Wednesday, May 22, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

বাথরুমে মেয়ের ধাক্কা, মায়ের মৃত্যু

নিহত মাকসুদা বেগম ফুটপাতে চায়ের দোকান করতেন, আর অভিযুক্ত মেয়ে স্মৃতি বেগম পেশায় হকার

আপডেট : ০৩ নভেম্বর ২০২৩, ০৪:১৮ পিএম

ফুটপাতে চায়ের দোকান করতেন মাকসুদা বেগম (৬৫)। বেশ কিছুদিন ধরে তিনি অসুস্থতার কারণে চলাচলে অক্ষম হয়ে পড়েন। বিছানায় প্রস্রাব–পায়খানা করেন। রাজধানীর মধ্য বাড্ডার ব্যাপারীপাড়া এলাকার একটি বাসায় মেয়ে স্মৃতি বেগমের (২৭) সঙ্গে থাকতেন। স্মৃতিও ফুটপাতের হকার।

বৃহস্পতিবার (২ নভেম্বর) দিবাগত রাতে মাকসুদা বেগমের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বাড্ডা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আব্দুল কাইয়ুম।

তিনি বলেন, “প্রাথমিকভাবে জানা গেছে, রাতে বাথরুমে মাকে পরিষ্কার করার সময় মেজাজ হারিয়ে ধাক্কা দেন মেয়ে স্মৃতি। এতে মাকসুদা পড়ে গিয়ে প্রাণ হারান। এছাড়া অন্য কোনো কারণ আছে কি-না তা ময়নাতদন্তের পর জানা যাবে। আমরা তদন্ত করে যাচ্ছি।”

ওসি জানান, এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য স্মৃতি বেগমকে আটক করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য নিহতের মরদেহ ঢাকা মেডিকেল কলেজ মর্গে পাঠানো হয়েছে।

স্মৃতি বেগম মুন্সিগঞ্জের শ্রীনগর উপজেলার পাটাভোগ গ্রামের বাসিন্দা। নিহত মাকসুদা বেগমের দুই বিয়ে। বর্তমানে কেউ নেই। দুই স্বামীর সংসারে তার চার ছেলে দুই মেয়ে। কিন্তু তিনি থাকতেন ছোট মেয়ে স্বামী পরিত্যক্তা স্মৃতির সঙ্গে। অন্য ভাই-বোনেরা যে যার মতো বিভিন্ন জায়গায় থাকেন।

স্মৃতি বেগমের বড় ভাই মো. আলী ঢাকা ট্রিবিউনকে বলেন, “আমার ছোট বোন স্মৃতিই মাকে হত্যা করেছে। তার সঙ্গে আরও কয়েকজন ছিল। মা তার সঙ্গে থাকতো। মায়ের যত টাকা-পয়সা আছে, তার নামিনি তাকে দিয়ে রেখেছেন।”

তিনি বলেন, “বিষয়টি আমরা পুলিশকে জানিয়েছি। পুলিশ বলেছে আমরা তদন্ত করে দেখছি।”

About

Popular Links