Sunday, May 19, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

চট্টগ্রামে বাসে আগুন-ভাঙচুর

রাঙ্গুনিয়া থানার ওসি বলেন, ভোর ৪টার দিকে দুর্বৃত্তরা পার্ক করা দুটি বাস ভাঙচুর করে এবং একটিতে আগুন দেয়। এ নিয়ে তদন্ত চলছে

আপডেট : ০২ নভেম্বর ২০২৩, ১২:০৩ পিএম

বিএনপির ডাকা তিন দিনের সর্বাত্মক অবরোধ কর্মসূচির তৃতীয় দিনে চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়ায় একটি যাত্রীবাহী বাসে আগুন ও দুটি বাস ভাঙচুর করেছে দুর্বৃত্তরা।

বৃহস্পতিবার (২ নভেম্বর) ভোরে রাঙ্গুনিয়ার চট্টগ্রাম-কাপ্তাই সড়কের পাশে বনগ্রাম গণবিদ্যালয় এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

রাঙ্গুনিয়া ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের কর্মকর্তা জাহেদুর রহমান ঢাকা ট্রিবিউনকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, “ক্ষতিগ্রস্ত বাসগুলো এবি ট্রাভেলসের; এগুলো লিচুবাগান স্টেশনে পার্ক করা ছিল। বৃহস্পতিবার ভোরে একটি বাসে আগুন ও অন্য দুটি বাস ভাঙচুর করা হয়। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের ইউনিট আধা ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নেভাতে সক্ষম হয়।”

স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মুহাম্মদ ইদ্রিস আজগর জানান, ২০ থেকে ২৫ জনের একটি দল এই অগ্নিসংযোগ ও ভাঙচুরের ঘটনা ঘটান।

রাঙ্গুনিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) চন্দন কুমার চক্রবর্তী বলেন, “ভোর ৪টার দিকে দুর্বৃত্তরা পার্ক করা দুটি বাস ভাঙচুর করে এবং একটিতে আগুন দেয়। এ নিয়ে তদন্ত চলছে।”

এর আগে বুধবার সকালে রাঙ্গুনিয়ার চন্দ্রঘোনা-কদমতলী ইউনিয়নের চৌধুরী গোট্টা এলাকায় দুটি খালি ট্রাকে আগুন ধরিয়ে দেয় দুর্বৃত্তরা।

প্রসঙ্গত, বিএনপির ডাকা টানা তিন দিনের অবরোধের শেষ দিন আজ বৃহস্পতিবার। গত দুই দিন অবরোধ চলাকালে দেশের বিভিন্ন স্থানে সংঘর্ষ, হামলা, ভাঙচুর, গাড়িতে অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটেছে। বৃহস্পতিবারও বেশ কিছু জায়গায় বাসে আগুন দেওয়ার ঘটনা ঘটেছে। তবে এই আগুন বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা দিয়েছে কিনা তা নিশ্চিত করতে পারেনি প্রশাসন।

গত এক বছরেরও বেশি সময় ধরে সরকার পতনের এক দফা দাবিতে শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি পালন করে আসছে বিএনপি ও সমমনা দলগুলো। গত ২৮ অক্টোবর ঢাকায় মহাসমাবেশের ডাক দেয় বিএনপি। বিপুল জমায়েত হয় তাদের এই মহাসমাবেশে। সমাবেশ চলাকালে এক পর্যায়ে আওয়ামী লীগ ও পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ শুরু হয় বিএনপি নেতাকর্মীদের। মহাসমাবেশ পণ্ড হলে তারা হরতাল অবরোধ কর্মসূচিতে যায়।

গত রবিবার সারাদেশে সকাল-সন্ধ্যা হরতাল পালন করে বিএনপি। এদিন সারাদেশে বিএনপি নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশ ও আওয়ামী লীগের সংঘর্ষ বাধে। লালমনিরহাটে এক যুবলীগ নেতার মৃত্যুর ঘটনা ঘটে। এছাড়া বিপুল পরিমাণ বিএনপি নেতাকর্মীকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

গত ৩১ অক্টোবর শুরু হওয়া টানা অবরোধেও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। নারায়ণগঞ্জে তিন পুলিশ সদস্যকে কুপিয়ে জখম করে বিএনপি নেতাকর্মীরা। অন্যদিকে কিশোরগঞ্জে ও সিলেটে পুলিশ ও আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের সঙ্গে সংঘর্ষে বিএনপির তিনজনের মৃত্যু হয়।

About

Popular Links