Thursday, May 23, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

জমি বিক্রি করে মনোনয়ন ফরম কিনলেন গ্রাম পুলিশ সদস্য

‘২০ বছর আগে পরিকল্পনা করেছিলাম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ভোট করব। তাই এক কাঠা জমি বিক্রি করে মনোনয়ন ফর্ম কিনেছি’

আপডেট : ২৩ নভেম্বর ২০২৩, ০৪:১৪ পিএম

আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নাটোর-১ (লালপুর-বাগাতিপাড়া) আসন থেকে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র কিনেছেন মো. এসকেন আলী (৪১) নামে এক ইউনিয়ন পরিষদের গ্রাম পুলিশ।

বুধবার (২২ নভেম্বর) দুপুরে লালপুর উপজেলা নির্বাচন অফিস থেকে তিনি স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন উত্তোলন করেন। বিষয়টি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন লালপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শামীমা সুলতানা।

মো. এসকেন আলী লালপুর উপজেলার বালিতিতা ইসলামপুর গ্রামের মৃত আকবর আলীর ছেলে। তিনি বর্তমানে ১ নম্বর লালপুর ইউনিয়ন পরিষদের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের গ্রাম পুলিশ (চৌকিদার) হিসেবে কর্মরত আছেন।

স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. এসকেন আলী বলেন, “যেকোনো নির্বাচন শুরু হলেই আমার খুব আনন্দ লাগে। অংশগ্রহণ করতে ইচ্ছে করে। এর আগেও আমি দুইবার ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য (মেম্বর) পদে ভোটে অংশ নিয়েছি। যেখানে একবার তৃতীয় হয়েছি।”

তিনি বলেন, “২০ বছর আগে পরিকল্পনা করেছিলাম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ভোট করব। তাই এক কাঠা জমি আড়াই লাখ টাকায় বিক্রি করে মনোনয়ন ফর্ম কিনেছি। আমি বিশ্বাস করি, আমি নির্বাচনে জিতব। দল-মতনির্বিশেষ সবাই আমাকে ভোট দেবেন।”

জনগণ আপনাকে কেন ভোট দেবে জানতে চাইলে তিনি বলেন, “আমি ২৭ বছর ধরে গ্রাম পুলিশের চাকরি করি। বিনা স্বার্থে মানুষের অনেক উপকার করেছি। একটা ভোট চাইলে তারা অবশ্যই দেবেন।”

তিনি বলেন, “এই আসনে মোট ১৫টি ইউনিয়ন পরিষদ আছে। সেখানকার গ্রাম পুলিশদের সঙ্গে আমার যোগাযোগ আছে। সবাই ইনশাল্লাহ আমার জন্য কাজ করবে।”

লালপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবু বক্কর সিদ্দিক গণমাধ্যমকে বলেন, “বর্তমানে আমি ঢাকায় অবস্থান করছি। লালপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) আমাকে ফোনে এসকেন আলীর মনোনয়ন ফরম উত্তোলনের বিষয়টি জানিয়েছেন। ঘটনাটি শুনে আমি অবাক হয়েছি।”

সরকারি চাকরিরত (গ্রাম পুলিশ) অবস্থায় সংসদ নির্বাচনে অংশ নেওয়ার বিষয়ে কোনো বাধ্যবাধকতা রয়েছে কি-না জানতে চাইলে লালপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শামীমা সুলতানা জানান, মনোনয়ন পত্র যাচাই-বাছায়ের সময় রিটার্নিং অফিসার বিষয়গুলো দেখবেন। আইনবিধি অনুযায়ী ত্রুটিযুক্ত হলে সেগুলো বাতিল হয়ে যাবে।

About

Popular Links