Wednesday, May 22, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

গাজীপুরে ফের পোশাক শ্রমিকদের বিক্ষোভ, আহত চার

পোশাক শ্রমিকদের বিক্ষোভের কারণে জেলার বেশ কয়েকটি পোশাক কারখানা সোমবার দুপুরের পর হতে ছুটি ঘোষণা করে কর্তৃপক্ষ

আপডেট : ০৬ নভেম্বর ২০২৩, ০৯:৫৯ পিএম

বেতন ভাতা বৃদ্ধির দাবিতে গাজীপুরে আবারও কয়েকটি পোশাক কারখানার শ্রমিকরা বিক্ষোভ করেছেন। বিক্ষোভ থেকে অগ্নিসংযোগ ও পুলিশের সঙ্গে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এতে নারী পোশাক শ্রমিকসহ আহত হয়েছেন চারজন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ টিয়ারসেল ও সাউন্ড গ্রেনেড নিক্ষেপ করেছে বলে জানা গেছে।

সোমবার (৬ নভেম্বর) গাজীপুরের কাশিমপুর, জরুন ও কোনাবাড়ি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ (জিএমপি’র) কাশিমপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সৈয়দ রাফিউল করিম জানান, ২৩ হাজার টাকা ন্যূনতম মজুরি করার দাবিতে শ্রমিক অসন্তোষের মুখে বন্ধ করে দেওয়া মহানগরীর কাশিমপুর, হাতিমারা, জিতার মোড়, জরুন ও কোনাবাড়ি এলাকার অধিকাংশ কারখানা সোমবার সকালে খুলে দেওয়া হয়। সকালেই বেশ কিছু কারখানার শ্রমিকরা বিক্ষোভ করেন। দুপুরে খাবার বিরতির পর অনেক শ্রমিক কারখানায় ফিরে কাজে যোগ না দিয়ে কর্মবিরতি ও বিক্ষোভ শুরু করে। একপর্যায়ে তারা সড়কে নেমে এলে আশপাশের কারখানার শ্রমিকরাও তাতে যোগ দেন। তারা মিছিল নিয়ে পুরো এলাকা প্রদক্ষিণ করেন। সড়ক অবরোধ করে টায়ার, পরিত্যক্ত ব্যানার ও কাঠে অগ্নিসংযোগ করে যান চলাচল বন্ধ করে দেয়। পুলিশ তাদের সরিয়ে দিতে চাইলে তারা পুলিশের দিকে ইটপাটকেল ছুঁড়তে থাকে। এতে উভয় পক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া শুরু হয়। পুলিশ শ্রমিকদের ছত্রভঙ্গ করতে টিয়ার সেল ও সাউন্ড গ্রেনেড নিক্ষেপ করে। এতে নারীসহ চারজন আহত হন। এরপর শ্রমিকরা কোনাবাড়ি এলাকায় ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কে অবরোধের চেষ্টা করলে পুলিশসহ আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ধাওয়ায় পিছু হটে তারা।

গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের (জিএমপি) কোনাবাড়ি জোনের সহকারী পুলিশ কমিশনার আসাদুজ্জামান জানান, পোশাক শ্রমিকদের বিক্ষোভের কারণে জেলার বেশ কয়েকটি পোশাক কারখানা সোমবার দুপুরের পর হতে ছুটি ঘোষণা করে কর্তৃপক্ষ। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে সংশ্লিষ্ট এলাকায় পুলিশসহ বিপুল সংখ্যক আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে।

About

Popular Links