনকে বলেছেন, “৭০ জনকে আহত অবস্থায় এখানে আনা হয়েছিল। তাদের মধ্যে গুরুতর অবস্থায় অনেককে ঢাকায় পাঠানো হয়। আহত ও নিহতদের খোঁজে হাসপাতালে ভিড় জমাচ্ছেন স্বজনরা। ফলে চিকিৎসা কার্যক্রমে কিছুটা বিঘ্ন হচ্ছে। পুলিশ ভিড় কমানোর চেষ্টা করছে।”

নিহতদের পরিচয় শনাক্তে হাসপাতালের জরুরি বিভাগের সামনে বড় পর্দায় নিহতদের ছবি প্রদর্শন করা হয়েছিল বলেও জানান তিনি।

এদিকে, মঙ্গলবার সকালে ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্স সদর দপ্তরের মিডিয়া সেলের উপ-সহকারী পরিচালক শাহজাহান সিকদার বলেন, “ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্স সদর দপ্তরের পরিচালক (অপারেশনস অ্যান্ড মেইনটেন্যান্স) লেফটেন্যান্ট কর্নেল মো. তাজুল ইসলাম চৌধুরীর নেতৃত্বে কমিটিকে পাঁচ কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।

কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন- ময়মনসিংহ ফায়ার সার্ভিসের সহকারী পরিচালক (সদস্য সচিব) মো. মাসুদ সরদার; নরসিংদী ফায়ার সার্ভিসের উপ-পরিচালক (সদস্য) মোহাম্মদ আবুল কালাম আজাদ; কিশোরগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের উপ-পরিচালক (সদস্য) মো. এনামুল হক এবং ভৈরব বাজার ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের (সদস্য) স্টেশন অফিসার মো. আজিজুল হক।

উল্লেখ্য, সোমবার বিকেল পৌনে ৪টার দিকে কিশোরগঞ্জের ভৈরবে যাত্রীবাহী ট্রেন “এগারো সিন্ধু”র সঙ্গে একটি মালবাহী ট্রেনের সংঘর্ষ হয়। মালবাহী ট্রেনটি পেছন থেকে এগারো সিন্ধুকে ধাক্কা দেয়। এতে যাত্রীবাহী এগারো সিন্ধু ট্রেনের পেছনের দুটি বগি তছনছ হয়ে যায়। এ ঘটনায় ১৭ জন যাত্রীর মৃত্যু হয়। আহত হয়েছেন অসংখ্য মানুষ। দুর্ঘটনায় উল্টে যাওয়া তিনটি বগি লাইন থেকে সরিয়ে নেওয়ার পর আজ ভোর সাড়ে ৩টায় উদ্ধার অভিযান শেষ ঘোষণা করা হয়।

About

Popular Links